ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিশ্ব ইজতেমা

ইজতেমা শুরুর জন্য প্রস্তুত মুসুল্লিরা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩১২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০১৮
ইজতেমা শুরুর জন্য প্রস্তুত মুসুল্লিরা ইজতেমা শুরুর চূড়ান্ত প্রস্তুতি। ছবি: খুররম জামান

ইজতেমা ময়দান থেকে: শুক্রবার বাদ ফজর শুরু হতে যাচ্ছে ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব । মধ্যরাতের পর থেকেই টঙ্গীর তুরাগ তীরের ইজতেমা ময়দানে বাংলাদেশ ও বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা মুসুল্লিরা চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন। ফজরের নামাজের পরই বয়ান দিয়ে শুরু হবে এ বছরের ইজতেমা।

এবারের বিশ্ব ইজতেমায় দুই ধাপে অংশ নেবেন দেশের ৩২ জেলার মুসল্লি। তবে প্রথম ধাপে অংশ নিচ্ছেন বিদেশি মুসল্লিসহ দেশের ১৬ জেলার মুসল্লি।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) শুরু হতে যাওয়া প্রথম ধাপ আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে রোববার (১৪ জানুয়ারি)। চার দিন বিরতির পর একইভাবে ১৯ জানুয়ারি শুক্রবার শুরু হবে দ্বিতীয় ধাপ। আখেরি মোনাজাতে ২১ জানুয়ারি শেষ হবে ২০১৮ সালের বিশ্ব ইজতেমা।

আগতদের প্রচণ্ড ভিড় এড়াতে এবং ইজতেমাকে সুষ্ঠু ও সুশঙ্খল করতে ২০১১ সাল থেকে দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বিশ্ব ইজতেমা। এরই ধরাবাহিকতায় শুরু হয় অঞ্চলভিত্তিক জেলা ইজতেমা।

এ বছর যে ৩২টি জেলা বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণ করেছে আগামী বছর(২০১৮) তারা অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকবেন।
বিশ্ব ইজতেমায় প্রতি বছর প্রায় ৩০ লক্ষ ধর্মপ্রাণ মানুষের সমাগম ঘটে। আখেরি মোনাজাতে এ সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণে পরিণত হয়।

ভোরের আগে ইজতেমাস্থলের দৃশ্য।  ছবি: খুররম জামানআগতরা এখান থেকে হেদায়েতি বয়ান শুনে দাওয়াতে দ্বীনের কাজে বিশ্বব্যাপী দাওয়াত পৌঁছে দিতে জামাত নিয়ে বেরিয়ে পড়েন।

 

ভোলা থেকে এবার ইজতেমায় এসেছেন আব্দুর রব (৬৫)। তিনি জানালেন ২০ বছর ধরে ইজতেমায় আসছেন। নিজের জন্য দোয়া করা ছাড়াও বাংলাদেশের শান্তি কামনায় প্রার্থনা করবেন।

বললেন, মুসলিম সমাজ যেন সারা বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে পারে সেই দোয়াই করব।

দিল্লির নাজিমুদ্দিন মারকাজের বর্তমান মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধালভি ঢাকায় অবস্থান করলেও এবারের ইজতেমায় যাবেন না, বয়ান দেবেন না।  সে সম্পর্কে জানতে চাইল কেরাণীগঞ্জ থেকে আগত সেচ্ছাসেবী মোস্তফা জামান বলেন, এটি সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করব না। কারণ এটি আলেমদের বিবেচ্য বিষয়।

তবে আমি বলতে চাই, ৩০ লাখ মুসল্লির এত বড় জমায়েত দেখে ইসলামের শত্রুরা চিন্তিত হয়ে পড়েছে। কীভাবে সুশৃঙ্খল হয়ে একটি শক্তি একতাবদ্ধ হচ্ছে এটিই তাদের চিন্তার বিষয়। তারা ষড়যন্ত্র করে এ ঐক্য নষ্ট করতে চাচ্ছে।

মাদারীপুর  থেকে ৯০ বছর বয়সী রফিকুল ইসলাম প্রথম ইজতেমায় এসেছেন।   জানালেন ইচ্ছা ছিল অনেক আগে এখানে আসার। কিন্তু নানা কারণে আসা হয়ে ওঠেনি। এবারে আসতে পেরে খুবই খুশী। আল্লাহ যেন মৃত্যুর পর আমায় বেহেস্ত নসিব করে সেই দোয়াই চাইব।

২০১৮ সালের বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবেন যে ৩২ জেলার মুসল্লিরা
দুই ধাপ মিলিয়ে যে ৩২ জেলার মুসুল্লিরা এবার অংশ নিচ্ছেন, সেই জেলাগুলো হচ্ছে: ঢাকা, শেরপুর, নারায়ণগঞ্জ, নীলফামারী, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, গাইবান্ধা, লক্ষীপুর, সিলেট, চট্টগ্রাম, নড়াইল, মাদারীপুর, ভোলা, মাগুরা, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি, পঞ্চগড়, ঝিনাইদহ, জামালপুর, ফরিদপুর, নেত্রকোনা, নরসিংদী, কুমিল্লা, কুড়িগ্রাম, রাজশাহী, ফেনী, ঠাকুরগাঁও, সুনামগঞ্জ, বগুড়া,  খুলনা, চুয়াডাঙ্গা ও পিরোজপুর।
বাংলাদেশ সময়:০৫০০ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০১৮ / আপডেট ০৭০৩ ঘণ্টা
কেজেড/জেএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa