ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৭, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

পেঁয়াজপাতা কেজি ২০০ টাকা!

আল রাহমান, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২, ২০২০
পেঁয়াজপাতা কেজি ২০০ টাকা! কাজীর দেউড়ি বাজারে প্রতি ১০০ গ্রাম পেঁয়াজপাতা বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা। ছবি: সোহেল সরওয়ার

চট্টগ্রাম: বাজারে এসেছে পেঁয়াজপাতা। শৌখিন ক্রেতারা প্রতিকেজি পেঁয়াজপাতা কিনছেন ২০০ টাকায়।

খুচরায় প্রতি ১০০ গ্রাম পেঁয়াজপাতার দাম নেওয়া হচ্ছে ২৫ টাকা।  বুধবার (২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় সরেজমিন নগরের কাজীর দেউড়ি বাজারে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বিক্রেতা আবদুস সবুর বাংলানিউজকে জানান, প্রতিবছর মৌসুমের প্রথমে পেঁয়াজপাতার দাম থাকে বেশি। এবার সবে বাজারে এসেছে। সীতাকুণ্ডসহ বিভিন্ন স্থানে আগাম লাগানো পেঁয়াজ পাতাসহ তুলে এনে বিক্রি করছেন চাষিরা।  

তিনি জানান, ১০০ গ্রাম বাছাই করা পেঁয়াজ পাতা ২৫ টাকায় বিক্রি করছি আমরা।

কাজীর দেউড়ি বাজার ছাড়াও রিয়াজউদ্দিন বাজার, কর্ণফুলী মার্কেট, বহদ্দারহাট, চকবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে পেঁয়াজপাতা বিক্রি হতে দেখা গেছে। তবে এখনো সরবরাহ খুব বেশি না থাকায় দাম হাঁকা হচ্ছে বেশি।

বিভিন্ন দেশের ছোট পেঁয়াজের চাহিদাই বেশি খুচরা বাজারে।  ছবি: বাংলানিউজ

খাতুনগঞ্জে কমছে পেঁয়াজের দাম

খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজের আড়ত মোহাম্মদীয়া বাণিজ্যালয়ের মালিক হাজি মিন্টু সওদাগর বাংলানিউজকে জানান, বুধবার (২ ডিসেম্বর) তুরস্কের ছোট পেঁয়াজ ৪৫ টাকা, দেশি ৫৫ টাকা, মিশর ২২-২৬ টাকা, চীনা লাল ২০-২২ টাকা, সাদা ১৫-১৮ টাকা, পাকিস্তানি ২৭-৩০ টাকা, ইউক্রেন ১৮ টাকা, ইরান ২৫-৩০ টাকা, ছোট ৩০-৩৩ টাকা, মিয়ানমার ২০-৩০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।  
তিনি জানান, পেঁয়াজ আমদানিকারকরা লোকসান দিয়ে হলেও বিক্রি বাড়াতে তৎপর রয়েছেন।  
খুচরায় রিকশাভ্যানে মৌসুমি ফেরিওয়ালারা বিভিন্ন রঙের বড়, ছোট, মাঝারি বৈচিত্র্যময় প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ৪০ টাকা। মুদি দোকানে ৪৫-৫০ টাকা এবং টিসিবির ট্রাকে বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা কেজি।  

বন্দরে ৮০ হাজার টন পেঁয়াজের ছাড়পত্র 

ভারত রফতানি বন্ধের পর বিভিন্ন দেশ থেকে সমুদ্রপথে চট্টগ্রাম বন্দরে এ পর্যন্ত প্রচুর পেঁয়াজ এসেছে বিভিন্ন দেশ থেকে। চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরের দায়িত্বে থাকা উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বুলবুল বাংলানিউজকে বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করছেন ব্যবসায়ীরা। বুধবার (২ ডিসেম্বর) পর্যন্ত চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে আসা ৮০ হাজার ১৬৫ টন পেঁয়াজের ছাড়পত্র ইস্যু করেছি আমরা। চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীরা ২ লাখ টনের বেশি পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি (আইপি) নিয়েছেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২২৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০২, ২০২০
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
Alexa