ঢাকা, সোমবার, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

আগের নিয়মের পক্ষে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-২২ ১:৫৫:১৪ এএম
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের স্বত্ত্বাধিকারী নাফিসা কামাল

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের স্বত্ত্বাধিকারী নাফিসা কামাল

বিপিএল ক্রিকেটের পুরনো নিয়মের পক্ষেই মত দিয়েছে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

বুধবার (২১ আগস্ট) বিকেলে বিসিবি কার্যালয়ে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সঙ্গে আলোচনা শেষে সংবাদ মাধ্যমকে এতথ্য জানান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের স্বত্ত্বাধিকারী নাফিসা কামাল।

ফ্র্যাঞ্চাইজিটি অভিযোগ করে বলেছে যে, বিপিএল থেকে এখন পর্যন্ত তারা লাভের মুখ দেখেনি। তাই গেল বছরের মত যদি এবারও লোকসান অব্যাহত থাকে তবে অষ্টম আসর থেকে তারা আর অংশ নেবে না।

নাফিসা কামাল বলেন, ‘আমাদের পয়েন্ট হলো যদি গত আসরটিকে বিপিএলের ইতিহাসে সবচাইতে সফল বলা হয় তাহলে আমি কেন সেই মডেলটি বদলে নতুন মডেল তৈরি করবো? আমাদের বোর্ড সভাপতি জানিয়েছেন বিপিএলে কোনো নিয়ম পরিবর্তন করা হয়নি, হয় না। তো আমরা ওনার কথাকে সম্মান করেই সফল মডেলের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’

তবে কুমিল্লার সবচেয়ে বড় অভিযোগ হলো বিপিএল থেকে লাভ যা করার তা সব বিসিবি করছে। বিগত আসরগুলো থেকে তারা একটি টাকাও লাভের মুখ দেখেনি। এভাবে চলতে থাকলে অষ্টম আসর থেকে তারা অংশ নেবে না।

নাফিসা কামাল জানান, ‘সাত বছর আমরা বিপিএল খেলছি। আমরা ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর মধ্যে পুরনো। এর আগে আমি সিলেটের সঙ্গে ছিলাম। এখন পর্যন্ত ব্রেক ইভেনে আসতে পারিনি। শুধু আমরা না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি এখনো ব্রেক ইভেনে আসতে পারেনি। এটা আমাদের সবার জন্য লস প্রজেক্ট। আগামী বছর বিপিএলে থাকবো কিনা সেটা নিয়ে এখন চিন্তা করতে হবে।’

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের এই স্বত্ত্বাধিকারীর মতে টুর্নামেন্টগুলো এক তরফাভাবে হচ্ছে। এক্ষেত্রে গ্রাউন্ড রাইটস বা টিকিট রাইটসের অংশ তাদের ওপর ছেড়ে দেওয়ার কথা জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ০১৫৩ ঘণ্টা, আগস্ট ২২, ২০১৯
আরএআর/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বিপিএল
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-22 01:55:14