ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

ফুটবল

সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপ

জয় দিয়ে বছর শুরু করতে চায় বাংলাদেশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০২৪
জয় দিয়ে বছর শুরু করতে চায় বাংলাদেশ

সাফ নারী অনূর্ধ্ব-১৯ প্রতিযোগিতা দিয়ে বাংলাদেশের ফুটবলের এই বছরের আন্তর্জাতিক আসর শুরু হচ্ছে। বছরের শুরুটা জয় দিয়ে রাঙাতে চান আফিদা-স্বপ্নারা।

২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্নামেন্ট উপলক্ষ্যে আজ বাফুফে ভবনে বাংলাদেশ দলের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রেসমিটে অধিনায়ক ও কোচ উভয়ই শিরোপা ধরে রাখার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন। বয়সভিত্তিক এই প্রতিযোগিতার গত আসর হয়েছিল অনূর্ধ্ব-২০ ক্যাটাগরিতে। নেপালকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে শিরোপা উৎসবে মেতেছিল মেয়েরা।

এবারের লক্ষ্য জানাতে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে  (বাফুফে) আজ (মঙ্গলবার) সংবাদ সম্মেলনে এসে অধিনায়ক আফিদা খন্দকার, সহ-অধিনায়ক স্বপ্না রানী শিরোপা ধরে রাখার কথা জানিয়েছেন।

অধিনায়ক আফিদা বলেন, ‘টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ সব সময় গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম ম্যাচে জিতে আমরা ফাইনালের পথে থাকতে চাই। '

সহ-অধিনায়ক স্বপ্না বলেন, ‘‌‌‌‌যদিও এর আগে আমরা অনূর্ধ্ব-২০ চ্যাম্পিয়ন হয়েছি, (এবার অনূর্ধ্ব-১৯), তো আমরা তার ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চেষ্টা করব। আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন, যেন আমরা নিজেদের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে ট্রফিটা দেশে রাখতে পারি। '

জাতীয় নারী ফুটবল দল নিয়ে গত কয়েক মাস কাজ করছেন সাইফুল বারী টিটু। সিনিয়র দলের পাশাপাশি জুনিয়র দলেও কাজ করা টিটু দল নিয়ে আশাবাদী। তিনি বলেন, ‘আমাদের দল অনুশীলনের মধ্যে রয়েছে। সপ্তাহে একটি নিজেদের মধ্যে ম্যাচ হয়েছে। সব কিছু মিলিয়ে আমরা শিরোপা ধারা অব্যাহত রাখতে আশাবাদী। ’

২৩ জনের দলে জাতীয় দলের খেলোয়াড় আছেন পাঁচ জন- আফিদা, স্বপ্না, স্বর্ণা রানী, ইতি খাতুন ও সুরমা জান্নাত। বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিকেএসপির তিন জন- নবীরুন খাতুন, লুৎফুর আক্তার লিমা ও বন্যা খাতুন। অভিজ্ঞ ও নবীনদের নিয়ে গড়া দল নিয়ে সন্তুষ্ট কোচ টিটু। তবে ভারত ও নেপালকে সমীহ করছেন তিনি।

টিটু বলেন,  '‌ফিজিক্যালি এদের মধ্যে পার্থক্য নেই। তবে অভিজ্ঞতার দিক থেকে যদি বলি, জাতীয় দলে যারা খেলেছে (অনূর্ধ্ব-১৯ দলের) তাদের অভিজ্ঞতা অনেক বেশি। সে তুলনায় নতুনদের পরিপক্কতা কম এবং এটাই আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ থাকবে যে ওদেরকে দলের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া। '


টুর্নামেন্টে মাত্র চার দল অংশগ্রহণ করছে। প্রতি দল তিনটি করে ম্যাচ খেলবে। তিন ম্যাচের পর শীর্ষ দুই দল ফাইনালে খেলবে। মাত্র চার দল অংশগ্রহণ করলেও টুর্নামেন্টটি বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ বলে আখ্যায়িত করেছেন কোচ টিটু। ভারত-নেপালকে কঠিন প্রতিপক্ষ মানছেন তিনি। টিটু বলেন, 'র‍্যাংকিংয়ের দিক থেকে ভারত  ও নেপাল আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে, কিন্তু খেলা আমাদের নিজেদের মাঠে। এখানে প্রতিদিন অনুশীলন করেছি, তো এই সুবিধা আমরা দ্রুত নেওয়া, অনাকাঙ্ক্ষিত ভুলগুলো ট্যাকল দেওয়া- আমার মনে হয় এগুলো গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জন্য। '

বাংলাদেশের ম্যাচ সমূহ

২ ফেব্রুয়ারি- বাংলাদেশ বনাম নেপাল
৪ ফেব্রুয়ারি- বাংলাদেশ বনাম ভারত
৬ ফেব্রুয়ারি- বাংলাদেশ বনাম ভূটান
৮ ফেব্রুয়ারি- ফাইনাল

*বাংলাদেশের প্রতিটি ম্যাচ সন্ধ্যা সাতটায়। ভেন্যু: কমলাপুর স্টেডিয়াম।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০২৪
এআর/এএইচএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।