ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৮, ২৯ অক্টোবর ২০২১, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আরও

প্রধানমন্ত্রী এ চিঠি পাবে কিনা জানি না

সাংবাদিকরা সবাই মিলে এখন আন্দোলনে নেমেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘গণমাধ্যম এখন মুক্ত-স্বাধীন। তারা স্বাধীনভাবে কাজ

রাজনৈতিক চর্চায় ফিরে আসুন

দেশের বর্তমান রাজনীতির কথা উঠলেই গা শির শির করে ওঠে। ভয়ে আঁতকে উঠি। বর্তমানে দেশের রাজনীতির অবস্থা দেখে শ্রদ্ধাবোধ উবে যাচ্ছে।

চলুন, আমরা সবাই রাস্তায় ঘুমাই!

একই সঙ্গে লজ্জা এবং ঘৃণা নিয়ে লিখতে হচ্ছে। যে বক্তব্যকে কেন্দ্র করে এই লেখাটা, সেটার জন্য লজ্জা এই কারণে যে, যিনি এই কথাটি বলেছেন,

একুশে পদক, মনসুর খান ও দুটি কথা

যদি বলা যায় পদকে কি আসে যায়? তাহলে কথাটা খুব একটা মিথ্যে বলা হবে না। একজন মানুষ বেঁচে থাকেন তার কাজে আর সৃষ্টিতে। ১৯৬৪ সালে ফরাসি

সাংবাদিকদের বেডরুম পাহারা দিতে কেউ বলেছে কী?

সাগরের এক ভাগ্নে দিগন্ত আমার ফেসবুক ফ্রেন্ড। তার নাম্বারটা কাছে ছিল। কিন্তু এতদিন কেন যেন ফোন করার সাহস করিনি। এর পরিবারটির সঙ্গে

জুতো মেরে গরু দান

স্কুলে থাকতে বছরের পর বছর Circumstances কে পড়তাম কির-কুমেস-টেন্সেস। বেখেয়ালেই ভুল করেছি। ভুল ধরা পড়ল অষ্টম শ্রেনীতে। স্যার শব্দটির উচ্চারণ

স্টপ হিটিং দ্য বুশ

ব্যবস্হাপকদের পেশাগত দক্ষতা ও সাফল্য অধীনস্তদের দিয়ে কাজ আদায়ে। সুষ্ঠু, কার্যকর ও ইতিবাচক পরিকল্পনা প্রণয়নে। নিজে করার চেয়ে

কেউ সাংবাদিক হত্যার বিচার করেনি

ঢাকা : সাংবাদিকরা হল জাতির দর্পণ। তাদের দায়িত্ব  জাতির ভালো-মন্দ শাসকদের কাছে তুলে ধরবেন। এই সাংবাদিকরা সব সময় ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে

মেঘের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা

ঢাকা : সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়েছি অফিসে ঢুকে ইন্টারনেটে বাংলানিউজ২৪.কম-এ চোখ বুলাতে গিয়ে। কয়েক মিনিট লেগেছে

‘তালগাছটি কিন্তু তাহার!’

দেশের এনজিও সংগঠন তথা বেসরকারি উন্নয়ন কর্মী-প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে বিএনপি তথা চারদলীয় জোটের সংগঠনগুলোর সম্পর্ক আমরা জানি।বিগত

প্রিয় টুনটুনি, ক্ষমা করিস!

প্রিয় টুনটুনিকে নিয়ে কিছু একট লিখবো ভাবছি আট-নয় দিন ধরে, কিন্তু লিখতে গেলেই হাতটা কেন যেন অবশ হয়ে আসছে। অথচ অন্য কোন লেখা লিখতে আমার

বিচারের আশা কি তাহলে ছেড়েই দিতে হবে!

গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের নিজ বাসায় নির্মমভাবে খুন হন তরুণ সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি। ছিনতাই, হত্যা, গুম যখন

উচ্চ আদালতে বাংলা ভাষা ও বাস্তবতা

দেশের উচ্চ আদালতে মামলা করা একটি যুদ্ধের মত বিষয় মনে হতে পারে যদি আপনি স্বল্প শিক্ষিত হোন বা ইংরেজি ভাষার উপর দক্ষতা না থাকে

মধ্যরাতের অশ্বারোহীর জন্য একটি এলিজি

মৃত্যুর কী মড়ক লেগেছে দেশে? একের পর এক প্রিয় মানুষগুলো মারা যাচ্ছেন! প্রিয় ফয়েজ ভাই’র মৃত্যু সংবাদ বাংলানিউজের পাতায় দেখেই মন

দুধ কলা দিয়ে কাল সাপ পোষার চেষ্টা শেখ হাসিনার!

কলকাতা: তিস্তার জল বণ্টন চুক্তির বিরোধিতা, ফারাক্কা দিয়ে বেশি জল পাচ্ছে বাংলাদেশে বলে দাবি, সর্বশেষ বেনাপোল সীমান্তে নো ম্যানস

বিদেশে বাঙালির শহীদ মিনার

বাংলা ভাষার কোনো সূর্যাস্ত নেই। তাই বাংলা ভাষার আলোচিত কিরণ এখন সারা পৃথিবীতেই ছড়িয়ে পড়েছে।১৯৫২ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় যে

মোটা লাভের টোপ, নাকি বাতকা বাত?

জীবনের দীর্ঘ একটা সময় কেটেছে মেসে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্যে মফস্বলের আমি এসে দ্বারস্হ হয়েছিলাম সালু ভাইর কমলাপুর বাজার

প্রধানমন্ত্রীর ঘাড়ে হত্যা মামলার তদন্তও!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে এখন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আছে। তাকে এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাজকর্মও দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া

রুনি-সাগরকে নিয়ে একটি নিবন্ধ ও সাংবাদিকতার দৈন্য

এই লেখাটি কিভাবে লিখবো তা নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে ভেবেছি। ভালো কোনো কাজ হলে প্রশংসার ভাষা অনেক। কিন্তু কাজটি যখন নোংরামির পর্যায়ে পড়ে

আর কোনো প্রহসন চাই না

বড় বেশি করে মনে পড়ছে, ২০০৫ সালের ১৭ নভেম্বর খুনের শিকার হওয়া ফরিদপুরের সাংবাদিক গৌতম দাসের কথা। সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও

Alexa