ঢাকা, রবিবার, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আগরতলা

পর্যটক টানতে ডুম্বুর হ্রদে চালু হলো ওয়াটার স্কুটার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০
পর্যটক টানতে ডুম্বুর হ্রদে চালু হলো ওয়াটার স্কুটার ওয়াটার স্কুটারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর মন্ত্রী নিজে হ্রদের পানিতে স্কুটার চালিয়ে ঘোরেন।

আগরতলা (ত্রিপুরা): ত্রিপুরা রাজ্যের অন্যতম আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র গোমতী জেলার ডুম্বুর হ্রদ। ডুম্বুরকে দেশ-বিদেশের পর্যটকদের সামনে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে এ হ্রদে ত্রিপুরা সরকারের পর্যটন দপ্তরের তরফে ওয়াটার স্কুটার চালু করা হয়েছে।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ত্রিপুরা সরকারের পর্যটন দপ্তরের মন্ত্রী প্রনজিৎ সিংহ রায় আনুষ্ঠানিক ভাবে এ ওয়াটার স্কুটারের যাত্রা শুরু করান।

ডুম্বুর হ্রদের মন্দিরঘাট এলাকায় দাঁড়িয়ে ফিতা কেটে ওয়াটার স্কুটারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর মন্ত্রী নিজে হ্রদের পানিতে স্কুটার চালিয়ে ঘোরেন। পাশাপাশি এদিন মন্দির ঘাট ভাসমান প্লাস্টিকের একটি ফ্লোটিং জেটিরও উদ্বোধন করেন তিনি।

মন্ত্রী প্রনজিৎ সিংহ রায় বলেন, ‘বর্তমান সরকার ত্রিপুরা রাজ্যে আসা পর্যটকদের সংখ্যা আরও বাড়ানোর জন্য নানা কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে পর্যটকের সমাগম কিছুটা কম হলেও আগামী দিনে ত্রিপুরা রাজ্যে ব্যাপক হারে পর্যটক আসবে। পর্যটকদের সুবিধা দেওয়ার জন্য সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছে। এর অন্যতম একটি হলো ওয়াটার স্কুটার। আগে পানি বেশি বা কম হলে মন্দির ঘাটে পর্যটকদের চলাফেরার অসুবিধা হতো। তাই পর্যটকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে ভাসমান জেটি স্থাপন করা হয়েছে। ’

রাজ্যের অন্য পর্যটন স্থানগুলো আরও উন্নত করা হয়েছে এবং বেশ কিছু পর্যটন স্থলে উন্নয়নের কাজ চলছে বলেও জানান তিনি।

ভাসমান জেটি এবং ওয়াটার স্কুটারের জন্য খরচ হয়েছে প্রায় ৪৫ লাখ রুপি। এদিন অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক বুর্বা মোহন ত্রিপুরা, পর্যটন দপ্তরের সচিব কিরণ গিত্যেসহ পর্যটন দপ্তরের কর্মকর্তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০
এসসিএন/এফএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa