ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ মে ২০২২, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩

খেলা

আপিল করেও হেরে গেলেন জোকোভিচ

স্পোর্টস ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২২
আপিল করেও হেরে গেলেন জোকোভিচ

অস্ট্রেলিয়ান ওপেন টেনিসে খেলতে শেষ ভরসা হিসেবে আদালতে গিয়েও হার মানতে হলো নোভাক জোকোভিচকে। ফলে খুব দ্রুতই তাকে অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে হতে পারে।

করোনা ভাইরাসের টিকা ছাড়া অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থান করা যাবে না, দেশটির সরকারের এমন সিদ্ধান্তের ওপরই বহাল থাকল অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল কোর্ট। ফলে মেলবোর্নে শুরু হতে যাওয়া বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামে অংশ নেওয়া হচ্ছে না সার্বিয়ান তারকার। যেখানে আগামী সোমবার প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে খেলতে নামার কথা ছিল আসরটির বর্তমান চ্যাম্পিয়নের।

রোববার আদালতে শুনানির সময় তিন বিচারকের প্যানেলের সামনে আপিল হয়। যেখানে অস্ট্রেলিয়া সরকারের দেওয়া নিষেধাজ্ঞা ‘অবৈধ এবং অযৌক্তিক’ বলে প্রমাণ করতে পারেননি জোকোভিচের আইনজীবি।

রজার ফেদেরার ও রাফায়েল নাদালের সঙ্গে যৌথভাবে রেকর্ড ২০বারের গ্র্যান্ড স্ল্যামজয়ী জোকোভিচ বর্তমানে মেলবোর্নের ইমিগ্রেশনের অধীনে একটি হোটেলে আটক অবস্থায় আছেন। এর আগে গত ৬ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়া ঢোকার পর এই হোটেলেই রাখা হয়েছিল তাকে।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন মন্ত্রী অ্যালেক্স হক বিশেষ ক্ষমতা প্রয়োগ করে জোকারের ভিসা বাতিল করে দেন।

অ্যালেক্স হক এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, 'জোকোভিচের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত জনস্বার্থেই নেওয়া হয়েছে। ' এই সিদ্ধান্তের কারণে অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে হতে পারে তাকে এবং পরের তিন বছর অস্ট্রেলিয়ায় ঢুকতে পারবেন না তিনি।

বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকার বিরুদ্ধে অভিযোগ, গত সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ায় ঢোকার সময় মিথ্যা তথ্য দিয়েছিলেন তিনি। হকের নেতৃত্বে তদন্ত দল এই অভিযোগের প্রমাণও পায়। অস্ট্রেলিয়া আসার ১৪ দিন আগে যে সার্বিয়া এবং স্পেনে গিয়েছিলেন, সেই তথ্য গোপন করেছিলেন জোকোভিচ।  

তবে মূল সমস্যা জোকোভিচের করোনা ভাইরাসের টিকা না নেওয়ায়। অস্ট্রেলিয়ার নিয়ম অনুযায়ী টিকা ছাড়া সেদেশে প্রবেশ নিষেধ। কিন্তু জোকোভিচের যুক্তি ছিল, গত ১৬ ডিসেম্বর তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। এজন্য টিকা নেওয়া থেকে ছাড় চেয়েছিলেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার আদালতও সেই যুক্তিতে সিলমোহর দিয়েছিল।

মাত্র ৪ দিন আগে জোকোভিচের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত খারিজ করে দিয়েছিল। কিন্তু এবার ফের ভিসা বাতিল হওয়ায় অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলার সম্ভাবনা প্রায় শেষ হয়ে গেল তার। কারণ এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ফের আদালতে যেতে হবে তাকে। কিন্তু আসর গড়াবে সোমবার থেকে। এর আগে বিষয়টি সুরাহা হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২২
এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa