ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

বিশ্ব ইজতেমা

আখেরি মোনাজাতের দিনে ৬ পয়েন্টে ডাইভারশন

শেখ জাহাঙ্গীর আলম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৪, ২০১৭
আখেরি মোনাজাতের দিনে ৬ পয়েন্টে ডাইভারশন বিশ্ব ইজতেমার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য ওয়াচ টাওয়ার, ছবি: সুমন শেখ

বিশ্ব ইজতেমা ময়দান থেকে: টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতের দিনে রাস্তায় স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে লাখো মুসল্লির যাতে কোনো সমস্যা না হয়, সেজন্য কাজ করছে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগ ও গাজীপুর জেলা ট্রাফিক পুলিশের সমন্বয় ইজতেমার ময়দানের চারপাশে রাস্তায় যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন পুলিশ সদস্যরা।

ডিএমপি ট্রাফিক (উত্তর) বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) প্রবীর কুমার রায় বাংলানিউজকে বলেন, বিশ্ব ইজতেমার প্রথমপর্বের আখেরি মোনাজাতকে কেন্দ্র করে রোববার (১৫ জানুয়ারি) ভোর ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মহাখালী থেকে আব্দুল্লাহপুর পর্যন্ত ছয়টি পয়েন্টে থাকবে রোড ডাইভারশন।

এসবের মধ্যে রয়েছে-মহাখালী ক্রসিং, হোটেল রেডিসন গ্যাপ, প্রগতি সরণি, কুড়িল ফ্লাইওভার লুপ-২, ধউরব্রিজ ক্রসিং ও ১৮নং সেক্টরের প্রবেশ মুখ।

তিনি বলেন, মুসল্লিদের চলাচলে যাতে কোনো প্রকার সমস্যা না হয় এবং তারা যাতে নিরাপদে হেঁটে যাতায়াত করতে পারেন সেজন্য আমরা কাজ করছি।

রাস্তায় যানবাহনের চাপ কমাতে উত্তর ট্রাফিক বিভাগের মোট ১৭শ’ ট্রাফিক ফোর্স কাজ করছে বলেও জানান তিনি।  

প্রবীর কুমার রায় বলেন, রোববার বিমানের অপারেশন্স ও বিমান ক্রু বহনকারী যানবাহন, ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া সব ধরনের যাবাহনের চালকরা বিমানবন্দর সড়ক পরিহার করে বিকল্প হিসেবে মহাখালী, বিজয় সরণি হয়ে মিরপুর-গাবতলী সড়ক ব্যবহার করার জন্য বলা হয়েছে।

শনিবার (১৪ জানুয়ারি) সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, আব্দুল্লাহপুর থেকে কামারপাড়া স্লুইচ গেট পর্যন্ত রাস্তাটি রাখা হয়েছে যানবাহনমুক্ত। ময়দানে আগত মুসল্লিরা যাতে নিরবচ্ছিন্ন ও সুন্দরভাবে চলাচল করতে পারেন। এদিকে, ঢাকা থেকে আসা যাবহানগুলোকে আব্দুল্লাহপুর থেকে ইউটার্ন নিয়ে আবার ঢাকামুখী পাঠানো হচ্ছে। বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে আব্দুল্লাহপুরে পুলিশ বক্সের পাশে একটি ট্রাফিক ওয়াচ টাওয়ার স্থাপন করেছে উত্তর ট্রাফিক বিভাগ।

যানবাহন নিয়ন্ত্রণ কাজে ব্যস্ত ট্রাফিক পুলিশ, ছবি: সুমন শেখ টঙ্গী রেলস্টেশন রোড ক্রসিং থেকে ঢাকামুখী যানবাহনের চাপ থাকলেও ছোট-ছোট সিগন্যালের মাধ্যমে তা নিরসন করা হচ্ছে। তবে স্টেশন রোড থেকে কামারপাড়া যাওয়ার রোডে কোনো যানবাহন প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ইজতেমার ময়দানে আগত মুসল্লি বহনকারী যানবাহনগুলোর জন্য ময়দানের পাশের সাতটি বিভাগভিত্তিক পার্কিং ব্যবস্থা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ময়দানের চারপাশের রাস্তাগুলোতে যানবাহন চলাচলে কিছু ডাইভারশনও তৈরি করা হয়েছে।

নির্ধারিত স্থানে মুসল্লিবাহী যানবাহন পার্কিংয়ের সময় অবশ্যই ওইসব গাড়িচালক ও হেলপারকে নিজ-নিজ গাড়িতে অবস্থান করার জন্য বলা হয়েছে। কোনো বিশেষ প্রয়োজনে তাৎক্ষণিকভাবে মালিকের সঙ্গে চালক যাতে যোগাযোগ করতে পারে সেজন্য উভয়ের মোবাইল ফোন নম্বর নিয়ে রাখার বিষয়েও রয়েছে ট্রাফিক পুলিশের নির্দেশনা।

গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন-অর-রশিদ বাংলানিউজকে বলেন, ইজতেমা ময়দানের চারপাশের রাস্তায় যানজট নিরসনের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ট্রাফিক পুলিশ কাজ করছে। কোথাও যাতে যানবাহনের জটলা সৃষ্টি না হয় সে বিষেয় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা যথেষ্ট তৎপর রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, রোববার (১৫ জানুয়ারি) বেলা ১২টার মধ্যে আখেরি মোনাজাত হওয়ার কথা রয়েছে।

** বিশ্ব ইজতেমা: বয়ান শুনে ধ্যানে মগ্ন মুসল্লিরা

‍বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৪, ২০১৭
এসজেএ/টিআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa