bangla news
উচু ও শক্ত বাঁধের দাবিটা পূরণ হবে তো!

উচু ও শক্ত বাঁধের দাবিটা পূরণ হবে তো!

উপকূলের বিপন্ন মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি উচু ও শক্ত বাঁধ। প্রতিনিয়ত দুর্যোগের আতঙ্কে থাকা মানুষেরা বেঁচে থাকার তাগিদেই এই দাবি জানিয়ে আসছে। অতি সম্প্রতি উপকূলীয় বাঁধ তিন ফুট উচু করতে বিশেষ প্রকল্প গ্রহণ করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।
২০১৪-১২-১৯ ১০:০৩:০০ পিএম
ঝুঁকিতে প্রাকৃতিক নিরাপত্তা বেষ্টনি!

ঝুঁকিতে প্রাকৃতিক নিরাপত্তা বেষ্টনি!

উইহানে (ওখানে) মোগো (আমাদের) ঘর আল্‌হে (ছিল)। সাগর আল্‌হে আরও দূরে। ঝড়-তুফানে মোগো কিছুই অইতো (হতো) না। জঙ্গল আর গাছে মোগো বাঁচাইয়া রাখত। অ্যাহন গাছগাছরা নাই। বাতাস অইলেই (হলে) পরানডা (প্রাণটা) লইয়া দৌড়াই।
২০১৪-১২-১৭ ১:৫০:০০ পিএম
ধ্বংসের পথে গঙ্গামতি সংরক্ষিত বন!

ধ্বংসের পথে গঙ্গামতি সংরক্ষিত বন!

সংরক্ষিত বন হলেও সংরক্ষণ বলতে কিছুই নেই। বহু বছরের পুরোনো বন যে যেভাবে পারছেন, ব্যবহার করছে। একদিকে সমুদ্র তীরের ভাঙন, অন্যদিকে কূচক্রীদের দৃষ্টি বনকে দিনকে দিন সংকটের মুখে ফেলছে। গত পাঁচ-দশ বছর আগের বনের সঙ্গে বর্তমান বনের কোনো মিল খুঁজে পাচ্ছেন না এলাকার বাসিন্দারা। বন রক্ষা নিয়ে তারাও এখন শঙ্কিত।
২০১৪-১২-১৬ ২:০৪:০০ পিএম
বুনো শাকে জীবিকা, ফুরিয়ে আসছে দিন!

বুনো শাকে জীবিকা, ফুরিয়ে আসছে দিন!

বুনো শাকে জীবিকার দিন ফুরিয়ে আসছে। গাছপালা ধ্বংস হচ্ছে, বন-জঙ্গল হারিয়ে যাচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বদলে যাচ্ছে ছায়াঘেরা সবুজ প্রকৃতি। বসতির প্রয়োজনে কেটে ফেলা হচ্ছে ঝোপঝাড়। পরিবেশ বিপর্যয়ের এই ধারাবাহিকতায় হারিয়ে যাচ্ছে বুনো শাক।
২০১৪-১২-০৮ ৪:৩৫:০০ পিএম
বিনামূল্যে আইনি সহায়তা, স্বস্তি ফিরছে তৃণমূলে!

বিনামূল্যে আইনি সহায়তা, স্বস্তি ফিরছে তৃণমূলে!

নাম রাশিদা বেগম। স্বামী হেলাল খান। বাড়ি পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের চর চান্দুপাড়া গ্রামে। রাশিদার কাছে তার স্বামী প্রথমে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে। এ দাবি পূরণের পর আবারও ৫০ হাজার টাকা চায়।
২০১৪-১২-০৭ ২:৩৫:০০ পিএম
গ্রামের স্কুলে তথ্যপ্রযুক্তি, কতদূর?

গ্রামের স্কুলে তথ্যপ্রযুক্তি, কতদূর?

গ্রামের স্কুলে এখনও পৌঁছেনি বিদ্যুতের আলো। নেই তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগে শিক্ষক। আসেনি কম্পিউটার। কোথাও চলছে জোড়াতালির ক্লাস।
২০১৪-১২-০৬ ৩:৩৬:০০ পিএম
পায়রা সমুদ্র বন্দর, স্বপ্নের হাতছানি!

পায়রা সমুদ্র বন্দর, স্বপ্নের হাতছানি!

প্রত্যন্ত পল্লী সাজছে অন্যরূপে। রাস্তাঘাট হচ্ছে পাকা। বসেছে বৈদ্যুতিক খুঁটি। অন্ধকারে ঢাকা গ্রামে এসেছে সৌরবিদ্যুতের আলো। নদীর তীর থেকে উঁচু সড়ক পর্যন্ত বিছানো হয়েছে ইট। একের পর এক চলছে কাজ। আর এসব কাজ ঘিরে মানুষের মধ্যে ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য।
২০১৪-১২-০৫ ১:৪৬:০০ পিএম
গ্রামে ফেরা যুবকের স্বপ্নভঙ্গ!

গ্রামে ফেরা যুবকের স্বপ্নভঙ্গ!

পৈত্রিক ভিটে আঁকড়ে থাকার আশা নিয়ে গ্রামে ফেরা। জমিতে ক্ষেত-খামার করে জীবন ধারণ, আর গ্রামের মানুষের জন্য কিছু করার স্বপ্ন ছিল তার। গ্রামে শিক্ষা প্রসারে তার ছিল বিশেষ আগ্রহ। বাপ-দাদার জমি-জিরাত ভালোই ছিল। সেই ভরসাতেই দূরের বেসরকারি চাকরি ছেড়ে গ্রামে ফেরার সিদ্ধান্ত।
২০১৪-১২-০৩ ১২:৩৪:০০ এএম
যুদ্ধটা যখন লেখাপড়ায় টিকে থাকার!

যুদ্ধটা যখন লেখাপড়ায় টিকে থাকার!

দুই কিলোমিটার দূরের স্কুল থেকে বিকেলে বাড়ি ফেরা। গোসল আর দুপুরের খাবার বাড়িতেই। রাত ও পরের দিন ভোরের খাবার নিয়ে টিফিন ক্যারিয়ার হাতে স্কুলের কাছে প্রাইভেট টিচারের বাসায় যাওয়া। সেখানেই স্যারের কাছে রাতে লেখাপড়া এবং ঘুমানো।
২০১৪-১১-২৬ ২:০৪:০০ পিএম
স্কুল ছেড়ে কাজের সন্ধানে!

স্কুল ছেড়ে কাজের সন্ধানে!

ঘরে পড়ার টেবিল রাখার জায়গা নেই। পানিতে ডুবে বইপত্র নষ্ট হয়েছে কয়েকবার। স্কুলে যাওয়া পথে পথে নানান সমস্যা। এর ওপর দৈনন্দিন খাদ্য সংগ্রহের সংকট তো আছেই। এইসব নানামুখী সংকটের মুখে বহু স্কুলগামী ছেলেমেয়ে এখন কাজের সন্ধানে ছুটেছে।
২০১৪-১১-২৫ ২:১২:০০ পিএম
নারীর ক্ষুদ্র উদ্যোগ, ঘুরছে সংসারের চাকা!

নারীর ক্ষুদ্র উদ্যোগ, ঘুরছে সংসারের চাকা!

নারীর ক্ষুদ্র উদ্যোগে ঘুরছে সংসারের চাকা। পুরুষের আয়ের সঙ্গে যোগ হচ্ছে নারীর রোজগারের টাকাটাও। ঘরে-বাইরে আয়ের সুযোগ বের করে এগিয়ে যাচ্ছে মানুষ। সব হারানো এক একটি পরিবার ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে।
২০১৪-১১-২৪ ৩:৩৯:০০ পিএম
স্বাস্থ্যসেবায় দৃষ্টান্ত গড়েছে চর ফলকন

স্বাস্থ্যসেবায় দৃষ্টান্ত গড়েছে চর ফলকন

ঝোপঝাড়ে পরিপূর্ণ ভবনটিতে এখন আলো ঝলমল পরিবেশ। যে ভবনে ঢুকতে এক সময় মানুষ ভয় পেত, সেখানে এখন নবজাতকের নিরাপদ আগমন ঘটে। নারী-পুরুষ শিশু স্বাস্থ্যসেবার ভরসাস্থলে পরিণত হয়েছে কেন্দ্রটি। ওষুধ আছে, চিকিৎসক আছে, আর তাই রোগীর ভিড়ও বাড়ছে দিনে দিনে।
২০১৪-১১-২০ ৭:৩৫:০০ পিএম
সিডরের ৭ বছর: স্বজনের অপেক্ষা, কাটেনা ভয়!

সিডরের ৭ বছর: স্বজনের অপেক্ষা, কাটেনা ভয়!

উপকূলের সিডর বিপন্ন জনপদ ঘুরে: সাত বছর ধরে গুমড়ে কেঁদে ফেরা মানুষের দল। হারানো স্বজনের জন্য কান্না থামেনি তাদের। অনেকেই স্বামী, সন্তান, বাবা, মা কিংবা ভাইয়ের অপেক্ষায় পথ চেয়ে আছেন। একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিটিকে সিডর কেড়ে নেওয়ায় পরিবারে নেমে এসেছে চরম অনিশ্চয়তা।
২০১৪-১১-১৯ ২:৩৭:০০ পিএম
সিডরে ধুঁকছে কর্মহীন মানুষের জীবন!

সিডরে ধুঁকছে কর্মহীন মানুষের জীবন!

উপকূলের সিডর-বিপন্ন জনপদ ঘুরে: সব হারানো জেলে হাবিবুর রহমান মলিন মুখ। তার অপলক দৃষ্টি সমুদ্রের দিকে; যেখানে ঢেউয়ের সঙ্গে যুদ্ধ করে চলতো তার ছোট্ট নৌকা।
২০১৪-১১-১৭ ৬:৪৭:০০ পিএম
সিডরে ছিঁড়ে যাওয়া বাঁধ জোড়া লাগেনি

সিডরে ছিঁড়ে যাওয়া বাঁধ জোড়া লাগেনি

প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় সিডরের পর সাত বছরে বহু মানুষ কাজের সন্ধানে এলাকা ছেড়েছে। জমিতে ফসল না হওয়ায় অর্ধাহারে দিন কাটছে বহু মানুষের। স্কুল ছেড়ে শিশুরা নেমেছে কাজে। সম্পদশালী পরিবারের ঠাঁই হয়েছে রাস্তার পাশের ছোট্ট ঝুঁপড়িতে। রাস্তাঘাট ভেঙে চুরমার। ফসলি মাঠ পানিতে ডুবে থাকছে বছরের পর বছর।
২০১৪-১১-১৬ ১:৪১:০০ পিএম