ঢাকা, শনিবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১

আগরতলা

কাগজের ঠোঙা নিয়ে কাজ করছে ত্রিপুরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯
কাগজের ঠোঙা নিয়ে কাজ করছে ত্রিপুরা

আগরতলা (ত্রিপুরা): প্লাস্টিকমুক্ত ভারত গড়তে কাগজের ঠোঙার প্রতি ক্রেতা-বিক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে কাজ শুরু করেছেন ত্রিপুরা সরকারের আইন ও শিক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী রতন লাল নাথ।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) পশ্চিম জেলার অন্তর্গত নিজ বিধানসভা মোহনপুরের বিভিন্ন সরকারি অফিসের কর্মচারীদের নিয়ে নানা রঙের কাগজের ঠোঙা তৈরি করেন তিনি।

এরপর স্থানীয় এলাকার বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীদের হাতে কাগজের তৈরি এসব ঠোঙা তুলে দিয়ে আহ্বান জানান, তারা যেন ক্রেতাদেরকে এই সব কাগজের ঠোঙায় করে পণ্য বিতরণ করেন এবং ক্রেতাদেরকেও কাগজের ঠোঙা ব্যবহারের প্রতি আগ্রহী করে তোলেন।

একইসঙ্গে কোনো ক্রেতা প্লাস্টিকের ক্যারিং ব্যাগ চাইলে তারা যেন এর ক্ষতিকারক দিক সম্পর্কে ক্রেতাদের সচেতন করেন।

মন্ত্রী রতন লাল নাথ বাংলানিউজকে বলেন, ‘প্লাস্টিকমুক্ত’ ভারত গড়তে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার এই আহ্বানের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমি ও আমার বিধানসভা এলাকার মানুষ নিজেদের উদ্যোগে এই কাজ করছি। আমরা যখন বিনামূল্যে ব্যবসায়ীদের হাতে কাগজের তৈরি ঠোঙা তুলে দিয়েছি, তখন তারা খুশি মনে তা নিয়েছেন।

মোহনপুর এলাকার এক ব্যবসায়ী বাংলানিউজকে জানান, তারাও প্লাস্টিকের দূষণ সম্পর্কে অবগত। তবে সাধারণ ক্রেতাদের দাবি মেনে প্লাস্টিকের ক্যারিং ব্যাগও রাখতে হয়।

অন্যদিকে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত নারী ক্রেতারা বাংলানিউজকে জানান, প্লাস্টিকের ক্যারিং ব্যাগ বন্ধ করে যদি আবার পুরোদমে কাগজের ঠোঙায় করে ফল-সবজি বিক্রি করা হয়, তবে গ্রামাঞ্চলের নারীরা আর্থিকভাবে লাভবান হবেন। সরকার যদি আগামী দিনে আরও বড় পরিসরে এমন কর্মশালার আয়োজন করে, তবে রাজ্যের একটি বড় অংশের মানুষ আর্থিক সুবিধা পাবেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯
এসসিএন/এসএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa