ঢাকা, শনিবার, ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০ সফর ১৪৪২

পর্যটন

সুনসান সাতছড়ি, সংশ্লিষ্টদের কাটছে অলস সময় 

বদরুল আলম, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৩৭ ঘণ্টা, আগস্ট ৮, ২০২০
সুনসান সাতছড়ি, সংশ্লিষ্টদের কাটছে অলস সময় 

হবিগঞ্জ: পশু-পাখির ডাক আর পর্যটকে প্রতিদিন মুখর থাকতো সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান। অথচ এখন জনমানব শূন্য জনপ্রিয় এই পর্যটন গন্তব্য।

আসছে না পর্যটক, অলস সময় পার করছেন উদ্যানের কর্মরতরা। দিনভর বসে অলস সময় কাটছে দোকান মালিকদেরও।
 
পশু-পাখির ডাক থাকলেও নেই আগের মতো ব্যস্ততা। সম্প্রতি সরেজমিনে গিয়ে এ চিত্রই দেখা যায় হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় অবস্থিত সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে।

আগে প্রতিদিন আড়াই থেকে পাঁচ হাজার পর্যটক আসতেন এই পর্যটনস্পটে। কিন্তু করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শুরুর পর থেকে গেলো পাঁচ মাস ধরে উদ্যানটি বন্ধ। ইতোমধ্যে সরকার ছয় লাখ টাকার উপরে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বাংলানিউজকে বলেন, স্বাভাবিক সময়ে প্রতিদিন তিন থেকে পাঁচ হাজার দর্শনার্থী এখানে আসতেন। বয়স্কদের টিকিট বিক্রি হতো ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২৫ টাকা। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শুরুর পর গেলো মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকেই এ পর্যটনস্পট বন্ধ রয়েছে। যে কারণে এক টাকাও রাজস্ব পায়নি সরকার।

তিনি আরও বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে সাতছড়িতে টিকিট বিক্রির মাধ্যমে সরকারের আয় হয় সাড়ে ১৩ লাখ টাকা। কিন্তু ২০১৯-২০ অর্থবছরের আট মাস চলে গেলেও আয় হয়েছে মাত্র ছয় লাখ টাকা। এ পর্যন্ত পাঁচ মাসে ছয় লাখেরও উপরে রাজস্ব হারিয়েছে সরকার।

উদ্যানের ভেতরে রয়েছে ট্রি অ্যাডভেঞ্চারের ব্যবস্থা। সেখান থেকেও আয় হতো অর্থ। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে এই আয়ও বন্ধ রয়েছে।  

আবুল কালাম আজাদ বলেন, উদ্যান বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী এবং আধিবাসীরাও।

বাংলাদেশ সময়: ০৭৩৬ ঘণ্টা, আগস্ট ০৮, ২০২০
এমআইএইচ/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa