bangla news

পাটকল শ্রমিকদের ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতি চলছে

​সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-০৩ ১০:৩৭:২৯ এএম
কর্মবিরতি শুরুর পর আমিন জুট মিলের শ্রমিকরা গেটে অবস্থান নেন

কর্মবিরতি শুরুর পর আমিন জুট মিলের শ্রমিকরা গেটে অবস্থান নেন

চট্টগ্রাম: মজুরি কমিশন বাস্তবায়নসহ ১১ দফা দাবিতে ভুখা মিছিল, প্রতীকী অনশন, বিক্ষোভ মিছিলের পর এবার ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করছে আমিন জুটমিলসহ রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল ৬টা থেকে পূর্বঘোষিত কর্মবিরতি শুরু করেন শ্রমিকরা। তারা রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের নেতাদের সঙ্গে মিল গেটে অবস্থান নেন। এর ফলে পাটকলগুলোর উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়।

আমিন জুট মিল সিবিএ’র দপ্তর সম্পাদক কামাল উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন, বকেয়া মজুরি পরিশোধসহ ১১ দফা দাবিতে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে সারা দেশের মতো চট্টগ্রামের আমিন জুট মিলেও ২৪ ঘণ্টার কর্মবিরতি চলছে। শ্রমিকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে কাজ বন্ধ রেখে মিল গেটে জড়ো হয়েছেন। সেখানে সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের নেতারা বক্তব্য দিচ্ছেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমিন জুট মিলে প্রায় ৪ হাজার শ্রমিক কর্মরত আছেন। এর বাইরে চট্টগ্রামে আরও ৯টি পাটকল রয়েছে। সেগুলোর শ্রমিকনেতারাও আমাদের সঙ্গে মিল গেটে অবস্থান করছেন।

মিল গেটে শ্রমিকদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন আমিন জুট মিল সিবিএ সভাপতি আরিফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মো. মোস্তফা, সংগ্রাম পরিষদের শামসুল আলম প্রমুখ।

তারা বলেন, পাটকলের চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার পরও এককালীন সুবিধা বুঝে পাননি অনেকে। কেউ কেউ মারা গেছেন। অনেকের নমিনিও মারা গেছেন। কর্মরত শ্রমিকরাও মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন। আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। দাবি আদায় না করে আমরা ঘরে ফিরবো না।

তারা শ্রমিকদের ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনের (বিজেএমসি) প্রতি আহ্বান জানান।       

>> আমিন জুট মিল শ্রমিকদের ভুখা মিছিল
>> আমিন জুট মিল শ্রমিকদের প্রতীকী অনশন

বাংলাদেশ সময়: ১০২৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০১৯
এআর/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম পাটকল
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-03 10:37:29