usa
খতম তারাবি না পড়লে কি গুনাহ হবে?

খতম তারাবি না পড়লে কি গুনাহ হবে?

প্রশ্ন: আমি শুনেছি তারাবির নামাজে কোরআন খতম করা সুন্নতে মুআক্কাদা। যারা সুরা তারাবি পড়ে, তাদের কি খতম ছাড়ার গুনাহ হবে? —আব্দুর রহিম, বগুড়া।


২০২০-০৫-১৩ ৫:০৪:৩৩ পিএম
তারাবি না পড়লে কি গুনাহ হবে?

তারাবি না পড়লে কি গুনাহ হবে?

প্রশ্ন: তারাবির নামাজ একদম না পড়া বা জামাতে না পড়ে একাকী পড়লে কি গুনাহ হবে? —মুশফিকুর রহমান, মহাখালী।


২০২০-০৫-১১ ১১:৪১:১৩ পিএম
ইচ্ছাকৃত রোজা না রাখা ও ভাঙার বিধান

ইচ্ছাকৃত রোজা না রাখা ও ভাঙার বিধান

প্রশ্ন: আমি একজন সাধারণ মানুষ। আমি আমার জীবনের কয়েক রমজানের রোজা রাখিনি। এ ছাড়া কয়েকটি রোজা রেখে অপারগ অবস্থায় আর কিছু ইচ্ছাকৃত ভেঙে ফেলেছি। বর্তমানে আমার অনুভূতি এসেছে। তাই আমি জানতে ইচ্ছুক, আমার করণীয় কী? —আহসানুল টুটুল, মিরপুর।


২০২০-০৫-১০ ৫:৩৬:৩০ পিএম
বালেগ হওয়ার পর থেকে রোজা না রাখলে কাজা আদায় করতে হবে

বালেগ হওয়ার পর থেকে রোজা না রাখলে কাজা আদায় করতে হবে

প্রশ্ন: কোনো ব্যক্তি ছয়-সাত বছর যাবৎ কিছু রোজা রেখেছে, কিছু রোজা ভেঙেছে, কিন্তু বেশির ভাগ রোজাই রাখেনি। এখন রোজার ব্যাপারে তার ওপর বিধান কী?

—ইমাম হোসেন রাসেল, মাইজদী, নোয়াখালী।


২০২০-০৫-০৪ ৩:১৫:৫০ পিএম
রোজা রাখতে সম্পূর্ণ অক্ষম হলে ফিদিয়া দিতে হয়

রোজা রাখতে সম্পূর্ণ অক্ষম হলে ফিদিয়া দিতে হয়

সমাজে ‘বদলি রোজা’ নামে একটি ভুল প্রচলিত আছে। কোনো ব্যক্তি অসুস্থতা কিংবা বার্ধক্যজনিত কারণে রোজা রাখতে অপারগ হলে অন্য কাউকে দিয়ে বদলি রোজা রাখাতে হয় মনে করেন অনেকে। অথচ ‘বদলি রোজা’ বলতে ইসলামে কোনো পরিভাষা নেই। আমরা যেটিকে বদলি রোজা ভাবি, তা মূলত ‘ফিদিয়া’।


২০১৯-০৫-২৩ ১:৫৫:৪০ পিএম
রোজায় নারীদের জরুরি মাসাআলা

রোজায় নারীদের জরুরি মাসাআলা

নারী-পুরুষ সবার জন্য রোজার বিধান। তবে ইসলাম ব্যক্তির সুস্থতা-অসুস্থতাকে গুরুত্ব দিয়েছে। সে হিসেবে রোজা পালনে নিয়মসাপেক্ষে সুযোগ-সুবিধাও রেখেছে। রমজানে রোজা পালনে নারীদের বিভিন্ন রকমের নিয়ম-বিধান রয়েছে। সে সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচানা।


২০১৯-০৫-২১ ৩:৫৪:০৮ পিএম
রোজার কাফফারা দিতে হয় যে কারণে

রোজার কাফফারা দিতে হয় যে কারণে

শরিয়তসম্মত কোনো কারণ ছাড়া ইচ্ছাকৃত পানাহার বা সহবাসের মাধ্যমে রমজানের রোজা ভেঙে ফেললে তার কাজা ও কাফফারা আদায় করতে হয়। শুধু একটি রোজার বদলে আরেকটি রোজা রাখাকে কাজা বলে। কাফফারা এরচেয়ে ভিন্ন। কাফফারার বিধান নিম্নে দ্রষ্টব্য।


২০১৯-০৫-২১ ২:০৮:৪০ পিএম
রোজার কাজা আদায়ের বিধান

রোজার কাজা আদায়ের বিধান

প্রাপ্তবয়স্ক প্রত্যেক মুসলমানের ওপর রমজানের রোজা রাখা ফরজ। অসুস্থতা কিংবা অন্য কোনো বড়সড় অপারগতার কারণে রোজা রাখতে না পারলে ইসলামে বিকল্প ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু ইচ্ছাকৃত রমজানের রোজা না রাখা মারাত্মক অপরাধ ও গুনাহের কাজ।


২০১৯-০৫-২১ ১২:৩৮:৫৮ পিএম
অসুস্থদের রোজার নিয়ম-বিধান

অসুস্থদের রোজার নিয়ম-বিধান

রোজা আল্লাহর ফরজ বিধান। ইসলামে মানুষের শক্তি, সামর্থ্য ও সাধ্যের বাইরে কোনো বিধান দেওয়া হয়নি। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, ‘আল্লাহ কারো ওপর এমন কষ্টদায়ক দায়িত্ব অর্পণ করেন না, যা তার সাধ্যাতীত।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ২৮৬)


২০১৯-০৫-১৯ ১২:৪১:৩৬ পিএম
রোজার নিয়ত মুখে করা জরুরি নয়

রোজার নিয়ত মুখে করা জরুরি নয়

রমজান মাস রোজা পালনের মাস। এ মাসে আল্লাহর আনুগত্যে মানুষ রোজা রাখেন। রোজা রখার জন্য প্রতিদিন আলাদা আলাদা সাহরি খেতে হয়। ইফতার করতে হয়। নিয়তও করতে হয়। রোজার নিয়ত সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত ও জরুরি মাসআলা-


২০১৯-০৫-১৬ ১২:১০:৫০ পিএম
রোজা ভাঙে না যেসব কারণে

রোজা ভাঙে না যেসব কারণে

রোজা আল্লাহর ফরজ বিধান। মানুষের শক্তি, সামর্থ্য ও সাধ্যের বাইরে ইসলামে কোনো বিধান নেই। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, ‘আল্লাহ কারো ওপর এমন কষ্টদায়ক দায়িত্ব অর্পণ করেন না, যা তার সাধ্যাতীত।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ২৮৬)


২০১৯-০৫-১৫ ৫:১১:৩৩ পিএম
ইফতারের কিছু জরুরি মাসআলা

ইফতারের কিছু জরুরি মাসআলা

শরিয়তের পরিভাষায় সূর্য অস্তমিত হওয়ার পর রোজা সমাপ্তির জন্য পানাহার করাকে ইফতার বলা হয়। ইফতারে রোজাদার সারা দিনের ক্লান্তি ভুলে যায়। আনন্দে মথিত হয় হৃদয়-মন। ইফতার রোজাদারের দুইটি আনন্দের একটি। অন্যটি মহান আল্লাহর সাক্ষাত।


২০১৯-০৫-১২ ৫:৫৮:৪৫ পিএম
অসুস্থ ব্যক্তি রোজা ভাঙতে পারবে যখন

অসুস্থ ব্যক্তি রোজা ভাঙতে পারবে যখন

রোগের কারণে ডাক্তার যদি বলে, রোজা রাখলে রোগের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে বা সুস্থতা বিলম্বিত হতে পারে, তাহলে রোজা ভাঙা যায়। কিন্তু সামান্য অসুখ, যেমন—মাথা ব্যথা, সর্দি, কাশি, অনুরূপ কোনো সাধারণ রোগ-বালাইয়ের কারণে রোজা ভাঙা জায়েজ নয়। তবে রোগের কারণে যেসব রোজা ভাঙা হয়, সেগুলো পরে একটির বদলে একটি কাজা করে নিতে হবে।


২০১৯-০৫-১২ ২:০৪:১৩ পিএম
রোজা ভেঙে যায় যেসব কারণে

রোজা ভেঙে যায় যেসব কারণে

রোজা ইসলামের পঞ্চমস্তম্ভের অন্যতম। রোজা রাখা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজ। রোজা অবস্থায় পানাহার ও দৈহিক সম্পর্ক থেকে দূরে থাকতে হয়। এসব কাজ থেকে দূরে থাকলেও এমন কিছু কাজ রয়েছে, যেগুলোর কারণে রোজা ভেঙে যায়। সেগুলোর সংক্ষিপ্ত আলোচনা দেওয়া হলো।


২০১৯-০৫-১০ ২:২৭:০৯ পিএম
রোজা অবস্থায় ইনহেলার ব্যবহার

রোজা অবস্থায় ইনহেলার ব্যবহার

শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধে ইনহেলার ব্যবহার করা হয়। মুখের ভেতরভাগে এটি স্প্রে করা হয়। এতে শ্বাসরুদ্ধ জায়গাটি প্রশস্ত হয়ে যায়। ফলে শ্বাস চলাচলের কষ্ট দূর হয়ে যায়। যদিও স্প্রে করার সময় ওষুধটি গ্যাসের মতো দেখায়, কিন্তু বাস্তবিক পক্ষে এটি দেহবিশিষ্ট তরল ওষুধ। তাই মুখের ভেতরে স্প্রে করার কারণে রোজা ভেঙে যাবে। মোদ্দাকথা, সালবিউটামল ও ইনহেলার ব্যবহার করলে রোজা ভেঙে যায়।


২০১৯-০৫-১০ ১২:১৩:২৫ পিএম