ঢাকা, রবিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৭ সফর ১৪৪৪

পর্যটন

সিটি ট্যুরে ঢাকার দর্শনীয় স্থান দেখার সুযোগ 

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৬ ঘণ্টা, আগস্ট ৬, ২০২২
সিটি ট্যুরে ঢাকার দর্শনীয় স্থান দেখার সুযোগ 

ঢাকা: প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের উদ্যোগে রি-ডিসকভার ঢাকা শিরোনামে সিটি ট্যুর প্যাকেজের উদ্বোধন করলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলের বলরুমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রতিমন্ত্রী।

এই সিটি ট্যুরে দেশি-বিদেশি সকল পর্যটক অংশগ্রহণ করতে পারবেন। প্রথম দিন ১৫ জন বিদেশি পর্যটক নিয়ে একটি পর্যটকবাহী বাস এই ভ্রমণ শুরু করে।  

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাসভবন এই ট্যুরের প্রধান আকর্ষণ। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও ঐতিহ্য বহনকারী ঢাকার অন্যান্য দর্শনীয় স্থান যেমন - জাতীয় জাদুঘর, বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘর ও শহীদ মিনার এই ট্যুরের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

বাংলাদেশি পর্যটকদের টিকিটের জন্য জনপ্রতি ৪ হাজার ৫০০ টাকা এবং বিদেশি পর্যটকদের টিকিটের জন্য জনপ্রতি ৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। টিকিটের এই মূল্যের মধ্যেই বিভিন্ন ঐতিহাসিক এবং দর্শনীয় স্থান ভ্রমণের পাশাপাশি পর্যটকদের জন্য অনবোর্ড স্ন্যাক্সসহ দুপুরের অথবা রাতের খাবারের ব্যবস্থা রয়েছে।

সপ্তাহে দুই দিন- শুক্র ও শনিবার এই ট্যুরের আয়োজন থাকবে বলে জানিয়েছে হোটেল কর্তৃপক্ষ।  

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজকের এই ট্যুরের মাধ্যমে বিদেশি পর্যটকেরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ঢাকা শহরে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলনের স্মৃতি স্মারক এবং আমাদের ঐতিহাসিক স্থাপনাসমূহ সম্পর্কে জানতে পারবে।  

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প উন্নয়নের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাবেই।  
তিনি আরো বলেন, আমাদের যে রিসোর্স আছে,  যদি এটা সঠিকভাবে ব্র্যান্ডিং করতে পারি, মানুষকে জানাতে পারি তাহলে আমাদের দেশ নিয়ে সারা বিশ্বে আগ্রহ বাড়বে।  

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের পর্যটন শিল্পের সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য পর্যটন মহাপরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ প্রায় সমাপ্তির পথে। এ বছরের ডিসেম্বর মাসে এই মহাপরিকল্পনার কাজ সমাপ্ত হবে। পর্যটন মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী দেশের পর্যটন শিল্পের সামগ্রিক ও পরিকল্পিত উন্নয়নের কাজ করা হবে। বাংলাদেশের পর্যটনের উন্নয়ন নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যে স্বপ্ন ছিল তা  বাস্তবায়ন করা হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন বলেন, জাতির পিতা পর্যটনের ভিত্তি গড়ে দিয়ে গেছেন। আমার পর্যটন শিল্পের বিকাশের জন্য কাজ করছি। পর্যটনে মানুষের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক তৈরি হচ্ছে। ৪০০ বছরের পুরোনো ঢাকাকে আমরা তুলে ধরতে চাই।  

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের কিউরেটর ও সাবেক সচিব নজরুল ইসলাম খান, হোটেল ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. আমিনুর রহমান, বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম এম মোয়াজ্জেম হোসেন এবং হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও-এর ভারপ্রাপ্ত জেনারেল ম্যানেজার আসিফ আহমেদ।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫০ ঘণ্টা, আগস্ট ০৬, ২০২২
এমআইএইচ/এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa