bangla news

বুড়িগোয়ালিনী-মুন্সিগঞ্জকে সংরক্ষিত এলাকা ঘোষণা করা উচিৎ

বাংলানিউজ টিম | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬-১২-২৪ ২:০৩:২৪ এএম
সাতক্ষীরা জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ

সাতক্ষীরা জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ

সুশীলনের টাইগার পয়েন্ট গেস্ট হাউস থেকে: সাতক্ষীরার শ্যামনগরের বুড়িগোয়ালিনী ও মুন্সিগঞ্জকে পর্যটন সংরক্ষিত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছেন সাতক্ষীরা জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ।

শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) সকালে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের মুন্সিগঞ্জে সুশীলনের টাইগার পয়েন্ট গেস্ট হাউসের রাজাপ্রতাপাদিত্য কনফারেন্স হলে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম আয়োজিত এক আলোচনায় তিনি এ দাবি জানান। বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরার পর্যটন বিষয়ে ‘বছরজুড়ে দেশ ঘুরে: সুন্দরবনে পর্যটন’ শীর্ষক এ বিশেষ আলোচনা শুরু হয় সকাল ১০টায়।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, সুন্দরবনের পর্যটনের জন্য নতুন করে কিছু করার দরকার নেই। সে নিজেই সাজানো। কক্সবাজার, পার্বত্য জেলা বা দেশের যেকোনো অঞ্চল থেকে সুন্দরবন অনেক সুন্দর এবং সমৃদ্ধ পর্যটন অঞ্চল।

পর্যটন বিকাশে পরিবেশকে টিকিয়ে রাখার ওপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, সুন্দরবন অঞ্চলের পর্যটন বিকাশ করতে গিয়ে কোনোভাবেই যেনো পরিবেশের ক্ষতি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সাতক্ষীরা থেকে সুন্দরবন ভ্রমণের সুবিধা বাড়ানোর দাবি জানিয়ে আবুল কালাম আজাদ বলেন, সাতক্ষীরা থেকে সুন্দরবনের যাওয়ার কোনো ভালো যানবাহন নেই। লঞ্চ ভাড়া করতে হয় খুলনা থেকে। এখানে অনেক ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে আসতে পারেন। প্রশাসনের পাশাপশি স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে এই অঞ্চলে পর্যটন শিল্পের চিত্র পাল্টে যাবে।

এজন্য বাংলানিউজের মতো সরকারসহ সবাইকে এগিয়ে আসতে এবং উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

প্রেসক্লাব সভাপতি বলেন, অন্য এলাকায় পর্যটনের জন্য যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় করতে হবে, এখানে তার দরকার নেই। শুধু উদ্যোগ ও প্রচারণা দরকার।

এই উদ্যোগে এগিয়ে আসায় বাংলানিউজকে সাতক্ষীরাবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

বাংলানিউজের এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত রয়েছেন বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড. অপরূপ চৌধুরী।
বাংলানিউজের ‘সুন্দরবনে পর্যটন’ শীর্ষক আলোচনা আগত অতিথিরা অতিথি হিসেবে উপস্থিত রয়েছেন- খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরেস্ট্রি অ্যান্ড উড টেকনোলজি বিভাগের প্রধান ড. মোহাম্মদ এনামুল কবীর, একই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. এস এম ফিরোজ, সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ ফারুক আহমেদ, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সুশীলনের প্রধান নির্বাহী মোস্তফা নূরুজ্জামান, শ্যামনগর আতরজান মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহি, সিকান্দার আবু জাফর ফাউন্ডেশনের পরিচালক সৈয়দ জুনায়েদ আকবর, সুশীলনের সভাপতি চন্দ্রিকা ব্যানার্জী, প্রিমিয়ার সিমেন্ট মিলস লিমিটেডের ম্যানেজার (এডমিন অ্যান্ড স্টেট) মোসলেহ উদ্দীন তুহিন, শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান, সুন্দরবন ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও বুড়িগোয়ালীনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ভবতোষ মণ্ডল, জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি আনিছুর রহমান, বরসা রিসোর্টের ম্যানেজার আমানউল্লাহ আমান, বরসা ট্যুরিজমের সমন্বয়ক শামীম পারভেজ, সুন্দরবন মালঞ্চ ট্যুর গাইডের সভাপতি ফারুক হোসেন, সুন্দরবন আদিবাসী সংস্থার নির্বাহী পরিচালক কৃষ্ণপদ মুন্ডা ও নীলডুমুর ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম। 

মূল আলোচনা পর্ব শুরুর আগে বাংলানিউজ টিম গত ১০ দিন সুন্দরবন ও তৎসংলগ্ন অঞ্চলের জেলাগুলোর যেসব স্পট ঘুরে রিপোর্ট করেছে, প্রজেক্টরের মাধ্যমে তার একটি প্রেজেন্টশন তুলে ধরেন সিনিয়র আউটপুট এডিটর জাকারিয়া মন্ডল, চিফ অব করেসপন্ডেন্টস সেরাজুল ইসলাম সিরাজ ও অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর আসিফ আজিজ। এ পর্বে বাংলানিউজের করেসপন্ডেন্ট ও ফটো করেসপন্ডেন্টরা প্রত্যেকে তার প্রতিবেদন ও ছবি নিয়ে অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন।

এরপর সঞ্চালনা করে মূল আলোচনা এগিয়ে নেন ল’ এডিটর এরশাদুল আলম প্রিন্স ও লাইফস্টাইল এডিটর শারমীনা ইসলাম।

সরকার ঘোষিত ‘পর্যটন বর্ষ-২০১৬’ এর শুরু থেকে বাংলানিউজের ‘বছরজুড়ে দেশ ঘুরে’  কর্মসূচি চলছে। কক্সবাজার, বৃহত্তর সিলেট এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের ৩ জেলা খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবানের পর এবার সুন্দরবনের পর্যটন নিয়ে এ আলোচনার আয়োজন করা হয়েছে।

এ আয়োজনের সহযোগিতায় রয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স, সুশীলন, বরসা রিসোর্ট অ্যান্ড ট্যুরিজম,  এএফসি হেলথ লিমিটেড, ফরটিস এসকর্টস হার্ট ইনস্টিটিউট, নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি খুলনা, নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট লিমিটেড ও প্রিমিয়ার সিমেন্ট।logo বাংলাদেশ সময়: ১২৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৬
এইচএ/এএ/এসএনএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2016-12-24 02:03:24