[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ৪ কার্তিক ১৪২৫, ১৯ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

‘মাদক সংশ্লিষ্ট’ পুলিশ সদস্যদের হু‍ঁশিয়ারি 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৬-১৩ ৬:০৬:০০ এএম
বক্তব্য দেন সিএমপির নতুন কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান।  ছবি: উজ্জ্বল ধর

বক্তব্য দেন সিএমপির নতুন কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান।  ছবি: উজ্জ্বল ধর

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) ‘মাদক সংশ্লিষ্ট’ সদস্যদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন নতুন কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান। 

তিনি বলেন, সিএমপিতে মাদকের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোনো পু্লিশ সদস্য আমার দায়িত্ব পালনকালে থাকতে পারবে না, আমি তাদের পু্লিশ সদস্য বলে গণ্য করবো না

বুধবার (১৩ জুন) দুপুরে পু্লিশ লাইন্সের মাল্টিপারপাস শেডে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মাহাবুবর রহমান মঙ্গলবার (১২ জুন) সিএমপি কমিশনার হিসেবে যোগদান করেন।

মাহাবুবর রহমান বলেন, আমি স্বীকার করছি-অপরাধ নিয়ন্ত্রণে যারা কাজ করেন তাদের কেউ কেউ অপরাধে জড়িত থাকে। কিন্তু তাদের কোনো ছাড় নেই।

তিনি বলেন, ‘আমার কমিটমেন্ট হলো- যারা অপরাধীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখে তাদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলে তাদেরকে পুলিশ হিসেবে গণ্য করবো না। তাদেরকে ক্রিমিনাল হিসেবেই চিহ্নিত করবো। সে অনুযায়ী বিভাগীয় ব্যবস্থা নিব। পুলিশ পরিচয়ে কেউ মাফ পাবেনা।’

পুলিশের বিরুদ্ধে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগের বিষয়ে বলেন, মাদকের সাথে জড়িত বা মাদকের প্রতি বিন্দুমাত্র সহানুভুতিশীল কেউ আমার আমলে সিএমপিতে কাজ করতে পারবে না।

মাহাবুবর রহমান বলেন, ‘আমি বদলীসূত্রে চট্টগ্রামে যোগদান করেছি। আপনাদের সকলের সহযোগিতা কামনা করছি। ঢাকার পরেই চট্টগ্রামের স্থান। এটার গুরুত্ব কখনো কখনো ডাকার চেয়ে বেশি। আমি মনে করি এখানে সব সচেতন নাগরিকের বসবাস। আমরা এখানে যে পুলিশিং করতে চাই, সে পুলিশিংয়ের মাধ্যমে জনগণের মন জয় করতে চাই। আমাদের উদ্দেশ্য, ভিশন এবং মিশন আপনারা সবাই জানেন। আমরা এ শহরকে বাসযোগ্য করতে চাই। সুনাগরিকের জন্য যতটুকু ফ্যাসিলিটি দরকার পুলিশের পক্ষ থেকে সেটুকু কার্যকর করার চেষ্টা করতে চাই। আমরা বিশ্বাস করি আপনাদের সহযোগিতা পেলে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ আগের মতো কতকক্ষেত্রে আগের চেয়ে বেশি স্বাচ্ছ্যন্দভাবে নগরবাসী যাতায়াত এবং অন্যান্য সুবিধা গ্রহণ করতে পারে।’

ব্যস্ত সড়কগুলোতে রিকশার কারণে যানজটের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে সিএমপি কমিশনার বলেন, চট্টগ্রামের প্রধান সড়কগুলোতে যদি রিকশা না চলতো আপনাদের চেয়ে আমি বেশি খুশি হতাম। আপনারা জানেন রিকশা চলাচলের নিয়ন্ত্রণ আমাদের আওতার বাইরে। রিকশা নিয়ন্ত্রণ করা দরকার। তবে নগরবাসীর চাহিদারও একটা ব্যাপার আছে। চেষ্টা করবো সব রাস্তা না হলেও অন্তত কিছু রাস্তায় রিকশা নিয়ন্ত্রণ করা যায় কি না।

চাঞ্চল্যকর মামলার (মিতু, তাসফিয়া হত্যা মামলা) বিষয়ে সিএমপি কমিশনার বলেন, সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছি। আমি তাদের নিয়ে বসবো।

তাসফিয়া হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা তাসফিয়ার ময়নাতদন্ত রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছি।

সভায় সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন) মাসুদ-উল-হাসান, অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম, অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) কুসুম দেওয়ানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪৫ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০১৮
এসকে/টিসি
 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মাদক
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db