ঢাকা, বুধবার, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৭ জিলহজ ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

ফয়’স লেক এলাকায় সিপিডিএল এর ‘সেকেন্ড হোম’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০২ ঘণ্টা, জুন ২৪, ২০২১
ফয়’স লেক এলাকায় সিপিডিএল এর ‘সেকেন্ড হোম’ ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম: উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে চলছে চট্টগ্রামের উন্নয়ন। মিরসরাইয়ে বঙ্গবন্ধু শিল্প নগর, মাতারবাড়িতে গভীর সমুদ্রবন্দর ও কর্ণফুলীর তলদেশ দিয়ে নির্মিত হচ্ছে টানেল।

এসব উন্নয়নের সঙ্গী হতে চট্টগ্রামে রিয়েল অ্যাস্টেট সেক্টরে নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছে আবাসন কোম্পানি সিপিডিএল।

‘দ্যা গ্যালেরিয়া’ নামের নতুন এ ধারার প্রকল্পটি নেওয়া হয়েছে নগরের জাকির হোসেন রোডে ইউএসটিসির বিপরীত পাশে নৈসর্গিক প্রকৃতিতে অবস্থিত ফয়’স লেক এলাকায়। স্থানটি নগরের সঙ্গে  সংযুক্ত। জনসাধারণের সকল সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন এ এলাকায় রয়েছে হাসপাতাল, ইউনিভার্সিটি, লেক-পাহাড় সমৃদ্ধ জনপ্রিয় সব ট্যুরিস্ট স্পট। যেখান থেকে সব জায়গায় পৌঁছানো যাবে স্বল্প সময়ের মধ্যে।  

দ্যা গ্যালেরিয়া ‘সেকেন্ড হোম’ চট্টগ্রামের প্রথম এবং সিডিএ অনুমোদিত একমাত্র স্টুডিও অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্প। ইতিমধ্যে ১৮ তলা বিশিষ্ট এই প্রকল্পের কাঠামোগত কাজ শেষ হয়েছে। বিভিন্ন সাইজের ১০০টি ফুল-ফার্নিশড স্টুডিও এবং স্যুইটস সম্বলিত সিপিডিএল দ্যা গ্যালেরিয়া’তে রয়েছে বিজনেস সেন্টার, ইনফিনিটি সুইমিং পুল, কফি লাউঞ্জ, ইনডোর গেমিং, ক্লাব হাউজ এবং কিড’স জোন, রুফটপ ক্যাফেসহ বিলাসবহুল সব সুযোগ সুবিধা।  

এসব স্টুডিও এবং স্যুটস থেকে পশ্চিমে রয়েছে বঙ্গোপসাগরের বিস্তীর্ণ জলরাশি, দক্ষিণ পাশে বন্দরের বর্ণিল আলোকসজ্জা। উত্তরে ঐতিহাসিক ও প্রাকৃতিক অবয়বে মোড়ানো ফয়’স লেক এবং নৈসর্গিক পাহাড়ের সমারোহ। এছাড়াও পূর্বে রয়েছে পুরো শহরের মনোমুগ্ধকর ল্যান্ডস্কেপ।  

২১ কাঠা জায়গার ওপর অত্যাধুনিক স্থাপত্যশৈলির মাধ্যমে ১৮ তলার একটি সুউচ্চ টাওয়ার নিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে স্টুডিও অ্যান্ড স্যুইটস টাইপের এই প্রকল্পটি। ৫ম তলা থেকে ১৫ তলা পর্যন্ত সর্বমোট ১০০টি স্টুডিও ও স্যুট রুম রয়েছে প্রকল্পটিতে।  

এই লাক্সারিয়াস স্টুডিও অ্যান্ড স্যুটস রুমগুলোর সাইজ সর্বনিম্ন ৩৭৫ থেকে সর্বোচ্চ ১৩১৫ বর্গফুট। চাহিদামাফিক ফুল ফার্নিশড স্টুডিওটি বেছে নেওয়া যাবে এই সাইজগুলোর মধ্য থেকে।  

আকর্ষণীয় এই স্টুডিও রুমগুলোর ইন্টেরিয়র ডিজাইন এবং মডার্ন ফার্নিশিং নিঃসন্দেহে সবার নজর কাড়বে। কমফোর্টের জন্য স্টুডিওগুলোতে থাকছে এয়ার কন্ডিশনিং, মিনি রেফ্রিজারেটর, এলইডি টিভি, ফুল সাইজ মিরর, মাইক্রোওয়েভ, ওয়াল কেবিনেটসহ বিলাসবহুল সব ফিচারস।  

সিপিডিএল দ্যা গ্যালেরিয়ার প্রথম তলায় রয়েছে পার্কিং, ম্যানেজমেন্ট অফিস, বিজনেস সেন্টার, কফি কর্নার ও রিসিপশন। দ্বিতীয় তলায় রয়েছে পার্কিং ও কফি লাউঞ্জ। তৃতীয় তলায় রেস্টুরেন্ট এবং ফ্যামিলি অ্যান্টারটেইনমেন্ট হাব। চতুর্থ তলায় থাকছে মাল্টিপারপাস হল, ক্লাব হাউস এবং কিডস জোন।  

১৬ তলায় আধুনিক ইকুইপমেন্ট সমৃদ্ধ জিমনেশিয়াম এবং স্পোর্টস লাউঞ্জ, ১৭ তলায় রুফটপ ক্যাফে এবং ইনফিনিটি সুইমিং পুল ও ১৮ তলায় এক্সক্লুসিভ স্কাই লাউঞ্জ।

চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স (সিসিসিআই) এর সভাপতি মাহবুবুল আলম বাংলানিউজকে বলেন, সিপিডিএল দ্যা গ্যালেরিয়া-সেকেন্ড হোম যৌক্তিকভাবেই বাংলাদেশের প্রপার্টি মার্কেটে একটি বিরাট বৈচিত্র্য আনতে সক্ষম হবে।  

সিপিডিএল দ্যা গ্যালেরিয়া ‘সেকেন্ড হোম’ সম্পর্কে সিপিডিএল’র প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার ইফতেখার হোসেন বলেন, এই কনসেপ্টটি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে জনপ্রিয় এবং সুপরিচিত হলেও চট্টগ্রামের জন্য এটি সম্পূর্ণ নতুন। সেকেন্ড হোম হচ্ছে একটি স্টুডিও অ্যাপার্টমেন্ট, যা ওকেশনাল হোম বা ওয়ার্কিং হোম হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

বর্ণিল উদ্বোধন অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তির মাধ্যমে সিপিডিএল দ্যা গ্যালেরিয়া ‘সেকেন্ড হোম’ কনসেপ্টের যাত্রা শুরু হয়। প্রকল্পটি চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশের লোকাল ও এনআরবি গ্রাহকদের জন্য বিশেষ প্যাকেজের মাধ্যমে বিক্রয়ের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫০ ঘণ্টা, জুন ২৪, ২০২১
এসি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa