ঢাকা, বুধবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

বাংলানিউজ টি-২০ বিশ্বকাপ-২০২১

ফিল্ডিং ব্যর্থতায় ১৪৩ রানের লক্ষ্য পেল বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৫৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৯, ২০২১
ফিল্ডিং ব্যর্থতায় ১৪৩ রানের লক্ষ্য পেল বাংলাদেশ

প্রথম ১০ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দারুণ চাপে রেখেছিলেন বাংলাদেশের বোলাররা। কিন্তু এরপর থেকে ম্যাচের গতিপথ বদলে যেতে থাকলো।

যদিও ক্যারিবীয়দের তিন বিধ্বংসী ব্যাটার- ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল ও কাইরন পোলার্ড জ্বলে ওঠতে পারেননি। কিন্তু ফিল্ডিংয়ে ক্যাচ ও স্ট্যাম্পিং মিস করার শাস্তি পেল টাইগাররা। একসময় ১০০ রানই যেখানে কঠিন মনে হচ্ছিল, সেখানে ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে উইন্ডিজের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৪২ রানে ।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বে গ্রুপ 'ওয়ান'-এ নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে শুক্রবার শারজায় টস জিতে ক্যারিবীয়দের শুরুতে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় বাংলাদেশ।

'ডু অর ডাই' ম্যাচে দুই দলই একাদশে দুটি করে পরিবর্তন এনেছে। বাংলাদেশের একাদশে ইনজুরিতে ছিটকে যাওয়া নুরুল হাসান সোহানের জায়গায় এসেছেন সৌম্য সরকার। অন্যদিকে নাসুম আহমেদের বদলে একাদশে সুযোগ পেয়েছেন তাসকিন আহমেদ। নুরুলের অনুপস্থিতিতে কিপিংয়ে ফিরেছেন লিটন দাস। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল থেকে সিমন্স বাদ পড়েছেন। তার জায়গায় এসেছেন অভিষিক্ত রোস্টন চেজ। আবার হেইডেন ওয়ালশের জায়গায় এসেছেন জেসন হোল্ডার।

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে নেমে মেহেদি হাসানকে দিয়ে বোলিং উদ্বোধন করায় বাংলাদেশ। ক্রিস গেইল আর এভিন লুইস সেই ওভার থেকে তোলেন ৪ রান। পরের ওভারে আসেন তাসকিন আহমেদ। পেস-স্পিনের দ্বিমুখী আক্রমণে চাপে পড়ে যায় ক্যারিবীয়রা। তৃতীয় ওভারেই আনা হয় মোস্তাফিজকে। শেষ বলে বলটি উড়িয়ে মারতে গিয়ে স্কয়ার লেগে মুশফিকুর রহিমের তালুবন্দি হন ৯ বলে ৬ রান করা এভিন লুইস।  

দলীয় ১২ রানে প্রথম উইকেট হারায় উইন্ডিজ। এক ওভার পরেই মেহেদী হাসানের বলে 'দ্য ইউনিভার্স বস' গেইল (৪) আক্রমণাত্মক শট খেলতে গিয়ে বোল্ড হন। এরপর নিজের তৃতীয় ওভারে তিনে নামা শিমরন হেটমায়ারকে বিদায় করেন মেহেদী। এবার হেটমায়ারও তুলে মারেন। কিন্তু বল বাউন্ডারি লাইনের কিছুটা ভেতর থেকে তালুবন্দি করেন সৌম্য সরকার। ৭ বলে ৯ রান করেই বিদায় নেন হেটমায়ার।

প্রথম ১০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে মাত্র ৪৮ রান তুলতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাউন্ডারি মাত্র ২টি!, ছক্কা নেই একটিও। এতেই বোঝা যায় টাইগারদের বোলিংয়ের সামনে কতটা অসহায় ছিলেন ক্যারিবীয় ব্যাটাররা। অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড ও চেজের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছিল উইন্ডিজ।  

সবাইকে চমকে দিয়ে ১৩তম ওভারে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরেন পোলার্ড। পরের বলে চেজের স্ট্রেইট ড্রাইভে বল বোলার তাসকিনের হাতে লেগে নন-স্ট্রাইকিং প্রান্তের স্ট্যাম্প ভেঙে দিলে কোনো বলের মোকাবিলা করার আগেই রান আউট হয়ে ফেরেন আন্দ্রে রাসেল।  

এরপর সাকিবের করা ইনিংসের ১৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে চেজের ক্যাচ মিস করেন মেহেদী হাসান। এক বল পরেই নিকোলাস পুরানকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলতে পারেননি উইকেটরক্ষক লিটন দাস। এই পুরান শেষদিকে ঝড় তোলেন। সাকিব ও মেহেদীর দুই ওভারে ৪ ছক্কা হাঁকান তিনি।  

নিজের শেষ ও ইনিংসের ১৯তম ওভারে পর পর দুই বলে পুরান ও চেজ দুজনকেই ফেরান শরিফুল। মোহাম্মদ নাঈমের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে পুরান ২২ বলে ১ চার ও ৪ ছক্কায় করেন ৪০ রান। আর শরিফুলের বলে বোল্ড হওয়ার আগে চেজ করেন ৪৬ বলে ২ চারে ৩৯ রান। ওভারের শেষ বলে জেসন হোল্ডারের সহজ ক্যাচ ফেলে দেন আফিফ হোসেন। সবমিলিয়ে বাংলাদেশ দল মোট ক্যাচ মিস করেছে ৪টি! মেহেদী হাসান একাই ২টি।

শেষ ওভারের প্রথম বলেই ডোয়াইন ব্র্যাভোকে (১) ফেরান মোস্তাফিজ। ডিপ কভারে থাকা সৌম্য সরকার সহজ ক্যাচ মিস করেননি। এরপর ক্রিজে ফেরেন পোলার্ড। ফিজের পরের দুই বলেই ছক্কা হাঁকান হোল্ডার। শেষ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ওই ওভার থেকে ১৯ রান এবং দলের সংগ্রহ সম্মানজনক স্থানে নেওয়া নিশ্চিত করেন পোলার্ড।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে খরুচে মোস্তাফিজ ২ উইকেট পেয়েছেন ৪৩ রান খরচে। ২টি করে উইকেট পেয়েছেন মেহেদী হাসান ও শরিফুল ইসলামও। এর মধ্যে শরিফুল ৪ ওভারে খরচ করেছেন মাত্র ২০ রান। আর তাসকিন ছিলেন সবচেয়ে মিতব্যয়ী। ৪ ওভারে কোনো উইকেট না পেলেও মাত্র ১৭ রান দিয়েছেন এই ডানহাতি পেসার। একটি রান আউটও এসেছে তার কল্যাণে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৯, ২০২১
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa