ঢাকা, শুক্রবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৮, ২৫ জুন ২০২১, ১৪ জিলকদ ১৪৪২

তারার ফুল

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের জন্য ১৩টি গান তৈরি করেছি: মার্সেল

ওমর ফারুক বিশাল, নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৩৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২১
বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের জন্য ১৩টি গান তৈরি করেছি: মার্সেল মার্সেল

সময়ের ব্যস্ততম সংগীত পরিচালক ও শিল্পী শাহরিয়ার আলম মার্সেল। বছর কয়েক ধরেই নিয়মিত কাজ করছেন তিনি।

তৈরি করেছেন অনেক জনপ্রিয় শিল্পীর গান। সংগীতে পথচলা, সাম্প্রতিক কাজ ও সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাংলানিউজের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। পাঠকের জন্য তা তুলে ধরা হলো-

বাংলানিউজ: সামনে তো বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এ উপলক্ষে কার কার জন্য গান তৈরি করছেন?
মার্সেল: আসছে বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের জন্য ১৩টি গান তৈরি করছি। আমার সুর ও সংগীতায়োজনে গানগুলোতে কণ্ঠ দিচ্ছেন- ইমরান, ন্যানসি, কোনাল, কর্ণিয়া, বেলাল খান, মাহাতিম শাকিব, পূজা, অবন্তী সিঁথি, আনিসা, ইমন খান, শামস ভাই।

বাংলানিউজ: শুনেছি, কয়েকটি সিনেমার গান বানাচ্ছেন। এ সম্পর্কে জানতে চাই।
মার্সেল: হ্যাঁ, নির্মাতা সৈকত নাসিরের সিনেমা ‘বর্ডার’র জন্য ৩টি গানের সুর ও সংগীতায়োজন করেছি। এর মধ্যে ১টি গান আমি নিজেই গেয়েছি। গানের নাম ‘বোকা মন। আর এটিই সিনেমায় গাওয়া আমার প্রথম গান। বাকি দুটি গানের একটি টাইটেল, অন্যটি আইটেম গান। টাইটেল গেয়েছেন সরওয়ার শুভ, আইটেম গানটি গেয়েছেন অবন্তী সিঁথি। বর্তমানে এ সিনেমার আবহসংগীতের কাজ করছি।  

এছাড়া ‘এ জার্নি উইথ ইউ’ নামের একটি সিনেমার জন্য ১টি গানের সুর ও সংগীতায়োজন করেছি। এই গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ইমরান মাহামুদুল। ‘ক্যাশ’ নামের একটি সিনেমার জন্য ১টি গান করেছি। এর শিরোনাম ‘ক্রসফায়ার’। নিজের সুর ও সংগীতায়োজনে এ ডুয়েট গানটি গেয়েছি আমি আর ঐশী। পাশাপাশি ‘ক্যাসিনো’ সিনেমার টাইটেল ট্র্যাক’র সুর-সংগীতায়োজন করেছি।

বাংলানিউজ: অডিও, সিনেমার গানের কথা শুনলাম। এবার নাটকের জন্য তৈরি করা গান সম্পর্কে শুনতে চাই!
মার্সেল: ‘গো টু হেল’ নাটকে আমার সুর সংগীত ও কণ্ঠে সম্প্রতি প্রকাশ পেয়েছে ‘অচেনা তুমি’ শিরোনামে একটি গান। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সিএমভি’র একটি নাটকের জন্য ‘সাত জনমের সাধনা’ নামে একটি গান করেছি। এ ডুয়েট গানটি আমার সঙ্গে গেয়েছেন আনিসা। গানের সুর সংগীতায়োজন যথারীতি আমারই করা।

বাংলানিউজ: অন্যান্য প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি আপনার নিজেরও ইউটিউব চ্যানেল আছে। তো, নিজের চ্যানেল নিয়ে কি ভাবছেন?
মার্সেল: নিজের চ্যানেলকে এগিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছি। নিজের চ্যানেল থেকে প্রকাশ পাচ্ছে ‘ট্যাগোর অ্যান্ড বিয়ন্ড’ নামে একটা কোলাবোরেশান প্রজেক্ট। যেখানে শ্রোতারা রবীন্দ্রসংগীতের পাশাপাশি বিভিন্ন ঘরানার গান শুনতে পারবেন।  

বাংলানিউজ: সংগীতে কাদেরকে (দেশে-বিদেশে) অনুপ্রেরণা মনে করেন?
মার্সেল: আমাদের দেশের মধ্যে- বাপ্পা মজুমদার, অর্ণব, হাবীব ওয়াহিদ ও ফুয়াদ আল মুক্তাদির। বিদেশি তারকাদের মধ্যে- এ আর রহমান, প্রীতম চক্রবর্তী, কোল্ড প্লে ও ইমাজিন ড্রাগনস।

বাংলানিউজ: সংগীত নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। কিন্তু আপনার এ বিষয়টা অনেকেই অবগত না। এ সম্পর্কে কিছু বলুন।
মার্সেল: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগ থেকে স্নাতক এবং ভারতের মুম্বাইয়ের ‘মুম্বাই মিউজিক ইন্সটিটিউট’ থেকে ‘ইলেক্ট্রনিক মিউজিক অ্যান্ড সাউন্ড ডিজাইন’র ওপর ডিপ্লোমা করেছি। সামনেও সংগীত নিয়ে ভালো কিছু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

বাংলানিউজ: শৈশব থেকেই গানের সঙ্গে জড়িত। সেই শৈশবেই পেয়েছেন প্রতিভার স্বীকৃতি। পাশাপাশি ২০১৫ সালে ভারত সরকারের আমন্ত্রণে কাজ করেছেন। সেই প্রাপ্তিগুলো নিশ্চয় প্রেরণা হিসাবে কাজ করে!
মার্সেল: হ্যাঁ..। ২০০২ সালে ‘নতুন কুঁড়ি’তে ২য় এবং ২০০৪ এ ‘নতুন কুঁড়ি’তে প্রথম হই। পাশাপাশি ২০০৫ সালে শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী হওয়ায় বাংলাদেশ সরকার আমাকে ‘জুনিয়র অ্যাম্ব্যাসেডর’ হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে জাপান পাঠায়। এছাড়া ২০১৫ সালে ভারত সরকারের আমন্ত্রণে ইয়থ ডেলিগেশন মেম্বার হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করি।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২১
ওএফবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa