bangla news

অস্ত্রোপচারের পর ৯০ ভাগ সংক্রমণই প্রতিরোধযোগ্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-২৪ ৮:৫৫:১৭ পিএম
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: অবস অ্যান্ড গাইনির সিজারসহ যেকোনো ধরনের অস্ত্রোপচারকালীন প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি, সতর্কতা এবং পরবর্তীতে অর্জিত জ্ঞানের যথাযথ ব্যবহার ও ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ৯০ ভাগ সংক্রমণই প্রতিরোধ সম্ভব।

বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অবস অ্যান্ড গাইনি’ বিভাগের উদ্যোগে অস্ত্রোপচার পরবর্তী বিভিন্ন ধরনের সংক্রমণ (সার্জিক্যাল সাইট ইনফেকশন) বিষয়ে একটি কনটিনিউ মেডিক্যাল এডুকেশন (সিএমই) সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

বক্তারা বলেন, বেশিরভাগ রোগীই সংক্রমণের শিকার হন অধিকসংখ্যক অতিথির আসা-যাওয়া, পরিচ্ছন্নতা ও শরীরে আগে থেকেই কোনো রোগ থাকলে। সংক্রমণ মোকাবেলায় সচেতনতা ও পূর্বপ্রস্তুতির বিকল্প নেই।

সিএমই সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। এসময় অস্ত্রোপচার পরবর্তী রোগীদের শরীরে সংক্রমণ প্রতিরোধে ও সংক্রমিত স্থান উন্নত ও সুচিকিৎসার মাধ্যমে নিরাময়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

ডা. কনক কান্তি বলেন, প্রায়োগিক শক্তি ও জ্ঞান অর্জনের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। অপারেশন থিয়েটার স্বাস্থ্যকর কিনা তা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে নিজের অর্জিত জ্ঞান প্রয়োগ করে সংক্রমিত স্থান সারিয়ে তোলার মাধ্যমে রোগীকে সুস্থ করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস অ্যান্ড গাইনি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. তৃপ্তি রাণী দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, অবস অ্যান্ড গাইনি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কানিজ ফাতেমা, সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

সভায় অস্ত্রোপচারের পরবর্তী সংক্রমণের বিভিন্ন কারণ ও বিষয় নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরার পাশপাশি অপারেশন থিয়েটার সংক্রমিত হলে কীভাবে রোগীকে সুস্থ করা যায় সে বিষয়ে পর্যাপ্ত জ্ঞানার্জন ও প্রায়োগিক দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর জোর দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০১৯
এমএএম/কেএসডি/এইচএডি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-10-24 20:55:17