ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

পর্যটন

৫ মাস পর চালু হলো বান্দরবানের পর্যটন কেন্দ্রগুলো

কৌশিক দাশ, ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৯ ঘণ্টা, আগস্ট ২১, ২০২০
৫ মাস পর চালু হলো বান্দরবানের পর্যটন কেন্দ্রগুলো সবুজ অরণ্যে ঘেরা সৌন্দর্যের অপরুপ জেলা বান্দরবান, ছবি: বাংলানিউজ

বান্দরবান: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে দীর্ঘ প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর বান্দরবানের সব পর্যটন কেন্দ্র ও হোটেল-মোটেল শুক্রবার (২১ আগস্ট) থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে।  

এদিকে সকালে পর্যটন কেন্দ্র ও হোটেল-মোটেল খুলে দেওয়ার পরপরই পর্যটকদের আগমন ঘটছে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে।

 হোটেলে প্রবেশের আগে হাত ধুয়ে নিতে হবে, ছবি: বাংলানিউজ

বান্দরবান জেলা প্রশাসন থেকে বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) এক গণবিজ্ঞপ্তি জারির মাধ্যমে বিভিন্ন শর্ত সাপেক্ষে জেলার সব পর্যটন কেন্দ্র ও হোটেল-মোটেল খোলার নির্দেশনা জারি করা হয়। এদিকে দীর্ঘদিন পর বান্দরবানের পর্যটনকেন্দ্রগুলো খুলে দেওয়ার পাশাপাশি হোটেল-মোটেল চালু হওয়ায় খুশি পর্যটন ব্যবসায়ীরা।  

ব্যবসায়ীরা জানান, নতুনভাবে হোটেল-মোটেল চালু হলে ব্যবসায়ীরা অনেকটাই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবেন এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সব কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

বান্দরবান সদরের হোটেল হিলভিউয়ের অ্যাকাউন্ট ম্যানেজার মো. তৌহিদ পারভেজ বাংলানিউজকে বলেন, আজ থেকে আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোটেল খুলেছি এবং আমরা প্রশাসনের বেধে দেওয়া নিয়ম মেনে হোটেলে অতিথিদের অবস্থান করতে দেব। হোটেলের প্রবেশমুখে আমরা বেসিন, ডিসইনফেকশন ট্রে, তাপমাত্রা পরিমাপের ব্যবস্থা রেখেছি। লবিসহ সব রুমে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করেছি। চেক-ইন করায় সময় বিদেশি পর্যটকদের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট যাচাই করার ব্যবস্থা করেছি। অভ্যর্থনা ডেস্কে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম যেমন: জীবাণুনাশক, ফেস মাস্ক, ফেস শিল্ড, চশমা, সুরক্ষামূলক অ্যাপ্রোন, লম্বা হাতার গাউন ইত্যাদি রাখার ব্যবস্থা করেছি।

বান্দরবান হোটেল হিলটনের জেনারেল ম্যানেজার মো. আক্কাস উদ্দিন সিদ্দিক বাংলানিউজকে বলেন, হোটেল পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার পাশাপাশি সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার চেষ্টা করব। পর্যটকদের সবাইকে সচেতন হতে হবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ ছিল বান্দরবানের সব পর্যটন কেন্দ্র ও হোটেল-মোটেল। এদিকে নতুনভাবে বিনোদন কেন্দ্র চালু ও হোটেল-মোটেল চালুর সংবাদে জেলায় আগত পর্যটকদের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে প্রশাসন।

টুরিস্ট পুলিশ, বান্দরবান জোনের ইনচার্জ মো. আমিনুল হক বাংলানিউজকে বলেন, আমরা টুরিস্ট পুলিশের পক্ষ থেকে বান্দরবানের সব পর্যটন কেন্দ্রে নিরাপত্তা বৃদ্ধি করেছি। এখন থেকে যারা বান্দরবানে বেড়াতে আসবেন, তাদের নিরাপত্তা রক্ষা ও তাদের ভ্রমণে সহায়তা করতে আমরা আরো বেশি সর্তকর্তা অবলম্বন করব।
 
বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. শামীম হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, বান্দরবানে পর্যটকদের ভ্রমণের জন্য আবার দ্বার খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে জেলায় আগত সব পর্যটকদের আরো সতর্ক থাকতে হবে। ‘নো মাক্স, নো এন্টি’ এ বিষয়টিকে আমরা প্রাধান্য দিয়ে কাজ করে যাব এবং সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করা ও সরকারি নিদের্শনার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান জানাই।  
 
সবুজ অরণ্যে ঘেরা সৌন্দর্যের অপরুপ জেলা বান্দরবান। যেখানে রয়েছে মেঘলা, নীলাচল, নীলগিরি, বৌদ্ধ জাদি, চিম্বুক, শুভ্রনীলা, থানচির রেমাক্রি, নাফাকুম, রুমার বগালেক, কেউক্রাডং, লামার মিরিঞ্জা, আলীকদমের আলীর সুড়ঙ্গসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পট। পর্যটন স্পটগুলো খুলে দেওয়ার পর স্পটগুলোতে বাড়বে পর্যটকের সংখ্যা, এমন প্রত্যাশা সংশ্লিষ্টদের।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০১ ঘণ্টা, আগস্ট ২১, ২০২০
এসআই


 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa