bangla news

উড়ন্ত প্লেনে মুখোরোচক খাবার...

2629 |
আপডেট: ২০১৪-১১-১২ ৪:২৮:০০ এএম

প্লেন ভ্রমণে মেঘে ভেসে চলা উড়োজাহাজের যাত্রীদের বিভিন্ন ধরনের খাবার পরিবেশন করে বিমান সংস্থাগুলো। এগুলোর বেশির ভাগই হয় যাত্রীদের চাহিদার নিরিখে। বিশেষ করে দূরপাল্লার প্লেন ভ্রমণ হলে তো কথাই নেই। এরপরও প্রায় ৩০ হাজার ফুট উপরে আকাশ ‘সড়কে’ চলা যাত্রীদের পরিবেশিত খাবার নিয়ে...

প্লেন ভ্রমণে মেঘে ভেসে চলা উড়োজাহাজের যাত্রীদের বিভিন্ন ধরনের খাবার পরিবেশন করে বিমান সংস্থাগুলো। এগুলোর বেশির ভাগই হয় যাত্রীদের চাহিদার নিরিখে। বিশেষ করে দূরপাল্লার প্লেন ভ্রমণ হলে তো কথাই নেই।

এরপরও প্রায় ৩০ হাজার ফুট উপরে আকাশ ‘সড়কে’ চলা যাত্রীদের পরিবেশিত খাবার নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে নানা খবর বের হয়। তবে বেশির ভাগই পচা-বাসি খাবার নিয়ে! তবে রয়েছে অনেক ভালো রুচিকর ও সুস্বাদু খাদ্যের খবরও।

তবে এসব খাবার নিয়ে কম-বেশি সবার আগ্রহ রয়েছে। এই পর্বে বাংলানিউজের ‘ট্রাভেলার্স নোটবুক’ পাঠকদের জন্য যাত্রীদের পরিবেশিত খাবারের মেন্যু দেওয়া হলো।


ভারতীয় বিমান সংস্থা কিংফিশার এয়ারলাইন্স! বর্তমানে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ রয়েছে সংস্থাটির। সংস্থাটি বিভিন্ন শ্রেণিতে যাত্রীদের চিকেন, ভারতীয় স্বাদের তৈরি রুটি খাবার পরিবেশন করতো। সঙ্গে পালং জাতীয় শাক এবং পনির ও ক্রিমি রাইসও রাখতো তারা।


জাপানি স্বাদে যাত্রীদের খাবার দেয় আমেরিকার ডেল্টা এয়ার। তাদের মেন্যুতে স্যামন সাশিমি এবং আঁশ জাতীয় খাবার লেটুসের সঙ্গে মরিচের সালাদ ও পাণীয় থাকে। সঙ্গে গাজর এবং লাল বাঁধাকপির সঙ্গে একটি আকর্ষণীয় রোল দেওয়া হয়।

তবে প্রধান মেন্যুতে রাইসের সঙ্গে ব্রোকলি জাতীয় বাঁধাকপি এবং গরু মাংসের টেরিয়াকি অথবা চিকেন থাকে। এক টুকরা কেক যেন এই খাবারকে পূর্ণ করে দেয়।


প্লেন যখন চলতে শুরু করেছে, তখন উড়ন্ত প্লেনের যাত্রীরা তো হালকা কিংবা মানসম্পন্ন ভারি খাবার চাইতেই পারেন! আর সে বিষয়টিই মাথায় রেখে কোরিয়ান এয়ার যাত্রীদের জন্য স্বাস্থ্যকর  খাদ্য পরিবেশন করে থাকে।

রাইসের সঙ্গে মজ্জা ও ডাল এবং মটরশুটি দিয়ে এক ধরনের সুস্বাদু  খাবার পরিবেশন করে কোরিয়ান এয়ার। কয়েক জাতের ফল, উদ্ভিজ্জ সালাদ এবং একটি রুটি রোল হিসাবে দেওয়া হয়।


বিজনেস ক্লাসের যাত্রীদের জন্য দুই ধরনের রুটি ও কিউই ফল পরিবেশ করে তাইওয়ানের ট্রান্স এশিয়ান এয়ারওয়েজ। এছাড়া তরমুজ, আনারস, বাটার এবং দই জাতীয় খাদ্য ইউগহার্টও রাখা হয় খাদ্য তালিকায়।


ইকোনমি ক্লাসের যাত্রীদের জন্য সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স তিন টুকরা মুরগীর রোস্ট, শাক-সবজি সন্নেবেশিত মাশরুম দিয়ে চায়নিজের সঙ্গে নুডুলস পরিবেশন করে।

সঙ্গে থাকে কাঁচা মরিচ, একটি টুকরা ব্রেড এবং ফলের সালাদ। পাণীয়ের পাশাপাশি চকলেট কেক ও পুডিংও থাকে।


লন্ডন-নিউইয়র্ক ফ্লাইটে ইকোনমি ক্লাসের যাত্রীদের জন্য ব্রেকফাস্টের আয়োজন করে থাকে যুক্তরাষ্ট্রের ডেল্টা এয়ারলাইন্স। এরমধ্যে ডিমের স্যান্ডুইচ, সস, বাটার রুটি, বিভিন্ন ফল-ফলাদি ও কমলা পরিবেশন করা হয়।


বিট্রিশ মালিকানাধীন আইবেরিয়া এয়ারলাইন্স যাত্রীদের জুতসই নাস্তা পরিবেশন করে থাকে। লন্ডন-বারাজাস ফ্লাইটে যাত্রীদের জন্য এয়ারলাইন্সটি ওমলেট, টোস্ট এবং বিভিন্ন ফল-ফলাদি ও জুস দিয়ে থাকে।


ফ্লাইটে যাত্রীদের জন্য মাংসের সঙ্গে রাইস পরিবেশন করে জাপান এয়ারলাইন্স। একই সঙ্গে সাত ধরনের মশলার স্বাদে শিচিমি ও কাসুন্দি পরিবেশন করা হয়।

খাবারের এই প্যাকেটটি জাপানের চেইন রেস্টুরেন্ট ইয়োশিনোয়া হোল্ডিংস সরবরাহ করে থাকে।


দ্রুক এয়ার! ভুটানের এই এয়ারলাইন্সটি যাত্রীদের জন্য সবজির নুডুলস দিয়ে থাকে। টফু, ড্রাগন ফ্রুট, তরমজ এবং আনারস ও স্থানীয় ভাষায় মাফিন জাতীয় ‌এক ধরনের খাদ্য পরিবেশন করা হয়।


নিউইয়র্ক-টোকিও রুটে আমেরিকান এয়ারলাইন্স গ্রিন সালাদ ও আদার কাসুন্দি দিয়ে যাত্রীদের খাদ্য পরিবেশন করে। তবে এ খাবারের প্রধান আকর্ষণ হলো বাদামি সস দিয়ে ম্যাশ পটেটো এবং মাংস। সঙ্গে সুইট কর্ন ও সিদ্ধ লাল মরিচও থাকে।

প্রিয় পাঠক, ভ্রমণ যাদের নেশা, বেড়ানোর সুযোগ এলে যারা উড়িয়ে দেন সব বাধা, কাজের অংশ হিসেবে যারা ভ্রমণ করেন কিংবা যাদের কালেভদ্রে সুযোগ হয় ভ্রমণের তারা সবাই হতে পারেন ট্রাভেলার্স নোটবুক’র লেখক। আপনার ভ্রমণের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারেন বাংলানিউজের পাঠকদের সঙ্গে।

আর একটা কথা লেখার সঙ্গে ছবি পাঠাতে ভুলবেনই না, সেই সঙ্গে বাতলে দিন সেখানে যাওয়ার পথঘাটের বিবরণও। 

প্রিয় পাঠক, আপনার ভ্রমণ আনন্দ বিশ্বজুড়ে বাঙালির কাছে ছড়িয়ে দিতে আমাদের ই-মেইল করুন-

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ১২, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পর্যটন বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2014-11-12 04:28:00