ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ আগস্ট ২০২২, ১০ মহররম ১৪৪৪

ক্রিকেট

এই হারের কোনো অজুহাত দেওয়া যাবে না: মুমিনুল

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৮, ২০২১
এই হারের কোনো অজুহাত দেওয়া যাবে না: মুমিনুল ম্যাচ শেষে মুমিনুল। ছবি: শোয়েব মিথুন

পাকিস্তানের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষটিতে এক ইনিংস ও ৮ রানের লজ্জার পরাজয় বরণ করেছে বাংলাদেশ। ফলোঅনে পড়া স্বাগতিকরা টেস্টের পঞ্চম দিনে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২০৫ রানে অলআউট হয়।

বুধবার (০৮ ডিসেম্বর) মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টেস্টের শেষ দিনে আর মাত্র ৫.২ ওভার উইকেট থাকতে পারলেই ম্যাচটি ড্র করা যেত।

অথচ বৃষ্টি ও বাজে আবহাওয়া কারণে প্রায় আড়াই দিনই খেলা হয়নি। এই হারের ফলে দুই ম্যাচ সিরিজে হোয়াইটওয়াশও হলো বাংলাদেশ।

শেষ দিন বাংলাদেশের ৩ সিনিয়র ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান কিছুটা হাল ধরেন। তবে লজ্জার হার এড়াতে এই দৃঢ়তাও যথেষ্ট ছিল না।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসা বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক দলের এমন হারে হতাশা প্রকাশ করেন। যদিও তিনি নিজেই দুই ইনিংসে যথাক্রমে ১ ও ৭ রান করেন।

মুমিনুল বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় পুরো হতাশার। বিশেষ করে ১-৪ ব্যাটাররা, মানে এক কথাল বলবো খুবই বাজে দিন ছিল গতকাল। এক সেশনে ৭ উইকেট হারিয়েছি। এখানে অজুহাত দেওয়ার কিছু নেই। আমরা খুব বাজে ব্যাট করেছি। এরকম অবস্থায় ফিরে আসা কঠিন। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে মুশফিক-সাকিব ভাই ও লিটন-মিরাজ খুব ভালো চেষ্টা করেছে। ’ 

তিনি আরও বলেন, ‘প্রথম ইনিংসের কথা যদি বলেন, দেখেন আমার আউটটা সিলি মিসটেক ছিল, আমার হয়তো তাড়াহুড়ো করে রান নেওয়া উচিত হয়নি। কিন্তু সবাই মারতে গিয়ে আউট হয়নি। কারণ ওই উইকেটে মুশফিক ও লিটনকে সমর্থন করবো। কারণ তখন উইকেটে বল ঘুরছিল অনেক। ওই উইকেটে ওরা যে টার্গেটটা নিয়েছিল যেমন মুশফিক ভাই স্কয়ার অব দ্যা উইকেটে মেরেছিল দুর্ভাগ্যবশত সংযোগ হয় নাই। আসলে এসব উইকেটে বেশি রক্ষণাত্মক খেললে কঠিন হয়ে যায়। আমার মনে হয় উইকেটটা বেশি বাজে ছিল। ওই সময় এসব রান না নেয়াটা বেটার। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৮, ২০২১
এমএমএস 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa