bangla news

ভারতের বিশ্বমানের বোলারদের কীভাবে সামলাবে বাংলাদেশ?

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-১২ ৮:৪১:১৭ পিএম
মোহাম্মদ মিঠুন/ফাইল ছবি

মোহাম্মদ মিঠুন/ফাইল ছবি

ভারতের বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত টি-টোয়েন্টি সিরিজে হেরে গেলেও, প্রথম ম্যাচে পাওয়া ‘ঐতিহাসিক’ জয় থেকে নিশ্চয়ই অনুপ্রেরণা খুঁজবে বাংলাদেশ। যে ফরম্যাটে ভারতের কাছে আগে শুধু নাস্তানাবুদ হতে হয়েছে, সেই টি-টোয়েন্টিতে তাদেরই মাটিতে জয় পাওয়া বড় অর্জন সন্দেহ নেই। কিন্তু টেস্ট ফরম্যাটের ভারত আরও বেশি শক্তিশালী। বিশেষ করে ভারতের বিশ্বমানের বোলিং লাইনআপ সামলাতে টাইগারদের বেশ বেগ পেতে হবে।

১৪ নভেম্বর ইন্দোরের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের যাত্রা। দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে। এই ম্যাচটি আবার হবে দিবারাত্রির তথ্য গোলাপি বলের, যা দুই দলের জন্যই নতুন অভিজ্ঞতা। 

সফরকারী দল ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের দারুণ সুযোগ মিস করার হতাশা ভুলে নতুন অধিনায়ক মুমিনুল হকের নেতৃত্বে টেস্ট ক্রিকেটে মনোনিবেশ করতে চলেছে। তবে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুনের মতে, সিরিজ হারলেও প্রথম ম্যাচ জয়ের প্রাপ্তি দলের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে বড় ভূমিকা রাখছে।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে মিঠুন বলেন, ‘অতীতে, টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে হারানো অসম্ভব মনে হতো, তাও আবার তাদের মাটিতে। কিন্তু আমাদের খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস ছিল। আমরা যখনই খেলি, তা শক্তিশালী কিংবা সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে হোক না কেন, আমরা ম্যাচ জেতার চেষ্টা করি। অনেক সময় এটা (জয় পাওয়া) হয় আবার অনেক সময় হয় না। শেষ ম্যাচে সুযোগ পেয়েও জিততে না পারায় আমরা হতাশ এবং সেই দুঃখ ভুলে আমরা টেস্ট সিরিজে ভালো করার দিকে নজর দিচ্ছি।’

‘আমরা ম্যাচ জেতার জন্যই মাঠে নামবো। এটা টি-টোয়েন্টি নয় যে আমরা দ্রুত জেতার চেষ্টা করব। এখানে (টেস্টে) প্রতিটা সেশন গুরুত্বপূর্ণ। দিনের প্রথম দুই ঘণ্টা যেমন গুরুত্বপূর্ণ, শেষ দুই ঘণ্টাও তেমনই। তাই জিততে হলে আমাদের সেশন ধরে ধরে এগোতে হবে।’

প্রথম দিনের অনুশীলনে বাংলাদেশ দল প্রথমবারের মতো নতুন টেস্ট ব্যাটিং পরামর্শক নেইল ম্যাকেঞ্জির সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছে। সাদা বলের ক্রিকেটে তার পরামর্শ পেলেও লাল বলে এবারই প্রথম। পরিবারকে সময় দেওয়ার কারণে তিন ফরম্যাটে কাজে অনাগ্রহ দেখালেও বিসিবি’র অনুরোধে সিরিজের প্রথম টেস্টে দলের সঙ্গে থাকতে রাজি হয়েছেন সাবেক প্রোটিয়া ওপেনার। 

দায়িত্ব নিয়েই দলের অনুশীলনে কিছু পরিবর্তন এনেছেন ম্যাকেঞ্জি। নেটে অনুশীলন করার সময় ব্যাটসম্যানের জন্য শর্ট লেগ এবং সিলি পয়েন্টে দুটি স্ট্যাম্প কাপড় দিয়ে ঢেকে দিয়েছিলেন, যাতে ব্যাটসম্যান শট খেলার সময় স্ট্যাম্প দুটিকে দুই ফিল্ডার ভেবে শট খেলেন। এছাড়া ভারতীয় পেসারদের সামলানোর জন্য শিষ্যদের বিশেষ কসরত করিয়েছেন। এই পর্যায়ে ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারান থ্রি কোয়ার্টার লেন্থে  আন্ডারআর্ম বল থ্রো করেছেন আর কয়েকজন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা সেগুলো ছেড়ে খেলার অনুশীলন করেছেন।

ম্যাকেঞ্জির প্রথম অনুশীলন সেশন শেষে মিঠুন বলেন, ‘আমরা সবাই তাদের (ভারতের) বোলিং লাইনআপ সম্পর্কে জানি। আমরা তাদের স্পিনারদের সামলানোর অনুশীলন করছি কারণ তাদের পেসারদের চেয়ে স্পিনারদের সামলানো কঠিন হবে। প্রথম দুদিন ব্যাটিং করা সহজ হবে কিন্তু এরপর তাদের স্পিনাররা আমাদের ব্যাটসম্যানদের এগিয়ে এসে খেলতে বাধ্য করতে চাইবে। তাদের সামনালোর জন্য আমরা কিছু টেকনিক্যাল বিষয়ের ওপর জোর দিচ্ছি।’

‘আমরা তাদের (ভারতের) দুর্বলতা খোঁজার বদলে নিজেদের শক্তি বাড়ানোর দিকে মন দিচ্ছি কারণ তাদের মাটিতে সাম্প্রতিক সময়ে কোনো দলই ভালো করতে পারেনি। আমরা এখানে ভালো করতে চাই। অবশ্যই কাজটা সহজ নয় এবং এজন্য আমাদের প্রচুর শ্রম দিতে হবে। তাদের পাঁচ বোলারদের কাউকেই সহজভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই কারণ তারা সবাই বিশ্বমানের। ফলে কোনো একজন বোলারকে লক্ষ্য বানানোর সুযোগ নেই। তাদের সবার বিপক্ষেই আমাদের সর্বোচ্চটা দিতে হবে,’ যোগ করেন মিঠুন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪১ ঘণ্টা, নভেম্বর ১২, ২০১৯
এমএইচএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-11-12 20:41:17