ঢাকা, শনিবার, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ আগস্ট ২০২০, ২৪ জিলহজ ১৪৪১

পর্যটন

ভোলা সরকারি স্কুল মাঠ যেন ‘বিনোদন কেন্দ্র’

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০১৯ ঘণ্টা, জানুয়ারী ১২, ২০১৯
ভোলা সরকারি স্কুল মাঠ যেন ‘বিনোদন কেন্দ্র’

ভোলা: পড়ন্ত বিকেলে সূর্যের লাল আভায় ভরে উঠেছে আকাশের বুক। শীতের বিকেল সঙ্গে হালকা শীতল হাওয়ায় মনোরম হয়ে উঠেছে ভোলা সরকারি স্কুল মাঠের পরিবেশ। ছুটির দিন হওয়ায় নারী-পুরুষ আর শিশুদের আগমনে মুখরিত। কেউ হাঁটছে, কেউ জমিয়ে আড্ডা দিচ্ছে আবার কেউ সেলফি তোলায় ব্যস্ত। চলছে ভ্রাম্যমাণ হকারদের হরেক রকমের বিকিকিনি।

শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এমন চিত্র দেখা গেল ভোলা শহরের সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে।  

ঘুরতে আসা মানুষজনের আগমনে যেন এক ভিন্ন পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

দূর থেকে দেখেই মনে হয় যেন মিলনমেলা। যেন অনেকটা মিনি বিনোদন কেন্দ্র।

বিনোদনের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত ভোলা সরকারি বালক বিদ্যালয়ের মাঠে প্রতিদিন মানুষের সমাগম ঘটে। তবে শুক্রবারসহ সরকারি ছুটির দিনগুলোতে দর্শনার্থীদের ভিড় একটু বেশি হয়। শীত উপেক্ষা করে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসে বিভিন্ন বয়সের শত শত মানুষ।  

শিশুদের বেশকিছু খেলাধুলার রাইড থাকায় অভিভাবকরা তাদের ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের এখানে নিয়ে আসেন। এছাড়া মাঠের ভেতরের শহীদ মিনার ও ওয়াকয়েতে দেখা যায় বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষের আড্ডা-হাঁটাহাটি।  

এখানে ঘুরতে আসা কয়েকজন বাংলানিউজকে বলেন, বিনোদনের জন্য সরকারি স্কুল মাঠটি সবার পছন্দের তালিকায়। এখানে বড়দের অবসর সময় কাটানো আর ছোটদের খেলাধুলার ব্যবস্থা রয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, ভোলা পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনির ভোলা শহরকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে সরকারি স্কুল মাঠের মতো টাউন স্কুল মাঠ, পৌর চত্বরের পুকুরে বক ফোয়ারা, ইলিশা স্ট্যান্ডের ইলিশ ফোয়ারা, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের জলপ্রপাত, যুগীরঘোল ফোয়ারা ও জেলা পরিষদ চত্বরসহ মনোমুগ্ধকর বেশ কিছু স্থাপনা করেছেন। সেখানে বিকেল হলেই বিনোদনপ্রেমীদের ঢল নামে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০১৯
জিপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa