ঢাকা, শনিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ জুন ২০২২, ২৫ জিলকদ ১৪৪৩

এভিয়াট্যুর

১৩ এপ্রিল থেকে চট্টগ্রাম-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

এভিয়াট্যুর ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ২১, ২০১৭
১৩ এপ্রিল থেকে চট্টগ্রাম-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট ১৩ এপ্রিল থেকে চট্টগ্রাম-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

ঢাকা: বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম থেকে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম গন্তব্য কলকাতায় ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। ১৩ এপ্রিল থেকে প্রাথমিকভাবে সপ্তাহে দু’দিন চট্টগ্রাম থেকে কলকাতা রুটে ফ্লাইট পরিচালিত হবে।

চট্টগ্রাম-কলকাতা-চট্টগ্রাম রুটে ১৬৪ আসনের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ফ্লাইট পরিচালিত হবে। যার মধ্যে ৮টি বিজনেস ক্লাস ও ১৫৬টি ইকোনমি ক্লাসের আসন ব্যবস্থা রয়েছে।

চট্টগ্রাম-কলকাতা রুটে ওয়ান ওয়ের জন্য সর্বনিম্ন ভাড়া ৬ হাজার ৩৯৯ টাকা এবং রিটার্ন ভাড়া ১২ হাজার ১৯৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ভাড়ায় সব ধরনের ট্যাক্স ও সারচার্জ অন্তর্ভুক্ত।

প্রাথমিকভাবে বৃহস্পতি ও রোববার চট্টগ্রাম থেকে সকাল ০৮টা ৫০ মিনিটে কলকাতার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে এবং কলকাতার স্থানীয় সময় সকাল ০৯টা ৩০ মিনিটে পৌঁছাবে।

এছাড়া কলকাতা থেকে বৃহস্পতি ও রোববার স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ১০মিনিটে চট্টগ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে এবং সকাল ১১টা ৫০মিনিটে চট্টগ্রামে পৌঁছাবে।  

বর্তমানে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ঢাকা থেকে কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, মাস্কাট, কলকাতা ও কাঠমুন্ডু রুটে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনা করছে। আগামী ৩ মে থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম হতে ব্যাংকক ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে। এছাড়া ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী ও বরিশাল রুটে নিয়মিতভাবে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট পরিচালনা করছে ইউএস-বাংলা।

এছাড়া স্বল্প সময়ের মধ্যে দোহা, গুয়াংজু রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে। আগামী আগস্ট মাসের মধ্যে ইউএস-বাংলা’র বিমান বহরে আরো একটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও একটি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমানে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বহরে ৩টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এবং ৩টি ড্যাশ ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট রয়েছে।  

১৭ জুলাই ২০১৪ সালে যাত্রা শুরু করে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স বর্তমানে প্রতি সপ্তাহে প্রায় ২০০টির বেশি অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। যাত্রা শুরু করার পর দুই বছর আট মাসে প্রায় ২৩ হাজার ফ্লাইট পরিচালনা করেছে, যা বাংলাদেশে বিমান চলাচলের ইতিহাসে একটি রেকর্ড।

যাত্রা শুরুর পর থেকে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের সঠিক সময়ে ফ্লাইট পরিচারনার রেকর্ড ৯৮.৭%, রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের ইন-ফ্লাইট সুবিধা। ইউএস-বাংলা শুরু করেছে বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো বিমান বন্দরে ওয়েজ আর্নারস ডেক্স, যেখান থেকে যাত্রীদের সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে। বিজনেস ক্লাসের যাত্রীদের জন্য শুরু করতে যাচ্ছে স্পেশাল পিক অ্যান্ড ড্রপ সার্ভিস, যা যাত্রীর বাড়ি থেকেই শুরু হবে। ইউএস-বাংলা আন্তর্জাতিক ফ্লাইট শুরু করার পর থেকে ১০ মিনিটে যাত্রীদের লাগেজ ডেলিভারি দিচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৪ ঘণ্টা, মার্চ ২১, ২০১৭ 
এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa