bangla news

মেসি-রোনালদোর পর কী তবে ফাতি-রদ্রিগো?

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-১৪ ৫:১০:০৪ পিএম
ফাতি ও রদ্রিগো

ফাতি ও রদ্রিগো

বলা হয়ে থাকে, ‘তুলনা আনন্দের চোর।’ তবে মাঝেমধ্যে এটি যেমন প্রতিযোগিতামূলক মনোভাব তৈরি করে তেমনি স্বাভাবিক জীবনযাত্রার ক্ষেত্রে খুব ক্ষতিকর হযেও দাঁড়ায়। অনেকে এই তুলনাকে এড়াতে পারে না কিছু্তেই।

বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের কথা উঠলেই সবার আগে আসে দু’টি নাম। লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গত এক যুগেরও বেশি এই দুই মহাতারকার দ্বৈরথ দেখছে ফুটবল সমর্থকরা। ভক্ত থেকে শুরু করে বিশ্লেষক-আলোচকরাও থেমে নেই এই দুই গোলমেশিনের তুলনা-প্রতিতুলনায়। 

কিন্তু একসময় ফুটবল থেকে অবসর নেবেন মেসি-রোনালদো। এরপর কোন দু’জন হয়ে ওঠবেন বিশ্ব ফুটবলের এমন ঘোর দুই প্রতিদ্বন্দ্বী? মেসি-রোনালদোর রাজত্ব শেষ হওয়ার আগেই অবশ্য সেই সমস্যার আংশিক সমাধান মিলেছে। 

এখন আমরা ঠিক তেমন দুই উঠতি ফুটবল তারকার তুলনায় যাব। একজন সদ্য সতেরো বছরে পা দেওয়া  ফরোয়ার্ড আনসু ফাতি। অন্যজন ১৮ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড রদ্রিগো। দুই সম্ভাবনাময়ী তারকাই খেলেন স্পেনের দুই চির শত্রু বার্সেলোনা এবং রিয়াল মাদ্রিদে। বার্সায় যুব দলে খেলে মুল দলে জায়গা করে নিয়েছেন ফাতি। অন্যদিকে ৪৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ব্রাজিলের ক্লাব সান্তোস থেকে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এসেছেন রদ্রিগো।

এই অল্প বয়সেই ক্যারিয়ারের শুরুতে দুর্দান্ত দায়িত্বপূর্ণতার সঙ্গে খেলছেন দুই টিনেজ তারকা। দলের অন্যান্য বড় তারকার ভিড়েও এই দু’জন স্পটলাইটটা টেনে নিয়েছেন নিজেদের দিকে। 

চ্যাম্পিয়নস লিগে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ফাতি-রদ্রিগোর রুদ্ররূপ দেখেছে প্রতিপক্ষ। ইন্টার মিলানের বিপক্ষে শেষ মুহুর্তে মাঠে নেমেই গোল পেয়েছেন ফাতি। ইতোমধ্যে অনেক গণমাধ্যম তাকে ডাকতে শুরু করেছে ‘নতুন মেসি’ নামে। 

নেরাজ্জুরিদের বিপক্ষে সেই ম্যাচের পর ইতালিয়ান দৈনিক পত্রিকা তুত্তোস্পোর্ট শিরোনাম দিয়েছে এভাবে, ‘ইন্টারকে শাস্তি দিয়েছেন নতুন মেসি।’ স্তাদিও গুইসেপ্পে মিয়াজ্জা মাঠে মূলত ফাতির সেই গোলেই চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে যাওয়ার স্বপ্ন ভেঙে যায় আন্তনিও কন্তের শিষ্যদের। 

ঐ একটি গোলেই চ্যাম্পিয়নস লিগ ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে গোল করে অনন্য নজির গড়েন ফাতি। মাত্র ১৭ বছর ৪০ দিন বয়সেই এমন মাইলফলকে পা রাখেন বার্সেলোনার তরুণ এই সদস্য।

ফাতি গোল পেয়েছেন, বসে থাকেননি রদ্রিগো। পরেরদিন ক্লাব ব্রুগের বিপক্ষে গোল উদযাপন করেন তিনিও। ৫৩ মিনিটে রদ্রিগোর গোলে এগিযে গিয়েই বড় জয় পায় রিয়াল মাদ্রিদ।

ইতোমধ্যে লস ব্লাঙ্কোসদের নামী সব তারকাদের ভিড়েও কোচ জিনেদিন জিদানের প্রিয় ফরোয়ার্ড হয়ে ওঠেছেন রদ্রিগো। ব্রাজিলিয়ান তারকা যে ভবিষ্যতের বড় তারকা হতে চলেছেন তা প্রমাণ পাওয়া গিয়েছিল বার্নাব্যুতে তার অভিষেক ম্যাচেই। ওসাসুনার বিপক্ষে সেই ম্যাচে গোলের পর মুগ্ধতা জাগানিয়া পারফর্ম করেই যাচ্ছেন রদ্রিগো।

বার্নাব্যুতে তারচেয়ে এক বছরের বড় স্বদেশি ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস জুনিয়র থাকলেও কোচ জিদান আস্থা রাখছেন রদিগ্রোর উপর। কারণ সুযোগ পেলেও গোলের দেখা পাচ্ছেন না ভিনিসিয়াস। 

ফাতি-রদ্রিগোর দুই তারকাই লা লিগায় অভিষেক হয়েছে চলতি মৌসুমে। ইতোমধ্যে বার্সার জার্সিতে ৯ ম্যাচে ২ গোল করেছেন ফাতি। ৭ ম্যাচে সমান গোল করেছেন রদ্রিগো-ও।

তবে এখনো তাদের মুখোমুখি সাক্ষাৎ হয়নি। সেইদিন অবশ্য বেশি দূরে নয়। ১৮ ডিসেম্বর মৌসুমের প্রথম এল ক্ল্যাসিকোতে দেখা হয়ে যেতে পারে তাদের। 

বাংলাদেশ সময়: ১৭০৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
ইউবি 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ফুটবল
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-14 17:10:04