ঢাকা, সোমবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে চায় ভিয়েতনাম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০১৮
বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে চায় ভিয়েতনাম ভিয়েতনামের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পাঁচ সদস্যের বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এফবিসিসিআই নেতাদের সভা

ঢাকা: ভিয়েতনাম ও বাংলাদেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের মধ্যে এ বছর অনুষ্ঠিত বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত করার ব্যাপারে তারা দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন বলে জানিয়েছেন এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে বিদ্যমান বাণিজ্য বাড়াতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ভিয়েতনাম। ভিয়েতনাম প্রতিনিধিদল সে দেশে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারকদের বিনিয়োগের আহ্বানসহ কৃষি যন্ত্রপাতি, রাসায়নিক, সার, সামুদ্রিক খাবার ইত্যাদি খাতে বাণিজ্য সম্প্রসারণের আগ্রহ দেখিয়েছে।

একই সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা ভিয়েতনামের পর্যটন, শিক্ষা ইত্যাদি খাতে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেন।  

বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) এফবিসিসিআই সভাকক্ষে ভিয়েতনামের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পাঁচ সদস্যের এক বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এফবিসিসিআই নেতাদের এক সভা শেষে একথা জানানো হয়।  

এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমের সভাপতিত্বে ভিয়েতনাম প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন দেশটির শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক মি. নুয়েন ফুকন্যাম। বাংলাদেশে ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত মি. ত্রান ভ্যান খোয়া ও দূতাবাসের কর্মকর্তারা আলোচনায় অংশ নেন। আলোচনায় আরও ছিলেন এফবিসিসিআই পরিচালক প্রবীর কুমার সাহা, আজিজুল হক, হাফেজ হাজি হারুন অর রশিদ এবং মো. মনিরুজ্জামা। বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।  

এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, ভিয়েতনামের উন্নয়ন সাফল্য থেকে বাংলাদেশ অভিজ্ঞতা গ্রহণ করতে পারে। এ লক্ষ্যে ‘জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ’ গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। একই সঙ্গে এফবিসিসিআইয়ে প্রতিষ্ঠিত ‘এফবিসিসিআই বেসরকারি ইনস্টিটিউট’-কে প্রযুক্তিগত সহায়তার জন্য ভিয়েতনাম প্রতিনিধিদলের সহায়তা কামনা করেন।

ভিয়েতনামে তৈরি পোশাক, টেক্সটাইল ইত্যাদি খাতে বাংলাদেশের বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে প্রতিনিধিদলের নেতা নুয়েন ফুকন্যাম বলেন, ভিয়েতনাম সরকারের দেওয়া বিশেষ সুবিধা বাংলাদেশের বিনিয়োগকারীরা নিতে পারেন। এছাড়া আগামী মার্চ মাসে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠেয় ‘ভিয়েতনাম-বাংলাদেশ ট্রেড ফেয়ার’-এ অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের আহ্বান জানানোসহ পারস্পরিক মতবিনিময়ের মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যকার সম্ভাবনাময় বাণিজ্যখাতে সুযোগ তৈরি হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।  

২০১৭-১৮ অর্থবছরে বাংলাদেশ ৫৫ দশমিক ৬৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য ভিয়েতনামে রপ্তানি করে এবং ভিয়েতনাম থেকে ৬৮৭ দশমিক ৭০ মিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করে। ভিয়েতনামে বাংলাদেশের রপ্তানিযোগ্য পণ্যগুলো হচ্ছে কৃষিজাত পণ্য, পাট ও চামড়াজাত পণ্য, হিমায়িত খাদ্য ও ওষুধ সামগ্রী। আর ভিয়েতনাম থেকে মূলত খণিজ দ্রব্য, বস্ত্র ও বস্ত্র সামগ্রী, যন্ত্রপাতি ও প্লাস্টিক উপাদান আমদানি করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২০, ২০১৮
জিসিজি/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa