bangla news

নাসিমের হ্যাটট্রিকে ইনিংস পরাজয়ের শঙ্কায় বাংলাদেশ 

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-০৯ ৬:৫৭:৪৫ পিএম
মাহমুদউল্লাহকে আউটের পর নাসিমের উল্লাস: ছবি-সংগৃহীত

মাহমুদউল্লাহকে আউটের পর নাসিমের উল্লাস: ছবি-সংগৃহীত

পাকিস্তানি বোলারদের সামনে আবারও ব্যর্থ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৫ ওভারে স্কোরবোর্ডে ১২৬ রান জমা করতেই ৬ উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করেছে টাইগাররা। সফরকারীরা এখনও স্বাগতিকদের চেয়ে পিছিয়ে আছে ৮৬ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে হ্যাটট্রিক করে ইতিহাস গড়েছেন নাসিম শাহ। 

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের প্র্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট হয় ২৩৩ রানে। শান মাসুদ ও বাবর আজমের সেঞ্চুরিতে পাকিস্তান প্রথম ইনিংসে করে ৪৪৫ রান। 

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ২১২ রানে পিছিয়ে থেকে। শুরুতেই ভাল কিছু করার আভাস দিলেও দলীয় ৩৯ রানে সাইফ হাসানকে হারায় টাইগাররা। অভিষেক টেস্ট খেলতে নেমে প্রথম ইনিংসে শূন্যহাতে বিদায় নিয়েছিলেন এ ওপেনার। এবার ৪ চারে মাত্র ১৬ রান করে তিনি বোল্ড হন নাসিম শাহ’র বলে।  

সাইফের বিদায়ের পর চা বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। আর ফিরেই ইয়াসির শাহ’র বলে এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন সেট ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল (৩৪)। বিপর্যয়টা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে নাজমুল হাসান শান্ত ও অধিনায়ক মুমিনুল হকের ব্যাট।

কিন্তু ইনিংসের ৪০তম ওভারে বোলিংয়ে এসেই বাংলাদেশকে বড় ধাক্কা দেন নাসিম শাহ। রেকর্ড গড়া হ্যাটট্রিক করে বসেন তিনি। টেস্ট ইতিহাসের সর্ব কনিষ্ঠ বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক করেছেন নাসিম। ১৬ বছর ৩৫৯ দিনে এই রেকর্ড গড়েন তিনি। 

চতুর্থ বলে শান্তকে (৩৮) এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে ফেলার পর পরের দুই বলে তুলে নেন তাইজুল ইসলাম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।  দুজনই সাজঘরে ফেরেন খালি হাতে। 

এরপর স্কোরবোর্ডে আর মাত্র দুই রান যোগ হতেই ডাক মেরে বিদায় নেন মোহাম্মদ মিঠুনও। আগামীকাল চতুর্থদিন শুরু করবেন মুমিনুল (৩৭) ও লিটন দাস (০)। 

নাসিম ২৬ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। ইয়াসিরের শিকার দুটি। 

এর আগে রোববার (০৯ ফেব্রুয়ারি) দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তান তৃতীয় দিন শুরু করে ৩ উইকেটে ৩৪২ রান নিয়ে। তবে দিনের শুরুতেই টাইগারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে বেশিদূর এগোতে পারেনি তারা। স্কোরবোর্ডে আর ১০৩ রান যোগ করতেই হারায় বাকি ৭ উইকেট। 

দিনের শুরুতেই আগেরদিনে সেঞ্চুরিয়ান বাবরকে (১৪৩) ফেরান আবু জায়েদ। আগেরদিনও পাকিস্তানের শুরুতে ধাক্কা দিয়েছিলেন তিনি। নিয়েছিলেন দুই উইকেট। বাবরের পরপরই আসাদ শফিককে (৬৫) তুলে নেন এবাদত হোসেন। এরপর উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ান (১০) ও ইয়াসির (৫) ও শাহীন শাহ আফ্রিদিকে (৩) নিজের শিকারে পরিণত করেন রুবেল হোসেন। 

তবে টাইগারদের সামনে গলার কাঁটা হয়ে বসেন হারিস সোহেল। নবম উইকেটে হিসেবে তাইজুল ইসলামের বলে ব্যক্তিগত ৭৫ রানে আউট হোন তিনি। এরপর ৪৪৫ রানে শেষ উইকেট হিসেবে বিদায় নেন নাসিম শাহ (২)। ব্যক্তিগত ১  রানে অপরাজিত ছিলেন মোহাম্মদ আব্বাস। 

২৯ ওভারে ৮৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন আবু জায়েদ। ১১৩ রান খরচ করে সমান উইকেট নিয়েছেন রুবেলও। তাইজুলের শিকার দুটি। 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২০
ইউবি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-09 18:57:45