bangla news

দেশের ক্রিকেটে সুদিন ফিরবে, আশাবাদী মিঠুন

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৩ ৪:৫৯:২৯ পিএম
মোহাম্মদ মিঠুন/ফাইল ছবি

মোহাম্মদ মিঠুন/ফাইল ছবি

বিশ্বকপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের পর বেশ আত্মবিশ্বাসী ছিল বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে নবম স্থানে থেকে শেষ করলেও বাংলাদেশের লড়াকু মনোভাব বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছিল। তবে এরপর শ্রীলঙ্কা সফরে ওয়ানডে সিরিজ হোয়াইটওয়াশ হওয়ার আর ঘরের মাটিতে আফগানিস্তানের কাছে টেস্টে পরাজয় মিলিয়ে আবারও ব্যাটফুটে চলে যায় দেশের ক্রিকেট।

ত্রিদেশীয় সিরিজে ঘুড়ে দাঁড়ানোর প্রত্যয়ে অবশ্য কিছুটা ভালো ক্রিকেট খেলে টাইগাররা। তবে সার্বিকভাবে সেখানেও বাংলাদেশের পারফরম্যান্স হতাশাজনক।

এদিকে জাতীয় দলের ব্যর্থতার মাঝে সাফল্যের পতাকা তুলে ধরেছে বাংলাদেশের যুবারা। শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের বিপক্ষে শনিবার (১২ অক্টোবর) তাদের মাটিতে শেষ ওয়ানডে ম্যাচে ৯৮ রানে হারিয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। শ্রীলঙ্কার মাটিতে ‘এ’ দলের এই সিরিজ জয়টাকে মোটেও হালকাভাবে নিচ্ছেন না অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন।

রোববার (১৩ অক্টোবর) শ্রীলঙ্কা থেকে দেশে ফিরে একথা জানিয়েছেন মিঠুন। তিনি বলেন, ‘সিরিজটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কারণ বাংলাদেশের ক্রিকেটের সময়টা এখন ভালো যাচ্ছে না। ক্রিকেটের মোমেন্টামটা আবার ফিরে আসুক সেই চিন্তাটাই আমাদের মনে কাজ করছিল। হোক না এটা ‘এ’ দল, জাতীয় দলের পরেই তো। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যদি ওদের মাটিতে জিততে পারি তাহলে অবশ্যই এটা আমাদের জন্য একটা বড় পাওয়া হবে। সবাই সবার দিক থেকে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ছিল। সবার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছে। সবার প্রতিশ্রুতির কারণেই ফলাফলটা পাওয়া গেছে।’

ভারতের বিপক্ষে সিরিজের আগে এই জয় ব্যক্তিগতভাবে নিজের আত্মবিশ্বাস ফিরে পেতেও সাহায্য করবে বলে মনে করেন মিঠুন, ‘শ্রীলঙ্কার ভালো বোলিং আক্রমণ ছিল। ভালো বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে বেশ কিছু ভালো কিছু ইনিংস খেলেছি। সেগুলো অবশ্যই আমার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে কাজে দেবে।’

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১৯
আরএআর/এমএইচএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-13 16:59:29