ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ মে ২০১৯
bangla news

গলফ উৎসব করলেন ক্রিকেটাররা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: -০০০১-১১-৩০ ১২:০০:০০ এএম

অনেকগুলো ক্লাব (স্টিক) ঝুড়িতে রাখা। প্রত্যেকেই একটি করে হাতে তুলে নেন। কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের প্রশিক্ষক এসে শট নেওয়া শেখান। খেলার প্রথম দিকে কিছুটা জড়তা ছিলো। আধাঘন্টার মধ্যেই সবাই কৌশল রপ্ত করে ফেলেন। দুই ঘন্টার জন্য গলফার হয়ে গেলেন ২৪ জন ক্রিকেটার।

ঢাকা: অনেকগুলো ক্লাব (স্টিক) ঝুড়িতে রাখা। প্রত্যেকেই একটি করে হাতে তুলে নেন। কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের প্রশিক্ষক এসে শট নেওয়া শেখান। খেলার প্রথম দিকে কিছুটা জড়তা ছিলো। আধাঘন্টার মধ্যেই সবাই কৌশল রপ্ত করে ফেলেন। দুই ঘন্টার জন্য গলফার হয়ে গেলেন ২৪ জন ক্রিকেটার।

সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল দেশে না থাকায় জাতীয় দলের প্রাথমিক ক্যাম্পের ২৪ জন ক্রিকেটার সকাল পৌঁনে নয়টায় কুর্মিটোলা গলফ কোর্সে পৌঁছান। এরপর শুরু হয় গলফ খেলা। নিছক বিনোদনের জন্য নয়, বড় উদ্দেশ নিয়েই গলফে ক্রিকেটারদের হাতেখড়ি চলে বেলা সোয়া ১১টা পর্যন্ত।

ব্যাটিংয়ের সঙ্গে গলফের কিছু মিল আছে। বিশেষ করে শট নেওয়ার সময় পেছন থেকে কাব টেনে নেওয়া (ব্যাকলিফট) এবং ফলোথ্রোর সঙ্গে হুবহু মিল। বাংলাদেশের প্রধান কোচ জেমি সিডন্স অনেকদিন ধরেই ক্রিকেটারদের ব্যাকলিফটে সমস্যা দেখছেন। পেছন থেকে ব্যাট টেনে হিট নেওয়ার প্রবণতা নেই অনেকের। যার ফলে ব্যাট সুইংয়ে তেমন জোর থাকে না। এসবের শুদ্ধি অভিযানের অংশ হিসেবে গলফে হিট নেওয়া শেখানো হয়েছে। যাকে বলে হাতে কলমের শিক্ষা।

সবাইকে আগে থেকেই এ বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা দিয়েছিলেন জেমি সিডন্স ও জুলিয়ান ফাউন্টেন। ঘটনাটি বুঝতে মোহাম্মদ আশরাফুলের তাই সমস্যা হয়নি। সাবেক অধিনায়ক বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলছিলেন,“ব্যাকলিফটে অনেকেরই সমস্যা আছে। আমার সমস্যাটা একটু বেশিই। সেটা শেখাতেই গলফে যাওয়া।”

দুই ঘন্টার সেশনে ক্রিকেটাররা কতটা গলফে দক্ষ হলেন বলা মুশকিল। তবে এ থেকে অন্তত ক্রিকেটের কিছুটা উপকার হবে সে বিষয়ে নিশ্চিত ব্যাটসম্যান আশরাফুল। তার দৃষ্টিতে,“বড় শট খেলার ক্ষেত্রে জোরে হিট নিতে হয়। বিশেষ করে ছয় হাঁকানোর সময়। গলফের শট নেওয়ার জন্য অনেক পেছন থেকে কাব টেনে আনতে হয়। এতে সুইং ভালো হয়। বলের ওপর জোরে আঘাত করা সম্ভব হয়।”

অধিনায়ক মাশরাফিরও একই কথা। একটা নতুন খেলা শিখেছেন। সেখানেই তার আনন্দ। সঙ্গে ক্রিকেটের জন্য ঔষধ হিসেবে কাজে লাগবে গলফের ব্যাকলিফট, ব্যাট সুইং ও ফলোথ্রো।

তবে পেসার নাজমুল হোসেন, উইকেটকিপার মুশফিকুর রহিম, সাহাদাত হোসেন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা কিন্তু ক্যান্টনমেন্টের সকালটা দারুণ উপভোগ করেছেন। তার বর্ণনাই বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে দিচ্ছিলেন নাজমুল,“অসাধারণ। ভাবতেই পারিনি গলফ খেলা এতটা মজার। কয়েক মিনিট সময় লেগেছে খেলাটা হাতে আনতে। এরপর কে কার আগে কত বেশি শট নিতে পারে। বল গর্তে ফেলতে উঠে পড়ে লেগেছিলাম আমরা। সবাই গর্তে ফালাতে পারেনি। আমি কিন্তু পেরেছি।”

মাশরাফিরা সিদ্দিকের প্রতিদ্বন্দ্বী হবে না। সিদ্দিকও ক্রিকেটারদের প্রতিদ্বন্দ্বী নন। একটি বিশেষ উদ্দেশ হাসিলের মধ্যেও অনেক বিনোদন থাকে। যা ক্লান্ত, পরিশ্রান্ত বা অবশাদ মনকেও চাঙ্গা করে দিতে পারে। এই যেমন দুই ঘন্টার গলফ প্র্যাকটিস দিয়েছে।

লায়লাতুল কদরের নফল ইবাদ বন্দেগীর জন্য যারা রাত জেগেছেন। জাতীয় দলের এমন ক্রিকেটারের কান্তিও কেটে গেছে গলফ কোর্সের নির্মল পরিবেশ আর খেলা থেকে বিনোদন পাওয়ায়।

এজন্য ক্রিকেটারদের কাছ থেকে ধন্যবাদ পেতেই পারেন ফিল্ডিং কোচ জুলিয়ান ফাউন্টেন ও প্রধান কোচ জেমি সিডন্স।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৬২২ ঘন্টা, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db