ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

তারার ফুল

বলিউড ২০১৬

খেলা ছাড়া আর আছে কী!

জনি হক, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৫০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০১৬
খেলা ছাড়া আর আছে কী!

বলিউডে খেলাধুলা ভিত্তিক ছবির খুব বেশি চাহিদা নেই। সংখ্যাটা হাতেগোনা।

নব্বই দশকে ‘আউয়াল নাম্বার’ (১৯৯০), ‘জো জিতা ওহি সিকান্দার’ (১৯৯২), বিংশ শতাব্দীতে ‘লগান’ (২০০১), ‘চাক দে! ইন্ডিয়া’ (২০০৭) একই সঙ্গে প্রশংসিত ও ব্যবসায়িক সাফল্য পেয়েছে।
 
সাম্প্রতিক সময়ে ‘ভাগ মিলখা ভাগ’ (২০১৩) ও ‘মেরি কম’ (২০১৪) নতুন হাওয়া বইয়ে দিয়েছে। ২০১৬ সালেও বিভিন্ন খেলাধুলাকে ঘিরে বড় পর্দায় আসবে বেশকিছু ছবি।
 
কুস্তি নিয়ে বানানো হচ্ছে দুটি ছবি। এর মধ্যে নিতেশ তিওয়ারির পরিচালনায় ‘দঙ্গল’-এ হরিয়ানার কুস্তিগীর মহাবীর সিং ফোগাত চরিত্রে অভিনয় করছেন আমির খান। দুই মেয়ে ববিতা ও গীতাকে প্রশিক্ষণ দিতে গিয়ে তার চড়াই=উতরাই নিয়েই এর গল্প। যশরাজ ফিল্মসের প্রযোজনা ও আলী আব্বাস জাফর পরিচালিত ‘সুলতান’-এ সালমান খানও অভিনয় করছেন হরিয়ানার কুস্তিগীরের ভূমিকায়।
 
ক্রিকেট নিয়ে এ বছর আসবে দুটি ছবি। দুটোই বিখ্যাত দুই ক্রিকেটারের জীবন অবলম্বনে সাজানো হচ্ছে। দু’জনই ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক। একজন প্রাক্তন, অন্যজন এখনও ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব করছেন। বর্তমান ক্রিকেটার মহেন্দ্র সিং ধোনি জীবন পর্দায় তুলে আনছেন পরিচালক নীরাজ পান্ডে। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন সুশান্ত সিং রাজপুত।
 
এদিকে প্রাক্তন ক্রিকেটার মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের জীবন নিয়ে ‘আজহার’ ছবিটি পরিচালনা করছেন অ্যান্থনি ডি’সুজা। এতে নাম ভূমিকায় আছেন এমরান হাশমি। তার সহশিল্পীরা হলেন প্রাচী দেশাই ও নার্গিস ফাখরি।
 
বক্সিং নিয়ে নির্মিত সুধা কঙ্গারার ‘শালা খাড়ুস’-এ অভিনয় করেছেন আর. মাধবন ও ঋতিকা সিং। এটি মুক্তি পাবে আগামী ২৯ জানুয়ারি। ছবিটির প্রযোজক রাজকুমার হিরানি বলেছেন, ‘আগে নির্মাতারা সাধারণত প্রেমের গল্প কিংবা অ্যাকশনধর্মী ছবিকে সাফল্য পাওয়ার ব্যাপারে নিরাপদ ভাবতেন। তাছাড়া আগের দশকগুলোতে নির্মিত খেলাধুলা নির্ভর ছবিগুলো আহামরি সাফল্য পায়নি। এ কারণেই কেউই সাহস দেখাননি। তবে নানান রঙের গল্প নিয়ে কাজ করার সুসময় এসেছে। খেলা নিয়ে ভারতে ছবি তৈরির সংখ্যা বেড়েছে বলে আমি আনন্দিত। ’
 
এ ছাড়া ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় সায়না নেহওয়ালকে নিয়ে অমল গুপ্ত, কুস্তিগীর গামা পালোয়ানকে নিয়ে পারমিত সিঁঠি, ফুটবলার শিবদাস ভাদুড়িকে নিয়ে সুজিত সরকার, ধ্যান চাঁদকে নিয়ে করণ জোহর ও হকি খেলোয়াড় সন্দীপ সিংকে নিয়ে বলিউড অভিনেত্রী চিত্রাঙ্গদা সিং ছবি তৈরির পরিকল্পনা করেছেন।
 
বাণিজ্য বিশ্লেষক তরণ আদর্শ মনে করছেন, অভিনয়শিল্পীরা এখন আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে কাজ করতে মুখিয়ে উঠেছেন। তিনি বলেন, ‘ভারতীয়রা ক্রীড়াপ্রেমী জাতি হওয়া সত্ত্বেও আমাদের ছবিতে খেলাধুলা নিয়ে নিরীক্ষা করা হয়নি খুব একটা। তবে এখন অভিনেতা-অভিনেত্রীরা নতুন নতুন থিম নিয়ে নিরীক্ষা করতে চান। এ ক্ষেত্রে খেলাকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন তারা। বলিউডের বাঘা তারকারাও আছেন এই দলে। ’
 
পরিচালক নিতেশ তিওয়ারি বলেছেন, ‘এ ধরনের ছবি সাধারণত আন্ডারডগ কারও জয়কে ঘিরে তৈরি হয়। আর এগুলোর শেষটা হয় আনন্দ নিয়ে। তাই এগুলো দর্শককে খুশি করে দেয়। শুধু অর্জনই নয়, চলার পথে খেলোয়াড়দের চড়াই-উতরাই দর্শককে একই সঙ্গে কৌতূহলী ও অনুপ্রাণিত করে। খেলাই যে কোনো জাতির কল্পনাকে তুলে ধরে। ’

শুধু খেলোয়াড়ই নয়, গৎবাধা প্রেমের গল্প এড়িয়ে বাস্তব জীবনের আলোচিত ব্যক্তিকে নিয়েও বলিউডে তৈরি হচ্ছে বেশকিছু ছবি। চলতি বছর এগুলোর বেশ কয়েকটি আছে মুক্তির মিছিলে।
 
এর ধারাবাহিকতায় বনদস্যু বীরাপ্পনকে ঘিরে রামগোপাল ভার্মার ‘কিলিং বীরাপ্পন’ মুক্তি পেয়েছে ১ জানুয়ারি। আগামী ২২ জানুয়ারি মুক্তির প্রতীক্ষায় থাকা ‘এয়ারলিফট’ তৈরি হয়েছে কুয়েতপ্রবাসী এক ভারতীয় শিল্পপতি রঞ্জিত কাতিয়ালের জীবন নিয়ে। নব্বই দশকে ইরাক-কুয়েত যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ১৭০ জন ভারতীয় জিম্মির দেশে ফেরার গল্প রয়েছে এতে।
 
১৯৮৬ সালে সন্ত্রাসীদের হাতে ছিনতাই হওয়া বিমানের যাত্রীদের নিরাপত্তা দিতে গিয়ে নিহত ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট নীরজা ভানোটের জীবন নিয়ে তৈরি হচ্ছে ‘নীরজা’ ছবিটি। এতে নাম ভূমিকায় আছেন সোনম কাপুর। এটি প্রেক্ষাগৃহে আসবে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি।
 
এ ছাড়া কিংবদন্তি কবি ও গীতিকার সাহির লুধিয়ানভির জীবন নিয়ে একটি ছবি নির্মাণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। হৃতিক রোশন অভিনীত ও আশুতোষ গোয়াড়িকর পরিচালিত ‘মহেঞ্জোদারো’ও তৈরি হচ্ছে সত্যি ঘটনা নিয়ে। চাকরি ছাড়তে বাধ্য হওয়া অধ্যাপকের জীবন নিয়ে বানানো ‘আলীগড়’ ছবিতে অভিনয় করেছেন মনোজ বাজপেই।
 
গত বছর আরুশি তলওয়ার হত্যা মামলা নিয়ে ‘তলবার’, মারাঠা যোদ্ধা বাজিরাওকে ঘিরে ‘বাজিরাও মাস্তানি’, চার্লস সভরাজের জীবন নিয়ে ‘ম্যায় অউর চার্লস’ ছবিগুলো প্রশংসিত হয়েছে। বাণিজ্য বিশ্লেষক অতুল মোহন বলেছেন, ‘দর্শকরা প্রেক্ষাগৃহে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বিনোদন চায়। বাস্তব জীবনের গল্প তাদেরকে আরও বেশি আগ্রহী করে তোলে। যথাযথ বাজেট পেলে সেলুলয়েডে সত্যি জীবন উঠে আসার সংখ্যা বাড়বে। ’
 
বাংলাদেশ সময় : ২৩৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০১৫
জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa