ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

ক্রিকেট

‘যে ফটোশুটে গিয়েছিল, সে এখন কোমর নাড়াতে পারছে না’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২৪
‘যে ফটোশুটে গিয়েছিল, সে এখন কোমর নাড়াতে পারছে না’

আহসান মঞ্জিলে সকালে ভিড় সংবাদকর্মীদের। বিপিএলের ফাইনালে ওঠা দুই অধিনায়কের এখানেই আসার কথা ফটোশুট করতে।

কিন্তু শেষ অবধি এলেন না তাদের কেউ। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্রতিনিধি হিসেবে জাকের আলী অনিক ও ফরচুন বরিশালের প্রতিনিধি হয়ে আসেন মেহেদী হাসান মিরাজ।  

বরিশাল ও কুমিল্লা দুই দলই থাকছে বনানীর হোটেল শেরাটনে। এখান থেকে পুরান ঢাকার আহসান মঞ্জিলে যেতে বড় ধাক্কাই পোহাতে হবে যানজটের কারণে। এ কারণেই কুমিল্লার অধিনায়ক লিটন দাস ফটোশুটে যাননি বলে জানিয়েছেন কুমিল্লার হেড কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।  

বরাবরই বিপিএল আয়োজন নিয়ে নানা সমালোচনা হয়। এবার সেসব কমই হয়েছে। এখন ফাইনালের আগে একটি ঐতিহাসিক স্থাপনায় ফটোশুটের আয়োজনে গেলেন না ফাইনালের দুই অধিনায়ক। তাতে কি বিসিবির সঙ্গে একটু ‘অবিচার’ই করা হলো?

কুমিল্লার কোচ বলেন, ‘ইনজাস্টিস হয়েছে কি না আমি জানি না। কিন্তু...কালকে আমার ফাইনাল খেলা। এখন আমার অধিনায়ককে ঘুম থেকে উঠিয়ে নিয়ে যাবেন আড়াই ঘণ্টা জার্নি করে, আবার সে আড়াই ঘণ্টা-তিন ঘণ্টা জার্নি করে এখানে আসবে। তার তো ট্রফি দেখার চেয়ে ট্রফিটা নেওয়ার জন্য প্রস্তুতিটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ঠিক না?’

‘আমার মনে হয় যে একটা প্রোপার জায়গায় নিতো, কাছে নিতো, এটা হলে আমার মনে হয় যে দুই অধিনায়কই যেতো। এটা এমন একটা জায়গায় দিয়েছে...সেখানে যে গেছে, সে এখন কোমর নাড়াতে পারতেছে না। আমার মনে হয় একটা প্রোপার জায়গায় নিলে, কাছে নিলে দুই অধিনায়কই যেতো। ’

তাদের পক্ষ থেকে স্থান বা সময় কি বদলানোর কথা বলা হয়েছিল? এমন প্রশ্নের উত্তরে সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমরা তো কিছু জানি না। আমরা হঠাৎ করে মেইল পাই সবসময়। ’

এর আগে চারবার বিপিএলের শিরোপা জিতেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ফ্র্যাঞ্চাইজিটি এবার পেয়েছে নতুন অধিনায়কও। লিটন দাসের নেতৃত্বে আরও একবার ফাইনালে উঠেছে তারা। পুরো আসরে তার অধিনায়কত্ব কেমন দেখেছেন?

সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমি খুবই ইম্প্রেসড তার অধিনায়কত্বে। তার ক্রিকেট সেন্স নিয়ে অনেক আগেও কথা বলেছি যে তার ক্রিকেট সেন্স অনেক ভালো। এবং আরেকটু ঠান্ডা মাথার হলে আরেকটু ভালো হয় এটা তার ভবিষ্যতের জন্য। ’

‘আমার মনে হয় যে তার খেলোয়াড়দের সামলানো থেকে শুরু করে, অনুশীলন বলেন, ক্রিকেট নিয়ে চিন্তা ভাবনা বলেন; সেটা একটা অধিনায়কের যে গুণাবলী হওয়া দরকার, সেগুলো সবই আছে। কিন্তু যেহেতু নতুন, প্রথম প্রথম আমিও যখন নতুন ছিলাম; আমারও অনেক উত্তেজনা চলে আসতো অনেক কিছুতে। এটা করতে করতে একটা সময় ঠিক হয়ে যাবে। আমার মনে হয় যে ভবিষ্যতে সে আরও ভালো করবে। ’

বাংলাদেশ সময় : ১৭০১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২৪
এমএইচবি/এএইচএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad