bangla news

আবারও সীমান্তের হাত ধরে সোনার পদক

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-০৭ ১২:৪৯:৫২ পিএম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ভারোত্তলনে গত এসএ গেমসে সোনা জেতার পর কেঁদে আলোচিত হয়েছিলেন ভারত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত। চলমান ১৩তম এসএ গেমসে আবারও বাংলাদেশকে সোনার পদক পাইয়ে দিয়েছেন সীমান্ত। ৭৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে স্বর্ণ জিতেছেন তিনি।

৮১ কেজিতে রৌপ্য জিতেছেন বাংলাদেশের জোহরা খাতুন নিশা।

গতবার পদক গ্রহণের সময় সীমান্তের কেঁদে ওঠার ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। এবার স্বর্ণ জিততে তিনি হারিয়েছেন শ্রীলঙ্কার প্রিয়ান্থিকে।

এই নিয়ে পঞ্চম স্বর্ণ জিতলো বাংলাদেশ। বাংলাদেশকে প্রথম পদক এনে দিয়েছিলেন হুমায়রা আক্তার অন্তরা। তবে সেটি ছিল ব্রোঞ্জ। তায়কোয়ান্দোতে এবার বাংলাদেশ প্রথম সোনার পদক জেতে। দিপু চাকমা পাইয়ে দেন প্রথম স্বর্ণ। তায়কোয়ান্দোতে ছেলেদের এককে পুমসায় ২৯ অথবা এর বেশি ওজনে ভারতের প্রতিযোগীকে হারিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম সোনা জেতান রাঙামাটির ছেলে দিপু।

এরপর কারাতে কুমিতে সোনা জেতেন আল আমিন। সেটি ছিল বাংলাদেশের দ্বিতীয় সোনার পদক। কারাতে ইভেন্টের ৬০ কেজি ওজন শ্রেণি কুমিতে সোনা পাইয়ে দেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আল আমিন। দেশের তৃতীয় স্বর্ণ জেতেন বাংলাদেশের আরেক খেলোয়াড় মারজানা আক্তার প্রিয়া। এসএ গেমসে দেশের পক্ষে তৃতীয় সোনার পদক আসে মেয়েদের কারাতে ইভেন্টে। মেয়েদের অনূর্ধ্ব-৫৫ কেজি কুমি ইভেন্টে সোনা জেতেন মারজানা।

বাংলাদেশকে ১৩তম আসরে প্রথম পদক পাইয়ে দেওয়া হুমায়রা আক্তার অন্তরা বাংলাদেশ চতুর্থ সোনার পদক পাইয়ে দেন। কারাতে ৬১ কেজি কুমিতে স্বর্ণ জেতেন অন্তরা। নেপালের অনু গুরুংকে ৫-২ পয়েন্টে হারান তিনি। এরপর চারদিন বিরতি দিয়ে আজ আবারও সোনার মুখ দেখেছে বাংলাদেশ। দেশকে পঞ্চম স্বর্ণ পাইয়ে দিয়েছেন মাবিয়া আক্তার সীমান্ত।

স্বর্ণ জয়ের হিসেবে গতকাল পর্যন্ত পদক তালিকার শীর্ষে আছে ভারত। ১৭৭টি পদক জিতেছে ভারত। এর মধ্যে আছে ৮৯টি স্বর্ণ, ৬১টি রৌপ্য আর ২৭টি ব্রোঞ্জ পদক। ৪১টি স্বর্ণ, ২৭টি রৌপ্য আর ৫১টি ব্রোঞ্জ সহ মোট ১১৯টি পদক জিতে গতকাল পর্যন্ত দুইয়ে স্বাগতিক নেপাল। তিন নম্বরে থাকা শ্রীলঙ্কার অ্যাথলেটরা জিতেছেন ২৪টি স্বর্ণ, চারে থাকা পাকিস্তান জিতেছে ২০টি স্বর্ণ। আজ মাবিয়ার হাত ধরে বাংলাদেশ পেয়েছে পঞ্চম স্বর্ণ। এছাড়া, ১৯টি রৌপ্য আর ৫২টি ব্রোঞ্জ নিয়ে বাংলাদেশের পদকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৫টি।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
এমআরপি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-07 12:49:52