bangla news

ব্যস্ত সড়কের মাঝে শিশু, উদ্ধার করলেন মেয়র নাছির

​সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-১৮ ৯:৫০:২২ পিএম
দ্রুত গাড়ি থেকে নেমে শিশুটিকে উদ্ধার করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সড়কের পাশে নিয়ে আসেন।

দ্রুত গাড়ি থেকে নেমে শিশুটিকে উদ্ধার করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সড়কের পাশে নিয়ে আসেন।

চট্টগ্রাম: নগরের ব্যস্ততম লালখান বাজার ইস্পাহানি মোড়ে সড়কের মাঝখানে ৫-৬ বছরের একটি ফুটফুটে ছেলে। একের পর এক ছুটে চলছে ছোট-বড় গাড়ি। যেকোনো মুহূর্তে ঘটতে পারে অঘটন। বিষয়টি নজরে পড়ে ওই পথে আসা মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের।

দ্রুত গাড়ি থেকে নেমে শিশুটিকে উদ্ধার করে সড়কের পাশে নিয়ে আসেন। বিপদের হাত থেকে রক্ষা করেন শিশুটিকে।  

রোববার (১৮ আগস্ট) রাত আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

>> 'প্রটোকল লাগবে না, বাচ্চাটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাও'

মেয়রের সঙ্গে থাকা যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য মান্নান ফেরদৌস বাংলানিউজকে বলেন, মেয়র টাইগার পাসের অস্থায়ী সিটি করপোরেশন অফিস থেকে বের হয়ে মুরাদপুরের দিকে একটি অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ রাস্তার মাঝখানে একটি শিশুকে দেখে চালককে গাড়ি থামাতে বলে নিজে নেমে শিশুটিকে নিয়ে রাস্তা পার হন।

এ সময় ছুটে আসেন ছেলেটির বাবাও। তিনি আবেগাপ্লুত কণ্ঠে মেয়রকে জানান, প্রাইভেট কার পার্কিং করার সময় ছেলে গাড়ির দরজা খুলে সড়কে নেমে পড়ে।

মেয়র সন্তানকে চোখে চোখে রাখার জন্য অনুরোধ জানান। ছেলেটিকে বাবা মেয়রকে কৃতজ্ঞতা জানান।

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বাংলানিউজকে বলেন, আমরা রাজনীতি করি মানুষের জন্য। মানবতা বোধ থেকেই শিশুটির জীবন বাঁচানোর চেষ্টা করেছি। আল্লাহর অশেষ রহমত ছিলো, তাই সফল হয়েছি।

এর আগে ২০১৬ সালের ২২ মার্চ চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে একটি অনুষ্ঠান শেষে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের গাড়ি বহরটি জামালখান সেন্ট মেরিস স্কুল পেরিয়ে গণিবেকারি মোড়ে মায়ের হাত ধরে রাস্তা পেরোবার সময় গাড়ির ধাক্কায় রক্তাক্ত শিশুটির কাছে ছুটে যান। পুলিশি প্রটোকলের গাড়িতে তুলে দিয়ে বলেছিলেন, ‘আজ আমার প্রটোকল লাগবে না, জলদি বাচ্চাটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাও। তার চিকিৎসাটা জরুরি।’

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৮, ২০১৯
এআর/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-18 21:50:22