ঢাকা, বুধবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

নির্বাচন ও ইসি

নাটোরে প্রতীক বরাদ্দের আগেই ভোট প্রার্থনা, প্রার্থীকে শোকজ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৫১ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
নাটোরে প্রতীক বরাদ্দের আগেই ভোট প্রার্থনা, প্রার্থীকে শোকজ

নাটোর: নাটোর সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দের আগেই ‘দোয়াত কলম’ মার্কায় ভোট চাওয়ায় নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. রিয়াজুল ইসলাম মাসুমকে শোকজ করা হয়েছে।  

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আব্দুল লতিফ শেখ স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই শোকজ নোটিশ ইস্যু করা হয়।

নোটিশে বলা হয়, আপনি রিয়াজুল ইসলাম ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ সাধারণ নির্বাচনে নাটোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আপনি গত ১৮ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) গোকুলনগর জুনিয়র বন্ধুমহল ক্লাব ও গোকুলনগর যুব সম্প্রদায়ের উদ্যোগে আয়োজিত ইসলামী জালসা ও তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে আগত মুসল্লিবৃন্দ ও এলাকাবাসীর কাছে দোয়া সহযোগিতা ও ভোট প্রার্থনা করেছেন এবং প্রতীক বরাদ্দের আগেই আপনার ফেসবুক আইডি থেকে দোয়াত কলম মার্কায় ভোট প্রার্থনা করছেন।  

এছাড়া শুক্রবার দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম হাগুড়িয়া জামে মসজিদে উপস্থিত মুসল্লিবৃন্দ ও এলাকাবাসীর কাছে দোয়া সহযোগিতা ও ভোট প্রার্থনা করেছেন, যা উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর বিধি-৫ (১) লংঘন হয়েছে, যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।  

এমতাবস্থায় উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর বিধি-৫ (১) লংঘনের দায়ে কেন আপনার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তার ব্যাখ্যা আগামী ২১ এপ্রিল বিকেল সাড়ে ৩টায় সশরীরে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার একটি মসজিদে নামাজ শেষে নির্বাচনী প্রচারণায় যাই। কিন্তু মসজিদে বা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নির্বাচনী প্রচারণা করা যাবে না বিষয়টি আমার জানা ছিল না। তবে আমি কোনো প্রতীকে প্রচারণা করিনি, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।  

নাটোর সদর উপজেলায় ৬ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শরিফুল ইসলাম রমজান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম মাসুম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তারুল ইসলাম আলম, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জামিল হোসেন মিলন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনু, সাবেক ছাত্রদল নেতা ইশতিয়াক আহমেদ হিরা।

আগামী ১৮ এপ্রিল থেকে ২০ এপ্রিল আপিল, আপিলের নিষ্পত্তি ২১ এপ্রিল, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ২২ এপ্রিল। এরপরে ২৩ এপ্রিলে প্রতীক বরাদ্দ এবং আগামী ৮ মে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
নিউজ ডেস্ক

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।