ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

হঠাৎ ফরিদপুরে পেঁয়াজের বাজারে আগুন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২১
হঠাৎ ফরিদপুরে পেঁয়াজের বাজারে আগুন

ফরিদপুর: ফরিদপুরে হঠাৎ পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। গত তিনদিনে কেজি প্রতি পেঁয়াজের দর ২০-৩০ টাকা বেড়েছে।

অথচ সরবরাহ স্বাভাবিক। তারপরও কেন বেড়েছে এই নিত্যপণ্যের দাম তা সরকার, ব্যবসায়ী, আমদানিকারক কেউ জানেন না।

বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) ফরিদপুর চরভদ্রাসনের হাজীগঞ্জের বাজার, সদরপুর বাজার, পিঁয়াজখালী বাজার, ফরিদপুর হাজী শরীয়তুল্লা বাজার, হেলিপোর্ট (হেলিপ্যাড) বাজার, টেপাখেলা বেলতলা বাজার, লেকপাড় বাজার, সিঅ্যান্ডবি ঘাট বাজার এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, ব্যবসায়ীরা প্রতি কেজি পেঁয়াজের মুল্য ক্রেতাদের কাছ থেকে নিচ্ছেন ৮০ টাকা করে।  

গত তিনদিন আগে যেখানে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিল ৪০-৫০ টাকা। অথচ এখন তা বিক্রি হচ্ছে ৮০-৮৫ টাকা কেজিতে। বাজারে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে ক্রেতাদের। তাদের দাবি, ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পেঁয়াজ মজুত রেখে বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি করে অধিক মুনাফা লাভের আশা করছে। এ বিষয়ে প্রশাসনের প্রতি বাজার মনিটরিংয়ের দাবি জানান ক্রেতারা।

ব্যবসায়ীরা বলেছেন, বাজারে এখন দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কম। আর ভারতেও পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। ফলে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়তি।

খুচরা বিক্রেতারা জানান, তিন থেকে চারদিন আগেও পেঁয়াজের দর ৪০-৫০ টাকা ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই কেজিতে ২০-৩০ টাকা বেড়েছে। পাইকারি বাজারে দাম বেড়ে যাওয়ায় খুচরা বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে বলেও জানিয়েছেন তারা।

খুচরা বাজারে এখন প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজের দাম ৮০ টাকার উপরে। তবে পাইকারি ব্যবসায়ী ও আড়ৎদারদের সঙ্গে কথা বলে দাম বৃদ্ধির সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ জানা যায়নি। এ ছাড়া ভারত বা বাংলাদেশ কোনো পক্ষই পেঁয়াজের আমদানি বন্ধ করেছে এমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। আমদানিকারকরাও বলছেন, পেঁয়াজের আমদানির গতি কিছুটা কমলেও বন্ধ হয়নি। তবে, বৃষ্টির কারণে কিছু মুড়িকাটা পেঁয়াজ নষ্ট হওয়ায় গতি কমেছে।

ফরিদপুর শহরের হাজী শরীয়ত উল্লাহ বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা মোকলেছ শেখ বলেন, আমদানি কম হচ্ছে। যার ফলে দাম বাড়ছে। এছাড়া পেঁয়াজের মৌসুম শেষের দিকে। তাই দামও চড়া।

তিনি বলেন, পাইকারি বাজারেও দাম বেড়েছে। মণপ্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৮০০-১০০০ টাকা। তাই আমরাও বাড়িয়ে বিক্রি করছি। আগামীতে আরও দাম বাড়তে পারে বলে জানান তিনি।

ফরিদপুরের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী সমিতির এক নেতা বলেন, কাঁচামালের বাজার এমনই। সরবরাহ কমে গেলে দাম বাড়ে। বাজারে এখন পেঁয়াজ কম, তাই দামও বেশি।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক রায় বলেন, পেঁয়াজের বাজারের অস্থিরতা নিয়ন্ত্রণে প্রশাসন নিয়মিত বাজার মনিটরিং করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৯, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa