ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ভারত

পরিচয়পত্র নয়, যন্ত্র সন্তুষ্ট হলেই মিলবে কলকাতা বিমানবন্দরে প্রবেশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০৪ ঘণ্টা, জুন ২৯, ২০২১
পরিচয়পত্র নয়, যন্ত্র সন্তুষ্ট হলেই মিলবে কলকাতা বিমানবন্দরে প্রবেশ

কলকাতা: ডিজিটাল ইন্ডিয়ার অংশ হতে চলেছে কলকাতা বিমানবন্দর। ছবির সঙ্গে যাত্রীর মুখ মিলে গেলেই ছাড়পত্র মিলবে কলকাতা বিমানবন্দরের অন্দরে প্রবেশ।

এমনই অভিনব ব্যবস্থা কার্যকর হতে চলেছে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে।  

ফেসিয়াল ইলেকট্রনিক এই গেট বসানোর প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে। চলতি বছরের জুলাই মাস থেকে পরীক্ষামূলকভাবে এই ব্যবস্থা চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের।

সাধারণত, প্রতিটি বিমানবন্দর হয়ে থাকে হাই-সিকিওরিটি জোন। একদিকে জাতীয় নিরাপত্তা, অন্যদিকে যাত্রী সুরক্ষা। কোথাও কোনও ফাঁক রাখা হয় না বিমানবন্দরে। ফলে সব সময়ই বিমানবন্দরগুলোয় থাকে কড়া নিরাপত্তার বেষ্টনী। তবে যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্য বাদ রেখে নয়। তাই নিরাপত্তাও থাকবে, স্বাচ্ছন্দ্যও থাকবে এই লক্ষ্যেই এবার কলকাতা বিমানবন্দরে বসছে ফেসিয়াল ইলেকট্রনিক গেট।

ইতোমধ্যে সেই গেটের যন্ত্রাংশ বসানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে।  

বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়, প্রায় দেড়শো কোটি রুপির প্রজেক্ট এটি। কলকাতাসহ একসঙ্গে ভারতে ফেসিয়াল ইলেকট্রনিক গেট বসতে চলছে মহারাষ্ট্রের পুনে, অন্ধ্রপ্রদেশের বিজয়ওয়াড়া এবং উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে। তৈরি করেছে জাপানের একটি সংস্থা। ইতোমধ্যে কলকাতা বিমানবন্দরে গেট বসানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে। কলকাতা বিমানবন্দরে ৩এ, ৩বি প্রবেশপথের সামনে এই কাজ চলছে। মূলত, এই গেট দিয়েই আন্তর্জাতিক যাত্রীরা ওঠানাম করেন।

প্রবেশের আগে ধাপে ধাপে নিরাপত্তার তিনটি অংশ থাকছে। গেটের কাছে থাকবেন একজন কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা কর্মী। তার সামনে থাকবে একটি ট্যাবলেট স্ট্যান্ড। যাত্রীকে সবার আগে এসে সেই নিরাপত্তা কর্তাকে সংশ্লিষ্ট দেশের পরিচয়পত্র এবং যাত্রার বিবরণ দেখাতে হবে। তা পর্যবেক্ষণের পর যাত্রী আসবেন কর্তাটির পাশেই থাকা রেজিস্ট্রেশন কিয়ক্সে। সেখানে যাত্রীকে তার টিকিট স্ক্যান করাতে হবে। যাত্রীর ছবি এবং গন্তব্য সংক্রান্ত যাবতীয় বিবরণ ট্যাবলেটে ভেসে উঠবে। বিবরণ এবং ছবি আপলোড হয়ে যাওয়ার পর তা সরাসরি জমা হবে হার্ডডিস্কে। তিনবছর পর্যন্ত ওই ছবি এবং বিবরণ স্টোরেজে থাকবে।
 
সবশেষে যাত্রী বিমানবন্দরে অন্দরে প্রবেশের সময় গেটের সামনে এসে দাঁড়ালেই মনিটরে ভেসে উঠবে ছবি। মুখের সঙ্গে বিবরণে দেওয়া ছবি মিললে তবেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে গেট খুলে যাবে। এছাড়া ভেতরে প্রবেশের পর লাগেজ চেকিংয়ের সময় যে অংশ দিয়ে যাত্রীরা গিয়ে থাকেন, সেখানেও ইলেকট্রনিক গেটের সামনে দাঁড়ালেই ফের ছবি ভেসে উঠবে। তবে নিরাপরত্তা রক্ষীদের পাসপোর্ট, টিকিট চেক করার থেকে অতিদ্রুত হবে কাজ। ফলে যাত্রীর সময়ও বাঁচবে এবং সঠিক যাত্রী চিহ্নিতও হবেন।

জানা গেছে, ধাপে ধাপে গোটা বিমানবন্দরে প্রবেশ পথে এই সিস্টেম চালু হবে। মোট ২৬টি ইলেকট্রনিক গেট বসতে চলেছে কলকাতা বিমানবন্দরে। ভারতের অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের এই নতুন ব্যবস্থার নাম দেওয়া হয়েছে ডিজি যাত্রা।

বাংলাদেশ সময়: ১১০২ ঘণ্টা, জুন ২৯, ২০২১
ভিএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa