ঢাকা, বুধবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ মে ২০২২, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

খেলা

খেলাধুলা নীতি, তারুণ্য ও শক্তির প্রতীক: সায়েম সোবহান আনভীর

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
খেলাধুলা নীতি, তারুণ্য ও শক্তির প্রতীক: সায়েম সোবহান আনভীর পুরস্কার তুলে দেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর , ছবি ও ভিডিও সোহেল সরওয়ার

বসুন্ধরা গ্রুপ করপোরেট সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি থেকে সমাজকল্যাণে অনেক ভূমিকা রাখছে। তারই ধারাবাহিকতায় বসুন্ধরা কাপ গলফ টুর্নামেন্টের আয়োজন করে দেশ সেরা শিল্প প্রতিষ্ঠানটি।

বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর বলেছেন, খেলাধুলা নীতি, তারুণ্য ও শক্তির প্রতীক।   

শনিবার (২২ জানুয়ারি) বেলা ২টায় ভাটিয়ারি গলফ অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে (বিজিসিসি) বসুন্ধরা কাপ গলফ টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সায়েম সোবহান আনভীর এসব কথা বলেন।  

বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, আমাদের ডায়নামিক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় খেলাধুলাকে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে থাকেন। বসুন্ধরা গ্রুপ শুধু শিল্প বা রিয়েল এস্টেট কোম্পানি নয়, ক্রীড়া ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র, শেখ জামাল, বসুন্ধরা কিংস পরিচালনা করছে বসুন্ধরা গ্রুপ। বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করছি গলফের প্রয়োজনে আমরা সব সময় পাশে থাকবো।

'প্লে গলফ, লাইভ লং' স্লোগানে শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) সকালে টুর্নামেন্ট শুরু হয়। শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় বেলুন উড়িয়ে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর ঘাঁটি জহুরুল হকের এয়ার অফিসার কমান্ডিং ও শাহীন গলফ ক্লাবের প্রেসিডেন্ট এয়ার ভাইস মার্শাল মো. জাহিদুর রহমান।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি, এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. সাইফুল আবেদিন।

জিওসি এ সময় বলেন, বসুন্ধরা কাপ গলফ টুর্নামেন্ট আমাদের চতুর্থ টুর্নামেন্ট। করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা এ টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছি। বসুন্ধরা গ্রুপ সবচেয়ে বড় করপোরেট হাউস। বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মি. আনভীর আগামীতেও গলফে পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এ ঘোষণাকে আমরা স্বাগত জানাই।  
পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে কর্নেল মামুনুর রশীদ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। ১৮০ জন গলফার টুর্নামেন্টে অংশ নেন।

আরও উপস্থিত ছিলেন নৌবাহিনীর চট্টগ্রাম এরিয়া কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল এম মোজাম্মেল হক, টুর্নামেন্ট চেয়ারম্যান ফরিদ উদ্দিন, বিজিসিসির সিইও লে. কর্নেল (অব.) মো. তৌফিকুল ইসলাম, বসুন্ধরা গ্রুপের পাবলিক রিলেশন ডিপার্টমেন্টের ডিজিএম স্কোয়াড্রন লিডার (অব.) গোলাম মোস্তফা, ম্যানেজার নৌবাহিনীর লে. (অব.) আবদুল মান্নান, বসুন্ধরা গ্রুপের এজিএম ( ব্রান্ড, সেক্টর বি) সাইফুল ইসলাম রুবেল প্রমুখ।
কোরআন তেলাওয়াত ও মোনাজাত করেন মাওলানা শাহ আলম।

১৮ হুইল উইনার, নাইন হুইল উইনার, লেডিস উইনার, জুনিয়র উইনার, বেস্ট গ্রস, সেকেন্ড বেস্ট গ্রস, লেডিস বেস্ট গ্রস, জুনিয়র উইনার, লংগেস্ট ড্রাইভ, বেস্ট পার ৫ এস, বেস্ট পার ৩ এস, নিয়ারেস্ট টু পিন, বেস্ট ব্যাক নাইন, বেস্ট ফ্রন্ট নাইন, প্রথম ও সেকেন্ড রানার আপের ক্রেস্ট তুলে দেন অতিথিরা।

মিনহাজ মো. শাকিল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন ও মেজর মো. ফারুকুজ্জামান ফকির রানার আপ হয়েছেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
এআর/এসআইএস/টিসি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa