ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১৮ মহররম ১৪৪৬

ফুটবল

মার্তিনেসের গোলে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯০৪ ঘণ্টা, জুন ২৬, ২০২৪
মার্তিনেসের গোলে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

মুহুমুর্হু আক্রমণে চিলির ডিফেন্সকে ব্যস্ত রাখলো আর্জেন্টিনা। কিন্তু কিছুতেই পেলো না কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা।

কখনো বাধা হলেন গোলরক্ষক ক্লাদিও ব্রাভো, কখনো গোলপোস্ট। শেষ মুহূর্তে লাউতারো মার্তিনেসের গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে আলবিসেলেস্তেরা।  

বুধবার নিউ জার্সিতে কোপা আমেরিকার ম্যাচে চিলিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা। গ্রুপে টানা দুই জয়ে শীর্ষস্থান নিশ্চিত করেছে আলবিসেলেস্তেরা। তারা চলে গেছে ফাইনালেও।  

ম্যাচের শুরু থেকে গোছানো ফুটবল খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। ধীরে ধীরে আসে আক্রমণেও। যদিও চিলিও প্রায়ই প্রতি আক্রমণে ভয় ধরায়, কিন্তু আলবিসেলেস্তেদের ডিফেন্স ভাঙতে পারেনি তারা।

২২ মিনিটের মাথায় সবচেয়ে ভালো সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু নিকোলাস গঞ্জালেসের নেওয়া শট আটকে দেন চিলির গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো। এর মিনিট পাঁচেক পর রদ্রিগো দি পলের শট থামিয়ে দেন চিলির ডিফেন্ডার।

৩০ মিনিটের সময় শূন্যে ভাসা বল ফাঁকায় পেয়ে যান নিকোলাস গঞ্জালেস। কিন্তু তার ধীরগতির হেড সহজেই ধরে ফেলেন ব্রাভো। এই ম্যাচে মেসি চোট পান, তার অস্বস্তিও ছিল স্পষ্ট। কিন্তু এর মধ্যেও চিলিকে ভয় ধরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

৩৬ মিনিটে তার বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া বাঁ পায়ের জোরালো শট পোস্টে লেগে বাইরে চলে যায়। অল্পের জন্য গোল পাওয়া হয়নি তার। ৩ মিনিট পর মেসির কাছ থেকে পাওয়া বল ছয় গজ বক্সের সামনে দাঁড়িয়ে হেড করেন ম্যাক অ্যালিস্টার। কিন্তু তার বলও আটকে যায়।

বিরতির ঠিক আগে অ্যালিস্টারের আরও একটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। পরের মিনিটে আলভারেসের শট যায় পোস্টের উপর দিয়ে। প্রথমার্ধে আর্জেন্টিনার গোলমুখে একটি শটও নিতে পারেনি চিলি। আলবিসেলেস্তেরা নেয় ১৩টি শট।  

বিরতির পরও আক্রমণের ধার ধরে রাখে আর্জেন্টিনা। মুর্হুমূহু আক্রমণে পর্যুদস্ত করে চিলিকে। কিন্তু গোলের দেখা মিলছিল না কিছুতেই। দ্বিতীয়ার্ধের পাঁচ মিনিটের মাথায় দুর্দান্ত এক সুযোগ পায় আলবিসেলেস্তেরা। বক্সের বাইরে থেকে নাহুয়েল মালিনার উদ্দেশ্যে বল বাড়ান মেসি। বক্সের ডান প্রান্ত থেকে নেওয়া শট ঠেকিয়ে দেন ব্রাভো।  

এক মিনিট পর সুযোগ হারান লিসান্দ্রো মার্তিনেসও। ৫৭ মিনিটে আরও একবার ম্যাক অ্যালিস্টারের শট ঠেকিয়ে দেন চিলির গোলরক্ষক। একের পর এক আক্রমণেও গোলের দেখা আর্জেন্টিনা পাচ্ছিল না কিছুতেই।  

হুট করে খেলার ধারও কিছুটা কমে যায়। ৭৩ মিনিটে হুলিয়ান আলভারেসকে তুলে লাউতারো মার্তিনেসকে নামান লিওনেল স্কালোনি। তার হাত ধরেই গোলের দেখা পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। তাও একদম শেষ মুহূর্তে।  

বক্সে জটলার মধ্যে সেভ দেন ব্রাভো। তার ঠিক পাশেই এক ডিফেন্ডারের সঙ্গে লড়াইয়ে থাকা ম্যাক অ্যালিস্টার গোললাইন সামনে থাকা মার্তিনেসের কাছে বল দেন। বাঁ কর্নার দিয়ে জোরালো এক শটে বল জালে জড়ান মার্তিনেস। ভিআরএ চেক করেও গোল বহাল রাখেন রেফারি।  

অতিরিক্ত সময়ে আরও একটি সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু দি মারিয়ার কাছ থেকে পাওয়া পাসে বল জালে জড়াতে পারেননি মার্তিনেস। শেষ অবধি এক গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা।  

বাংলাদেশ সময় : ০৯০৫ ঘণ্টা, ২৬ জুন, ২০২৪
এমএইচবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।