[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
bangla news

যে উৎসবের আকর্ষণ মানুষ-ষাঁড়ের যুদ্ধ!

ফিচার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-০৬ ৪:৩৮:৫৪ পিএম
‘বুলফাইটে’ ষাড় ও মানুষের লড়াই

‘বুলফাইটে’ ষাড় ও মানুষের লড়াই

ঢাকা: স্পেনের উত্তরাঞ্চলের শহর প্যামপ্লোনাতে প্রত্যেক বছর আয়োজন করা হয় ‘সান ফার্মিন’ উৎসব। স্পেনের ঐতিহ্যবাহী উৎসবটি উপভোগ করতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অসংখ্য পর্যটক প্যামপ্লোনা শহরে পাড়ি জমান।

উৎসবটি মূলত ষাঁড় দৌড়ের কারণে পৃথিবী বিখ্যাত। উৎসবের শুরুর দিন সকালে ষাঁড় দৌড়ের মাধ্যমে এ উৎসব শুরু হয়। প্যামপ্লোনার সরু রাস্তায় অনেকগুলো ষাঁড়কে ছেড়ে দেওয়া হয়। সেই রাস্তায় অনেক মানুষও থাকে। শুরু হয় দৌড়। ষাঁড় ও মানুষ একইসঙ্গে দৌড়াতে থাকে। অনেকে আহতও হন এ দৌড়ে। এরপর এ ষাঁড়গুলো একটি খেলার মাঠে প্রবেশ করে। যেখানে সন্ধ্যায় শুরু হয় ‘বুলফাইট’। ‘বুলফাইটে’ ষাঁড়ের সঙ্গে মানুষের লড়াই হয়। ‘বুলফাইট’ আর ষাঁড় দৌড়ই সান ফার্মিন উৎসবের প্রধান আকর্ষণ। সান ফার্মিন উৎসবের ষাড়দৌড়

উৎসবের শুরুর দিন আতশবাজিও হয়। আতশবাজিটির স্থানীয় নাম ‘চুপিয়ানজো’। ষাঁড় দৌড় কিংবা ‘বুলফাইটে’র মতো ‘চুপিয়ানজো’ও আকর্ষণীয় অংশ। 

প্রত্যেক বছর অসংখ্য পর্যটক সান ফার্মিন উৎসব দেখার জন্য প্যামপ্লোনা শহরে আসেন। গত বছর এ উৎসবে প্রায় সাড়ে ১০ লাখ মানুষ অংশ নেয়।‘বুলফাইটের’ মাঠ

সাত দিনব্যাপী উৎসবের প্রত্যেকদিনই ষাঁড়দৌড়, বুলফাইট ও আতশবাজি ‘চুপিয়ানজো’ আয়োজন করা হয়। এছাড়াও এ উৎসবে লোকগান, সেইন্ট ফার্মিন পদযাত্রা প্রভৃতি অনুষ্ঠিত হয়। সান ফার্মিনের আতশবাজি ‘চুপিয়ানজো’

তবে অ্যানিম্যাল অ্যাক্টিভিস্টরা সান ফার্মিন উৎসবের ‘বুলফাইট’ বন্ধের দাবি জানিয়ে আসছে। তারা রক্তহীন উৎসবের দাবি জানান।

সান ফার্মিন উৎসব এক সপ্তাহব্যাপী হয়ে থাকে। প্রত্যেক বছরের জুলাইয়ের ৬ তারিখ থেকে ১৪ তারিখ পর্যন্ত এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। ১৪০০ শতক থেকে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উৎসবের নামকরণ করা হয়েছে সেইন্ট ফার্মিনের নামে।  


বাংলাদেশ সময়: ২১৩৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৬, ২০১৮
এএইচ/এএ

 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ফিচার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa