ঢাকা, রবিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৭ সফর ১৪৪৪

তারার ফুল

সুপারহিট ‘এক ভিলেন’

আফসানা রীপা | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৫ ঘণ্টা, জুলাই ৯, ২০১৪
সুপারহিট ‘এক ভিলেন’

‘তিন পাত্তি’ (২০১০) ও ‘লাভ কা দ্য এন্ড’ (২০১১) ছবিতে কাজ করলেও পায়ের তলায় মাটি খুঁজে পাননি শ্রদ্ধা কাপুর। গত বছর ‘আশিকি টু’ তাকে শুধু মাটিই দেয়নি, নিয়ে এসেছে নায়িকাদের ইঁদুর দৌড়েও।

তাই তাকে নিয়ে এবার বাজি ধরলেন প্রযোজক একতা কাপুর। ‘আশিকি টু’র পর পরিচালক মোহিত সুরি ও অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুর জুটিকে আবার এক করে দিলেন তিনি। ভুল করেননি একতা, কাড়ি কাড়ি রুপি আসছে তার অ্যাকাউন্টে।

বলিউডে এ বছরের সবচেয়ে ব্যবসাসফল ছবির তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ‘এক ভিলেন’। ২৭ জুন মুক্তির পর থেকে এখন পর্যন্ত ছবিটির আয় হয়েছে ৯৭ কোটি ৬০ লাখ রুপি। ১০০ কোটির ক্লাবে যোগ দেওয়া তাই সময়ের ব্যাপার।

‘আশিকি টু’তে শ্রদ্ধার নায়ক ছিলেন আদিত্য রায় কাপুর। মোহিত সুরি-শ্রদ্ধাকে নিলেও একতা নায়ক নির্বাচন করেছেন সিদ্ধার্থ মালহোত্রাকে। দুই বছর আগে করণ জোহরের ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হওয়ায় সবাই জানতো তার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল। এ বছর ‘হাসি তো ফাঁসি’ হিট, আর এবার ‘এক ভিলেন’ সুপারহিট।

তবে ছবিটিতে মোহিত সুরি ও একতা কাপুরের তুরুপের তাস রিতেশ দেশমুখ। গল্পে তিনিই ভিলেন।
তাকে খলনায়ক হিসেবে দেখার নাকি খুব ইচ্ছে ছিলো স্ত্রী জেনেলিয়া ডি’সুজার। বউয়ের মন রাখতেই কমেডি-রোমান্টিক হিরো হয়ে গেলেন এক ভিলেন! রিতেশ বলেছেন, ‘হাসির ছবিতে কাজ করতে করতে আমারও একঘেয়েমি চলে এসেছিল। ’

কী আছে ‘এক ভিলেন’-এর গল্পে? ছোট্ট করে জানা যাক। একজন রাজনীতিবিদের হয়ে কাজ করে গুরু। তার অন্ধকার অতীত তাকে রাতে ঘুমাতে দেয় না। আয়শার প্রেমে পড়ার পর সে জীবনধারা বদলানোর সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু তার প্রেমিকার জীবনে বিভীষিকা হয়ে আসে এক মানসিক বিকারগ্রস্ত মানুষ। ফলে আবার পুরনো জীবনে ফিরে যেতে বাধ্য হয় গুরু। সেই আক্রমণকারীর পরিচয় যত তার কাছে উন্মোচিত হতে থাকে ততই তার বিশ্বাস বদলাতে থাকে। আয়েশার খুনকে ঘিরেই এগোয় কাহিনী। বাড়তি পাওনা হিসেবে ছিল আইটেম গানে প্রাচী দেশাইর নাচ।

‘এক ভিলেন’-এ সিদ্ধার্থ আর রিতেশের চেয়েও সবার নজর কেড়ে নিয়েছেন শ্রদ্ধা। ছবিটির ব্যবসায়িক সাফল্যে তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন সিদ্ধার্থর প্রথম ছবির নায়িকা আলিয়া ভাট।

‘এক ভিলেন’কে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ‘আশিকি টু’র সিক্যুয়েল বলা যায়! প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আর নায়ক বদলানো ছাড়া সবই এক। এ ছবিতেও সংগীত পরিচালনা করেছেন অঙ্কিত তিওয়ারি ও মিঠুন। ‘আশিকি টু’র ‘সুন রাহা হ্যায় না’ গানটি সুর করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন অঙ্কিত। ‘এক ভিলেন’-এ তার গান ‘গালিয়া’ও তুমুল জনপ্রিয় হয়েছে। মিঠুনের সুর করা ‘জরুরত’ আর ‘বানজারা’ গান দুটিও জনপ্রিয় হয়েছে।

সব মিলিয়ে ‘আশিকি টু’র পর পর আবার ‘এক ভিলেন’ দিয়ে সফল হলেন মোহিত সুরি। নিজের সাফল্যের সব কৃতিত্ব তিনি দিলেন স্ত্রী উদিতা গোস্বামীকে। উদিতাই নাকি তার সাফল্যের রহস্য। ‘মার্ডার টু’, ‘আশিকি টু’ ও ‘এক ভিলেন’ তিনটি ছবিই মারকাটারি ব্যবসা করেছে, তাই আগামীতেও মোহিতের সব ছবির নায়িকা হতে চেয়েছেন শ্রদ্ধা। এবার মোহিত-শ্রদ্ধা জুটির হ্যাটট্রিক করার পালা!

বাংলাদেশ সময় : ২১৩৫ ঘণ্টা, জুলাই ০৯, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa