bangla news

নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পেলেন শাহজাদ

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২৮ ৫:৩৬:৫৮ পিএম
মোহাম্মদ শাহজাদ/ছবি: সংগৃহীত

মোহাম্মদ শাহজাদ/ছবি: সংগৃহীত

অনুমতি ছাড়া পাকিস্তানে যাওয়ায় এক বছর নিষিদ্ধ হয়েছিলেন আফগানিস্তানের মোহাম্মদ শাহজাদ। তবে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই তার ক্ষমার আবেদন মঞ্জুর করেছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি)।

নিজের অপরাধ স্বীকার করে বোর্ডের কাছে ক্ষমার আবেদন জানিয়েছিলেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান শাহজাদ। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নতুন ঘোষণা এলো এসিবি’র পক্ষ থেকে। এসিবি এক টুইটে জানিয়েছে, খেলায় ফিরতে পারলেও চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত কেন্দ্রীয় চুক্তির বাইরেই থাকতে হবে শাহজাদকে।

২০১৯ সালের আগস্টে নীতিমালা ভাঙার দায়ে নিষিদ্ধ হন শাহজাদ। সেসময় এসিবি’র ডিসিপ্লিনারি কমিটি জানিয়েছিল, বোর্ডের অনুমতি ছাড়াই পাকিস্তানের পেশোয়ারে অনুশীলনের জন্য গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এসিবি জানিয়েছিল, 'দেশের মধ্যেই অনুশীলনের জন্য ভালো ব্যবস্থা রয়েছে এসিবির। আফগান ক্রিকেটারদের এই উদ্দেশে দেশের বাইরে যাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।'

শাহজাদের জন্ম যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের নাঙ্গারহারে হলেও বাবা-মায়ের সঙ্গে তার শৈশব কেটেছে পেশোয়ারের একটি শরণার্থী শিবিরে। সেখানে তার পরিবারের অনেকেই বসবাস করে। তাছাড়া তিনি সেখানে বিয়েও করেছেন। ফলে প্রায়ই পেশোয়ারে যেতে হয় তাকে। সেখানকার স্থানীয় ক্রিকেট লিগেও অংশ নিতে দেখা গেছে তাকে। এজন্য এর আগেও একবার বিপাকে পড়েছিলেন তিনি।

এর আগে ইনজুরির কারণ দেখিয়ে বিশ্বকাপের মাঝপথে দেশে ফেরত পাঠানো হয় শাহজাদকে। সে সময়, বোর্ডের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করে তিনি বলেন, ‘আমি জানি না ঠিক কী কারণে আমাকে আনফিট বলা হলো। বোর্ডের কতিপয় ব্যক্তি আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে। দলের কোচ ফিল সিমন্সও জানতেন না যে আমাকে বাদ দেয়া হচ্ছে। এটা অবশ্যই আমার জন্য হৃদয় বিদারক।’

বোর্ডও তাদের ব্যাখ্যায় সে সময়ে বলে, ‘সে (শাহজাদ) যা বলেছে তা পুরোপুরি ভুল। আইসিসির কাছে আমরা যথাযথ মেডিকেল রিপোর্ট দেয়ার পরই পরিবর্তিত খেলোয়াড় ডেকেছি। আমি বুঝতে পারছি যে দল থেকে বাদ পড়ায় মন খারাপ হয়েছে তার। কিন্তু আনফিট কাউকে তো আর বিশ্বকাপে নেয়া যায় না। তাই আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০
এমএইচএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-28 17:36:58