ঢাকা, বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৮ মহররম ১৪৪৪

আদালত

১০ বছর পর সর্বনিম্ন পর্যায়ে আপিলের বিচারপতি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩১ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০১৭
১০ বছর পর সর্বনিম্ন পর্যায়ে আপিলের বিচারপতি

ঢাকা: এক বিচারপতির মৃত্যু ও দুই বিচারপতির অবসরের পর ১০ বছরের মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতির সংখ্যা সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছেছে।

আপিল বিভাগে ২০০৭ সালে ছয়জন বিচারপতি ছিলেন। বর্তমানেও এসে ঠেকেছে ৬ জনে।

এর আগে সর্বশেষ ২০০২ সালে আপিল বিভাগে বিচারপতি ছিলেন ৫ জন। আর ১৯৭২ সালের পর থেকে সর্বোচ্চ ১১ জন বিচারপতি ছিলেন ২০০৯ সালে।

২০০৭ সালে আপিল বিভাগে মামলা বিচারাধীন ছিলো সাত হাজার ৭১টি। সেখানে এ বছরের শুরুতে বিচারাধীন মামলা রয়েছে ১৩ হাজার ৬৭২টি।

নতুন করে আরও বিচারপতি নিয়োগের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের উচ্চ পর্যায়ের সূত্র বলছেন, গত বছরের মাঝামাঝি সময় আপিলের বিচারপতি নিয়োগে কিছু নাম নির্বাহী বিভাগে পাঠানো হয়েছে। এরপর আর কোনো অগ্রগতি নেই। নতুন করে নাম পাঠানোরও তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই।

সর্বশেষ গত বছরের ০৭ ফেব্রুয়ারি তিন বিচারপতিকে  আপিল বিভাগে নিয়োগ দেওয়া হয়। তারা শপথ নেন ০৮ ফেব্রুয়ারি। বিচারপতিরা হলেন- বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার, বিচারপতি মো. নিজামুল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ বজলুর রহমান।   

চলতি বছরের শুরুতে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে মোট বিচারপতি ছিলেন নয়জন। তাদের মধ্যে গত ০১ জানুয়ারি বিচারপতি মোহাম্মদ বজলুর রহমান চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। বিচারপতি মো. নিজামুল হক গত ১৪ মার্চ ও বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা গত ০৭ জুলাই অবসরে যান।

বাকি ছয়জনের মধ্যে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের এক নম্বর বেঞ্চে তিনজন এবং বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিঞার নেতৃত্বে দুই নম্বর বেঞ্চে তিনজন বিচারকার্য পরিচালনা করছেন।

বাংলাদেশ সময়: ০১২৯ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০১৭
ইএস/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa