bangla news

ছোটবেলার ঈদগুলো বেশ মজার ছিল: সোহান

মেহেরিনা কামাল মুন, নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-১২ ১২:২৮:১৫ পিএম
সস্ত্রীক সোহান। ফেসবুক থেকে নেওয়া ছবি

সস্ত্রীক সোহান। ফেসবুক থেকে নেওয়া ছবি

অনেক দিন থেকেই নেই জাতীয় দলে। ২০১৮ সালের জুলাইয়ে সর্বশেষ সাদা পোশাকে দেখা গেছে জাতীয় দলের হয়ে ক্রিকেটে। সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলেছেন আরও আগে। তবে নিয়মিত খেলে যাচ্ছেন ঘরোয়া ক্রিকেট, বাংলাদেশ ‘এ’ ও হাইপারফরমেন্সের হয়ে।

বলছিলাম ২৫ বছর বয়সী তরুণ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান কাজী নুরুল হাসান সোহানের কথা। সম্প্রতি (৭ আগস্ট) বাবা হয়েছেন এক কন্যা সন্তানের। জাতীয় দল নিয়ে কিছুটা আক্ষেপ থাকলেও সময়টা বেশ ভালোই কাটছে এখন।

তারকা এ ক্রিকেটারের সঙ্গে ঈদ ও ঈদ পরবর্তী পরিকল্পনা নিয়ে কথা হলো বাংলানিউজের সঙ্গে-

ঈদের পরিকল্পনা কী?
সোহান- ঈদের পরিকল্পনা বলতে আসলে এবার তেমন কিছু নেই। আসলে বাচ্চাকে নিয়েই বেশি চিন্তায় ছিলাম। আলহামদুলিল্লাহ এখন অনেক রোমাঞ্চিত, ঈদের থেকে এখন তাকে নিয়েই বেশি পরিকল্পনা।

কোথায় ঈদ করছেন?
সোহান- ঈদ সাধারণত খুলনাতেই করা হয়, তবে এবার বাচ্চার জন্য দুই ঈদই ঢাকাতে করা হচ্ছে।

ঈদের প্রিয় কোনো মুহূর্ত
সোহান- তেমন করে তো মনে নেই, তবে ছোটবেলার ঈদগুলো বেশ মজার ছিল। এখন তো তেমন মজার কিছু ঘটে না।

ঈদের পরের ব্যস্ততা কী নিয়ে?
সোহান- ঈদের পরের ব্যস্ততা বলতে, সবশেষ ঘরোয়া ক্রিকেট শেষ হওয়ার পর, নিজেকে নিয়েই একটি পরিকল্পনা করেছি। নিজের ব্যাটিং ও ফিটনেস ঠিক করার জন্য, অলরাইট ব্যাটিং স্কিল বাড়াতে একজন পারসোনাল কোচের সাথে কাজ করবো। ঈদের আগেও কিছুদিন করেছি, ঈদের পরেও করবো।

এটা আমার ব্যাটিংয়ে খুব কাজে দিয়েছে। বিসিবি একাদশের হয়ে ব্যাঙ্গালুরুতে সিমিং উইকেটেও ভালো ব্যাটিং হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ। জাতীয় দল বা এ দলের হয়ে ক্যাম্পে থাকলেও এক্সট্রা কাজ করবো। কারণ, আমার ধারণা আমার নিজের একজন ব্যক্তিগত ট্রেইনার থাকলে তার সঙ্গে সব সমস্যা নিয়ে কাজ করা যায়। ২০-২৫ জনের মধ্যে নিজের দুর্বলতার জায়গাগুলো নিয়ে বেশি কাজ করা যায় না।

বাংলাদেশ সময়: ১২২০ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০১৯
এমকেএম/এমএমএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-12 12:28:15