ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

নাশকতার আশংকায় আদালত ঘিরে নিরাপত্তা বলয়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১৪
নাশকতার আশংকায় আদালত ঘিরে নিরাপত্তা বলয় ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: চাঞ্চল্যকর দশ ট্রাক অস্ত্র মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার আশংকায় চট্টগ্রাম আদলতকে ঘিরে নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হচ্ছে। চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালত পর্যন্ত এলাকায় বুধবার রাত থেকেই থাকছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা।



এছাড়া নাশকতার আশংকায় চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েণ্টেও মোতায়েন করা হচ্ছে অতিরিক্ত পুলিশ।

নগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দশ ট্রাক অস্ত্র মামলার রায়কে ঘিরে বন্দরনগরীতে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং পুলিশ সদর দপ্তর থেকে মনিটরিং করা হবে। নিরাপত্তার ব্যাপারে কোন শৈথিল্য যেন না থাকে সে ব্যাপারে ইতোমধ্যেই প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পেয়েছে সিএমপি।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) বনজ কুমার মজুমদার বাংলানিউজকে বলেন, ‘দশ ট্রাক অস্ত্র মামলার রায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ রায়কে ঘিরে কেউ যেন কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য পুলিশকে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা হবে। ’

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হরতালে বন্দরনগরীতে যেভাবে নিরাপত্তা পরিকল্পনা নেয়া হয় সেভাবেই বৃহস্পতিবারও পুলিশ মোতায়েন থাকবে। নগরীতে এপিবিএন ও সাধারণ পুলিশ মিলিয়ে প্রায় দেড় হাজার পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এছাড়া রায়ের পর নাশকতা মোকাবেলায় বিজিবিকেও প্রস্তুত থাকার জন্য বলা হয়েছে।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (প্রসিকিউশন) মুহাম্মদ রেজাউল মাসুদ বাংলানিউজকে জানান, চট্টগ্রাম আদালত ভবনে প্রায় দশ প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে। ভোর ৫টার দিকে তাদের আদালতে নিয়ে আসা হবে। আদালতের প্রত্যেকটি প্রবেশপথে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করা হবে। আদালতের আশপাশে উঁচু ভবনগুলোতে, ফুটওভারের উপরে আর্মড পুলিশ মোতায়েন থাকবে।

বায়নোকুলার ও ক্যামেরা নিয়ে থাকবে নগর গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম। এছাড়া চট্টগ্রাম কারাগার থেকে আদালত ভবনে আসামীদের নেয়ার পথে সব উঁচু ভবনের ছাদে আর্মড পুলিশ মোতায়েন থাকবে। সাময়িকভাবে ওই সড়কে যানবাহন চলাচলও শিথিল রাখা হবে।

এছাড়া বুধবার গভীর রাতেও আদালত ও কারাগার ঘিরে পুলিশের একাধিক টিম টহল দেবে। র‌্যাবের একাধিক টিমও পুলিশের সঙ্গে টহল দেবে।

রেজাউল মাসুদ জানান, আদালত এলাকায় প্রবেশপথে সবাইকে তল্লাশির পাশাপাশি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গতিবিধিও নজরে রাখা হবে। এছাড়া বিচারিক আদালত চট্টগ্রামের স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক এস এম মুজিবুর রহমানের আদালত ও এজলাসকে বাড়তি নিরাপত্তার আওতায় আনা হবে।

চট্টগ্রাম আদালত ভবনে উঠার সড়কে এবং ভবনের বিভিন্ন ফ্লোরে থাকা সব অস্থায় দোকানপাট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এক সপ্তাহ আগে থেকেই দশ ট্রাক অস্ত্র মামলার বিচারকের বাসভবন ও এজলাসের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এর মধ্যেও গত সোমবার রাতে আদালত ভবনের আলামতখানায় এবং রেকর্ড রুমের সামনে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ এ ঘটনা পরিকল্পিত আতংক সৃষ্টির চেষ্টা বলে ধারণা করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa