ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আগরতলা

ত্রিপুরা বিদ্যুৎ ভোক্তা অ্যাসোসিয়েশনের বিক্ষোভ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৬, ২০২১
ত্রিপুরা বিদ্যুৎ ভোক্তা অ্যাসোসিয়েশনের বিক্ষোভ

আগরতলা (ত্রিপুরা): ছয় দফা দাবিকে সামনে রেখে আগরতলার বনমালীপুর এলাকার ত্রিপুরা বিদ্যুৎ নিগমের প্রধান কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) ত্রিপুরা বিদ্যুৎ ভোক্তা অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীরা তাদের পরিবারের ছোট ছোট সদস্যদের নিয়ে এসেছিলেন।

বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালীন সময় ত্রিপুরা বিদ্যুৎ ভোক্তা অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র আশিস সরকার সংবাদমাধ্যমকে জানান, বর্তমানে ভারত সরকার জনবিরোধী বিদ্যুৎ আইন সংশোধনী বিল ২০২১ পার্লামেন্টে পাশ করিয়ে আইনে পরিণত করতে চলেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন, বণ্টন ও পরিবহন এ তিন ভাগে ভাগ করে একচেটিয়া পুঁজিপতিদের অধিক মুনাফা অর্জন করার ক্ষেত্রে পরিণত করতে বিদ্যুৎকে সম্পূর্ণরূপে বেসরকারীকরণের উদ্দেশ্যেই এ আইন। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার বিদ্যুতের ওপর থেকে ক্রশ-সাবসিডি তুলে দিয়ে বিদ্যুৎ আরও মহার্ঘ করে তুলবে।

এ পরিস্থিতিতে ১০ থেকে ২৫ নভেম্বর বিদ্যুৎ গ্রাহকগণ দেশব্যাপী ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদ পক্ষ পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। তারই অংশ হিসেবে ১৬ নভেম্বর ত্রিপুরা বিদ্যুৎ নিগমের প্রধান দফতরের সামনে গ্রাহকদের বিক্ষোভ সমাবেশ সংগঠিত হয়।

ছয় দফা দাবি গুলি হচ্ছে- বিদ্যুৎ আইন ২০০৩ এবং তার সংশোধনী বিল-২০২১ বাতিল করতে হবে। বিদ্যুতকে পণ্য নয়, পরিষেবা হিসাবে বিবেচনা করতে হবে। প্রি-পেইড মিটার লাগানো চলবে না। তথাকথিত ক্রস-সাবসিডি তুলে দেওয়ার নামে বিদ্যুতের মাশুল বাড়ানো চলবে না। কৃষিতে বিনামূল্যে, বাড়ি-ঘরে ব্যবহারে ২০০ ইউনিট পর্যন্ত বিনামূল্যে এবং ক্ষুদ্রশিল্প ও ক্ষুদ্র ব্যবসায় এক টাকা ইউনিট দামে বিদ্যুৎ দিতে হবে। অপ্রচলিত বিদ্যুৎ উৎপাদন ও ব্যবহারে সাধারণ গ্রাহকদের ক্ষেত্রে কোনো রকম বিধিনিষেধ আরোপ করা চলবে না।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০২১
এসসিএন/জেডএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa