bangla news
ঢাকা-১৮

নবীন-প্রবীণে লড়াই জমজমাট

ইসমাইল হোসেন ও ইলিয়াস সরকার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১২-২৭ ৩:১৬:২০ পিএম
নির্বাচনী জনসভায় সাহারা খাতুন

নির্বাচনী জনসভায় সাহারা খাতুন

ঢাকা: রাজধানীর উত্তরা ও আশপাশের এলাকা নিয়ে গঠিত ঢাকা-১৮ নম্বর সংসদীয় আসন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নবীন-প্রবীণে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। ভোটাররা বলছেন, নির্বাচনী প্রচারণার মতো লড়াইটাও হবে বেশ।

জমজমাট প্রচারণা চালাচ্ছেন ক্ষমতাসীন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও প্রবীণ আইনজীবী সাহারা খাতুন। অন্যদিকে কিছুটা নীরবেই প্রচারণা চালাচ্ছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী জেএসডি নেতা শহীদ উদ্দিন মাহমুদ।

ভোটারদের মতে, সাহারা খাতুন প্রবীণ ব্যক্তি। এলাকায় সুপরিচিত। বাংলাদেশের প্রথম মহিলা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও ছিলেন তিনি। দুইবারের সংসদ সদস্য। আর শহীদ উদ্দিন মাহমুদ সে তুলনায় একেবারেই নতুন। ভোটারদের মাঝে তেমন একটা পরিচিত নন। সেই সঙ্গে প্রচারণাও নেই।

এরপরও ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৭১৩ জন ভোটারের এ আসনে নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকের মধ্যেই লড়াই হবে বলে মনে করেন ভোটাররা।

গত শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজধানীর গুলশান ইয়ুথ ক্লাব মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জনসভার আয়োজন করা হয়।

ওই সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাহারা খাতুনকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে বলেন, বাংলাদেশে সেই ঊনসত্তরের ছাত্র রাজনীতি থেকে শুরু করে আমরা একইসাথে রাজপথে সংগ্রাম করেছি। সত্তরের নির্বাচন, মুক্তিযুদ্ধ প্রত্যেকটা কাজের ক্ষেত্রে তার অবদান রয়েছে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলন, ভোট ও ভাতের আন্দোলন, স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনসহ সকল আন্দোলনে যুক্ত ছিলেন সাহারা খাতুন।

উত্তরা মডেল টাউনের বিভিন্ন সেক্টর, উত্তরখান, খিলক্ষেত ও দক্ষিণখানসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রচারণা চালাচ্ছেন সাহারা খাতুন। তার পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো এলাকা।
নির্বাচনী প্রচারণায় শহীদ উদ্দিন মাহমুদনির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগকালে তিনি বলছেন, দলের প্রতীক নৌকা স্বাধীনতা এনেছে। এ নৌকা উন্নয়ন এনেছে। উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার জন্য নির্বাচন হচ্ছে। উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দেবেন। অনুরোধ করবো ৩০ তারিখ নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখবেন।

নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে অভিযোগের সুরে কথা বলেন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী শহীদ উদ্দিন মাহমুদ। অবাধে প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারছেন না, কৌশলগতভাবে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

শহীদ উদ্দিন মাহমুদ বলেন, আমরা বিশ্বাস করি আজকে ধানের শীষ শুধু ঢাকা-১৮ নয়, সারা বাংলাদেশের মানুষ ধানের শীষে ভোট দেওয়ার জন্য মুখিয়ে আছে।

ঢাকা-১৮ আসনে ২০০৮ সাল থেকে জাতীয় সংসদে জনপ্রতিনিধিত্ব করছেন সাহারা খাতুন। তৃতীয়বারের মতো তাকে সংসদে দেখছেন কুড়িল কাজী বাড়ি এলাকার ভোটার আজিজুল করিম।

তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখা, সুপরিচিত, প্রবীণ নেত্রী হিসেবে সাহারা আপাই ফের এ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবেন।

তবে খিলক্ষেত এলাকার বাসিন্দা হোসেন আহমেদ বলেন, প্রচারণায় বর্তমান এমপি অনেক এগিয়ে আছেন। সর্বত্রই তার পোস্টার। প্রত্যেক এলাকায় তিনি চষে বেড়াচ্ছেন। ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন। কিন্ত মূল লড়াই হবে নৌকা প্রতীক ও ধানের শীষ প্রতীকের মধ্যে।

এ আসনের অন্য প্রার্থীরা হলেন, আম প্রতীকে মাসুম বিল্লাহ, মোমবাতি প্রতীকে আবদুল মোমেন, টেলিভিশন প্রতীকে আতিকুর রহমান নাজিম, হাতপাখা প্রতীকে আনোয়ার হোসেন, বাঘ প্রতীকে রফিকুল ইসলাম, হাত (পাঞ্জা) প্রতীকে রেজাউল ইসলাম স্বপন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

২০০৮ সালে নৌকা প্রতীকে সাহারা খাতুন ২ লাখ ১৩ হাজার ৩৩২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিএনপির আজিজুল বারী হেলাল। তিনি পেয়েছিলেন ১ লাখ ১৬ হাজার ৭৮৭ ভোট।

২০১৪ সালে টেলিভিশন প্রতীকের প্রার্থী আতিকুর রহমানকে হারিয়ে ফের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন সাহারা খাতুন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৮
এমআইএইচ/ইএস/এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2018-12-27 15:16:20