ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৭ আগস্ট ২০২০, ১৬ জিলহজ ১৪৪১

ফুটবল

চোটের মহামারিতে ভুগছে রিয়াল মাদ্রিদ

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৬, ২০১৯
চোটের মহামারিতে ভুগছে রিয়াল মাদ্রিদ ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছাড়ছেন হ্যাজার্ড: ছবি-সংগৃহীত

সামনে রিয়াল মাদ্রিদের জন্য সবচেয়ে বড় পরীক্ষা। ১৮ ডিসেম্বের মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোতে ক্যাম্প ন্যুয়ে যাবে জিনেদিন জিদানের দল। অথচ চির প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার মুখোমুখি হওয়ার আগে স্বস্তিতে নেই লস ব্লাঙ্কোসরা। তারকাদের একের পর এক চোটের মহামারিতে আক্রান্ত হওয়ায় নির্ঘুম রাত কাটছে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর কর্মকর্তাদের। 
 

২০১৯/২০ মৌসুমের মাত্র চার মাসেই রিয়ালের স্কোয়াডের ২৯ জনের মধ্যে ১৬ জনই এখন যুদ্ধ করছে চোটের বিরুদ্ধে। এবার সেই দীর্ঘ তালিকায় নতুন যুক্ত হয়েছে আরও দুই তারকা মার্সেলো ও গ্যারেথ বেলের নাম।

 

চোটাক্রান্ত খেলোয়াড়দের বাইরে কেবল সুস্থ আছেন গোলরক্ষক আলফোনসো আরিওলা, দানি কারভাহাল, রাফায়েল ভারানে, সার্জিও রামোস, আলভারো ওদ্রিওজোলা, কাসেমিরো, করিম বেনজেমা, মারিয়ানো দিয়াজ ও ভিনিসিয়াস জুনিয়র।  

কিন্তু আসল অস্ত্রগুলো ছাড়া জিদান যুদ্ধে ‍নামবেন কিভাবে! চ্যাম্পিয়নস লিগ ও লা লিগা মিলিয়ে যে কয়েকটা কঠিন লড়াই তাদের সামনে। অথচ তার আগে ইডেন হ্যাজার্ড, লুকা মদরিচ, আসানসিও, ইস্কো, থিবু কোর্তোয়া, টনি ক্রুস, হামেজ রদ্রিগেজদের মতো তারকারা কবে সুস্থ হয়ে ওঠেন সেইদিকে চেয়ে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে জিজুকে।  

জিদান আশা করেছিলেন, এল ক্লাসিকোর আগে হ্যাজার্ডকে পাবেন। কিন্তু ফর্মের তুঙ্গে থাকা বেলজিয়ান ফরোয়ার্ডকে বাইরে রেখেই এখন কৌশল সাজাতে হবে রিয়াল কোচকে। চ্যাম্পিয়নস লিগে পিএসজির বিপক্ষে পাওয়া চোটের কারণে আরো কয়েকটা দিন বেঞ্চে বসে কাটাতে হবে হ্যাজার্ডকে।  

অবশ্য রিয়াল একটি জায়গায় স্বস্তি পেতে পারে এই ভেবে যে, গত মৌসুমে তাদের ২৩ খেলোয়াড় ৫০ বার চোটে পড়েছিল। এবার সেই জায়গায় তার অর্ধেক। এবার দেখা যাক, রিয়াল তারকারা কে কিভাবে কখন চোটে পড়েছে এবং কয়দিন ধরে মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে তার হিসেব।  

ব্রাহিম: প্রথমবার চোটে পড়েন এ বছরের ১৪ জুলাই। বাম উরুতে চোট পেয়ে সেবার ৩৪ দিন ছিলেন মাঠের বাইরে। ফেরাটাও তার স্থায়ী হয়নি। ২০ আগস্ট পুনরায় চোটে পড়েন তিনি। এবার ডান উরুতে। যার কারণে ৫৯ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হয় ব্রাহিমকে।

আসানসিও: কোচ জিদানের অন্যতম পছন্দের ফরোয়ার্ড। গত ২৪ জুলাই বাম হাঁটুতে চোট পান তিনি। এরপর থেকে সাত-আট মাস মাঠের বাইরে স্প্যানিশ তারকা।  

জোভিচ: গত জুলাইয়ে বাম পায়ের গোড়ালিতে চোট পান তিনি। যার ফলে ১২ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন জোভিচ।  

মেন্দি: প্রথমবার ব্রাহিমের মতো মেন্দিও ২৫ জুলাই বাম উরুতে চোট পেয়ে ৩৮ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন। ২৩ সেপ্টেম্বর বাম পায়ের সংযোজক পেশিতে চোট পান তিনি। মাঠের বাইরে থাকেন ২৭ দিন।  

থিবু কোর্তোয়া: গত ২৯ জুলাই বাম পায়ের গোড়ালি মচকে যায় কোর্তোয়ার। যার ফলে মাঠের বাইরে থাকতে হয় ১০ দিনের জন্য। এরপর ০১ অক্টোবর হঠাৎ অসুস্থতা অনুভব করেন বেলজিয়ান গোলরক্ষক। মাঠের বাইরে থাকেন আরো ৯দিন।

লুকা মদরিচ: রিয়ালের মাঝমাঠের ভরসা মদরিচের চলতি মৌসুমটা কাটছে চোটের সঙ্গে ‍যুদ্ধ করে। এই বছরই তিনবার চোটে পড়েছেন ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার। প্রথমবার গত ৭ আগস্ট, হ্যামস্ট্রিংয়ে। ছিটকে যান ৪ দিনের জন্য। দ্বিতীয়বার ১২ সেপ্টেম্বর, ডান পায়ের সংযোজক পেশিতে। এবার তাকে মাঠের বাইরে থাকতে হয় ১৬ দিনের জন্য। শেষবার ১২ অক্টোবর। ডান উরুর সামনে পাওয়া এই চোট থেকে সেরে ওঠতে তার সময় লাগে ২৭ দিন।  

রদ্রিগো: রিয়ালের এই তরুণ তারকা চোট পান ১৪ আগস্ট, ডান উরুতে। মাঠের বাইরে থাকতে হয় ৩২ দিন।  

ইডেন হ্যাজার্ড: চলতি মৌসুমে বার্নাব্যুতে এসে দু’বার চোটে পড়েছেন হ্যাজার্ড। প্রথমবার ১৬ আগস্ট, বাম উরুতে চোট পেয়ে ৩০ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন। এরপর গত ২৬ নভেম্বর পিএসজির বিপক্ষে ম্যাচে ডান পায়ের গোড়ালিতে বড় ধরণের চোটের শিকার হোন তিনি। ১০ দিন পার হয়ে গেলেও আপাতত চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন বেলজিয়ান তারকা।  

হামেস রদ্রিগেজ: চলতি মৌসুমে চারবার চোটে পড়েছেন রদ্রিগেজ। ২৫ আগস্ট মাংস পেশির চোটে পড়ে ২০ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন তিনি। ৩০ সেপ্টেম্বর ফের চোটে পড়ে ৫ দিন চলে যায় তার সুস্থ হতে। ২২ অক্টোবর মাংসেপেশিতে টান অনুভব করায় ২৫ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন তিনি। এরপর গত ১৪ নভেম্বর বাম হাঁটুর লিগামেন্টে চোট পান কলম্বিয়ান মিডফিল্ডার। এরপর থেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন রদ্রিগেজ।  

ইস্কো: গত ২৮ আগস্ট ডান উরুতে চোট পেয়ে ৩৫ দিন মাঠের বাইরে কাটাতে হয় স্প্যানিশ তারকাকে।  

ফেডে ভালভার্দে: গত ১৩ সেপ্টেম্বর উরুতে চোট পেয়ে ১০ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হয় ভালভার্দেকে।

মার্সেলো: রদ্রিগেজের মতো মার্সেলোও চলতি মৌসুমে যুদ্ধ করছে চোটের বিপক্ষে। ১৫ সেপ্টেম্বর গলায় চোট পেয়ে ১৭ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হয়ে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে। ০১ অক্টোবর উরুর ইনজুরিতে পড়ে ১৮ দিন এবং ০৬ নভেম্বর ডান উরুতে পাওয়া চোট তার থেকে কেড়ে নেয় আরো ১৭ দিন। এবার গত ০৫ ডিসেম্বর ফের বাম পায়ের পেশির চোটে পড়েছেন মার্সেলো। আপাতত অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য মাঠের বাইরে থাকতে হবে তাকে।  

নাচো: ০১ অক্টোবরে ডান হাঁটুতে পাওয়া এক ইনজুরিতেই ৫৬ দিন কেড়ে নেই নাচোর।  

টনি ক্রুস: গত ০৫ অক্টোবর বাম পায়ের সংযোজক পেশিতে চোট পাওয়ায় ১৬ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন জার্মান মিডফিল্ডার।  

লুকাস ভাসকুয়েজ: ১১ অক্টোবর ডান উরুতে আরামবোধ না করায় ২৯ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন লুকাস। ফিরলেও ২১ নভেম্বর ফের বাম পায়ের বৃদ্ধাঙ্গুলে চোট পান তিনি। আপাতত সুস্থ হওয়ার লড়াই করছেন এই স্পেনিয়ার্ড।  

গ্যারেথ বেল: রিয়ালের চোটের মহামারির তালিকার সর্বশেষ সংযোজন বেল। ফর্মের পাশাপাশি চোট নিয়েও যুদ্ধ করতে হচ্ছে তাকে। ১৩ অক্টোবর পেশির চোটে পড়ে ৩৪ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন ওয়েলস উইঙ্গার। গত ৩০ নভেম্বর বাম উরুতে চোট পান তিনি। আপাতত তারও অবস্থা চিকিৎসাধীন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
ইউবি  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa