ঢাকা, সোমবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

প্রথম ৪ ব্যাটসম্যান হারিয়ে বিপাকে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-১৩ ১০:১২:৫৩ পিএম
ছবি: শোয়েব মিথুন

ছবি: শোয়েব মিথুন

জিম্বাবুয়ের ছুড়ে দেওয়া ১৪৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে বিপাকে পড়ে গেছে বাংলাদেশ। দলীয় ২৬ রানেই চাতারার বলে বোল্ড হয়ে বিদায় নেন লিটন (১৯)। আর চতুর্থ ওভারে বিদায় নেন সৌম্য সরকার (৪)। এরপর জার্ভিসের করা ওই ওভারে অসাধারণ বাউন্সে ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন মুশফিকও। এরপর সাকিবকে বিদায় করে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন চাতারা। ২৯ রানেই ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এর আগে ‘অখ্যাত’ রায়ান বুর্লের ঝড়ো ফিফটিতে ১৮ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রান সংগ্রহ করেছে জিম্বাবুয়ে।

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) মিরপুরের শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টসে জিতে ফিল্ডিং বেছে নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। কয়েক দফা বৃষ্টির হানায় ম্যাচ শুরু হয়ে দেড় ঘণ্টা পর। বৃষ্টির কারণে ম্যাচের প্রতি ইনিংসের দৈর্ঘ্য কমিয়ে আনা হয় ১৮ ওভারে। 

শুরুতে ব্যাটিং করতে নেমে চাপে টাইগারদের দাপুটে বোলিংয়ে চাপে পড়ে যায় জিম্বাবুয়ে। এক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা যা একটু লড়লেন। তবে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের শিকার হয়ে জিম্বাবুয়ে অধিনায়কের বিদায়ের পর পথ হারায় জিম্বাবুয়ে ইনিংস। 

এরপর সাকিবের থ্রোয়ে মারুমাকে রান আউটের শিকার বানিয়েছেন মোস্তাফিজ। আর বাকি ৪টি উইকেট ভাগ করে নিয়েছেন তাইজুল, সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজ ও মোসাদ্দেক। ১০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে সফরকারীদের সংগ্রহ ৬৪ রান।

জিম্বাবুয়ে ইনিংসে প্রথম আঘাত হানেন তাইজুল ইসলাম। মাত্রই প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে নেমে প্রথম বলেই উইকেট পেয়েছেন এই বাঁহাতি স্পিনার। এই নিয়ে একটা রেকর্ডও গড়লেন। টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে অভিষেক ম্যাচে নিজের প্রথম বলেই উইকেট পাওয়া ১৫তম বোলার তিনি।

তাইজুলের আঘাতের পর ৩৪ রানের ইনিংস খেলে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন মাসাকাদজা। কিন্তু সাইফউদ্দিনের বলে সাব্বির রহমানের অসাধারণ এক ক্যাচ হয়ে বিদায় নেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক। 

এর আগে ক্রেইগ আরভিনকে মোসাদ্দেক হোসেনের ক্যাচ বানান মোস্তাফিজ। এরপর উইলিয়ামসকে কট অ্যান্ড বোল্ড করে নিজের প্রথম ওভারের প্রথম বলে উইকেট তুলে নেন মোসাদ্দেক। পরের ওভারে মোস্তাফিজের ওভারে রান আউট হন মারুমা। ৫১ থেকে ৬৩ অর্থাৎ ১২ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

কিন্তু ৫ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে যাওয়া জিম্বাবুয়েকে টেনে তোলেন রায়ান বুর্ল ও মুতোম্বুজি। বুর্ল তো রীতিমত তাণ্ডব চালিয়েছেন। বিশেষ করে সাকিবের ওভারে। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবের শেষ ওভারে ৩০ রান তুলে নিয়েছেন তিনি। ৩ চার ও ৩ ছক্কার সহায়তায় মাত্র ২৮ বলেই তিনি তুলে নেন ফিফটি। শেষ পর্যন্ত বুর্ল ৫৭ রানে অপরাজিত থাকেন। মুতোম্বোজি অপরাজিত থাকেন ২৭ রানে।

বাংলাদেশ সময়: ২২১০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর, ২০১৯
এমএইচএম

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-13 22:12:53